জাতীয়করণের দাবিতে ১৯তম দিনে শিক্ষকদের অবস্থান 
jugantor
স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা
জাতীয়করণের দাবিতে ১৯তম দিনে শিক্ষকদের অবস্থান 

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৫:৫০:৪৯  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতীয়করণের দাবিতে ১৯তম দিনে শিক্ষকদের অবস্থান 

স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা জাতীয়করণের ঘোষণাসহ সাত দফা দাবিতে বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে ১৯তম দিনের মতো অবস্থান ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করছেন শিক্ষকরা। বৃহস্পতিবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান ধর্মঘট ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি মাওলানা হাফেজ কাজী ফয়েজুর রহমান, মহাসচিব কাজী মোখলেছুর রহমান, সদস্য সচিব মুফতি মাসুম বিল্লাহ নাফিয়ী, বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগের সিনিয়র সহসভাপতি মাওলানা মো. শাহজাহান, এবিএম আব্দুল কুদ্দুস, এবিএম নাজিম উদ্দিন, আবু মুসা ভূঁইয়া, বশির উল্লাহ আতাহারী প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, এক হাজার ৫১৯টি ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষকের মধ্যে সর্বসাকল্যে প্রধান শিক্ষক আড়াই হাজার ও সহকারী শিক্ষক দুই হাজার ৩০০ টাকা ভাতা পান। বাকি রেজিস্ট্রেশনপ্রাপ্ত মাদ্রাসাগুলোর শিক্ষকরা ৩৪ বছর ধরে বেতনভাতা থেকে বঞ্চিত, যা এই দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির বাজারে অমানবিক, শিক্ষকদের অবমাননা ছাড়া কিছুই না।

এ সময় সাত দফা দাবি উপস্থাপন করে শিক্ষকরা বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো সব স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা মুজিববর্ষে মহাসমাবেশের মাধ্যমে জাতীয়করণের ঘোষণা, কোডবিহীন মাদ্রাসাগুলোর বোর্ড কর্তৃক কোড নম্বরে অন্তর্ভুক্তকরণ, স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা নীতিমালা-২০১৮ সংশোধন করে আলিম শিক্ষক একজনের পরিবর্তে এইচএসসি পাস একজন অন্তর্ভুক্তকরণ, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা অফিস সহায়ক নিয়োগ, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষকদের পিটিআই ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থাকরণ, মাদ্রাসায় আসবাবপত্র, ভবন নির্মাণ, স্থায়ী রেজিস্ট্রেশনের ব্যবস্থা করতে হবে।

স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা

জাতীয়করণের দাবিতে ১৯তম দিনে শিক্ষকদের অবস্থান 

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০৩:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
জাতীয়করণের দাবিতে ১৯তম দিনে শিক্ষকদের অবস্থান 
ফাইল ছবি

স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা জাতীয়করণের ঘোষণাসহ সাত দফা দাবিতে বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে ১৯তম দিনের মতো অবস্থান ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করছেন শিক্ষকরা। বৃহস্পতিবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান ধর্মঘট ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি মাওলানা হাফেজ কাজী ফয়েজুর রহমান, মহাসচিব কাজী মোখলেছুর রহমান, সদস্য সচিব মুফতি মাসুম বিল্লাহ নাফিয়ী, বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগের সিনিয়র সহসভাপতি মাওলানা মো. শাহজাহান, এবিএম আব্দুল কুদ্দুস, এবিএম নাজিম উদ্দিন, আবু মুসা ভূঁইয়া, বশির উল্লাহ আতাহারী প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, এক হাজার ৫১৯টি ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষকের মধ্যে সর্বসাকল্যে প্রধান শিক্ষক আড়াই হাজার ও সহকারী শিক্ষক দুই হাজার ৩০০ টাকা ভাতা পান। বাকি রেজিস্ট্রেশনপ্রাপ্ত মাদ্রাসাগুলোর শিক্ষকরা ৩৪ বছর ধরে বেতনভাতা থেকে বঞ্চিত, যা এই দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির বাজারে অমানবিক, শিক্ষকদের অবমাননা ছাড়া কিছুই না।

এ সময় সাত দফা দাবি উপস্থাপন করে শিক্ষকরা বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো সব স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা মুজিববর্ষে মহাসমাবেশের মাধ্যমে জাতীয়করণের ঘোষণা, কোডবিহীন মাদ্রাসাগুলোর বোর্ড কর্তৃক কোড নম্বরে অন্তর্ভুক্তকরণ, স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা নীতিমালা-২০১৮ সংশোধন করে আলিম শিক্ষক একজনের পরিবর্তে এইচএসসি পাস একজন অন্তর্ভুক্তকরণ, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা অফিস সহায়ক নিয়োগ, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মতো স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষকদের পিটিআই ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থাকরণ, মাদ্রাসায় আসবাবপত্র, ভবন নির্মাণ, স্থায়ী রেজিস্ট্রেশনের ব্যবস্থা করতে হবে।