যে কারণে আত্মহত্যা করেছেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রুবেল 
jugantor
যে কারণে আত্মহত্যা করেছেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রুবেল 

  ঢামেক প্রতিনিধি  

২২ জুন ২০২১, ১৬:৩১:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রতীকী ছবি

রাজধানীর শুক্রাবাদ এলাকার একটি বাসায় সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মো. রুবেল (৩৫) আত্মহত্যা করেছেন।

রুবেল কলাবাগান থানা ছাত্রলীগ কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে।

মঙ্গলবার সকালে ৬২/১ নম্বর বাসার তৃতীয় তলা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

পরিবার জানিয়েছে, এক বছর আগে তিনি বিয়ে করেন। এরপর থেকে সিটি করপোরেশনের ময়লার টেন্ডার পেয়ে কাজ করতেন।

সম্প্রতি টেন্ডারটি তার হাতছাড়া হয়ে যায়। এরপর থেকে তিনি হতাশায় ভুগছিলেন। মঙ্গলবার সকালে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে নিজের লুঙ্গি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন।

রুবেলের স্ত্রী লাবনী আক্তার যুগান্তরকে বলেন, সকালে রান্নার কাজে ব্যস্ত ছিলাম। ১০টার দিকে রুমে গিয়ে দেখি তিনি ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছেন।

তিনি জানান, টেন্ডার না পেয়ে তার স্বামী হতাশায় ভুগছিলেন। গত ৯ জুন থেকে রাতে ঘুমাতেন না। ঋণগ্রস্ত থাকায় সারাক্ষণ টেনশন করতেন।

রুবেলের ছোট ভাই ওসমান গনি যুগান্তরকে জানান, ‘তার ভাই ১৭ নম্বর ওয়ার্ড কলাবাগানের সাবেক ছাত্রলীগের সেক্রেটারি ছিলেন। প্রায় ১০ মাস ধরে সিটি করপোরেশনের ময়লার টেন্ডার পেয়ে কাজ করে আসছিলেন।

‘কিন্তু টেন্ডারটি জোর করে ১৭ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ও সেক্রেটারি শিশির দুয়ারী ও শিমুল ও সজিব নিয়ে নেয়। তারা আমার ভাইকে টেন্ডার ছেড়ে দিতে বলেন। এ নিয়ে তাকে বিভিন্ন সময় হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছিলেন তারা।’

ওসমান গনি আরও জানান, আমার ভাই ঋণগ্রস্ত ছিলেন। টেন্ডার হাতছাড়া হওয়ায় মানসিকভাবে আরও ভেঙে পড়েন তিনি। এ নিয়ে দুশ্চিন্তা থেকে আত্মহত্যা করেছেন তিনি।

বরিশালের হিজলা থানার হরিনাথপুর গ্রাম মৃত আবদুল মালেকের ছেলে রুবেল। তিনি শেরেবাংলা নগরের শুক্রাবাদ ৬২/১ নম্বর বাসায় পরিবার নিয়ে থাকতেন।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই আব্দুল্লাহ খান জানান, শুক্রাবাদ থেকে এক ব্যক্তিকে আনার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় অবগত করা হয়েছে।

যে কারণে আত্মহত্যা করেছেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রুবেল 

 ঢামেক প্রতিনিধি 
২২ জুন ২০২১, ০৪:৩১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

রাজধানীর শুক্রাবাদ এলাকার একটি বাসায় সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মো. রুবেল (৩৫) আত্মহত্যা করেছেন।  

রুবেল কলাবাগান থানা ছাত্রলীগ কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে। 

মঙ্গলবার সকালে ৬২/১ নম্বর বাসার তৃতীয় তলা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।  

পরিবার জানিয়েছে, এক বছর আগে তিনি বিয়ে করেন। এরপর থেকে সিটি করপোরেশনের ময়লার টেন্ডার পেয়ে কাজ করতেন।

সম্প্রতি টেন্ডারটি তার হাতছাড়া হয়ে যায়। এরপর থেকে তিনি হতাশায় ভুগছিলেন। মঙ্গলবার সকালে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে নিজের লুঙ্গি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন। 

রুবেলের স্ত্রী লাবনী আক্তার যুগান্তরকে বলেন, সকালে রান্নার কাজে ব্যস্ত ছিলাম। ১০টার দিকে রুমে গিয়ে দেখি তিনি ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছেন। 

তিনি জানান, টেন্ডার না পেয়ে তার স্বামী হতাশায় ভুগছিলেন। গত ৯ জুন থেকে রাতে ঘুমাতেন না। ঋণগ্রস্ত থাকায় সারাক্ষণ টেনশন করতেন। 

রুবেলের ছোট ভাই ওসমান গনি যুগান্তরকে জানান, ‘তার ভাই ১৭ নম্বর ওয়ার্ড কলাবাগানের সাবেক ছাত্রলীগের সেক্রেটারি ছিলেন। প্রায় ১০ মাস ধরে সিটি করপোরেশনের ময়লার টেন্ডার পেয়ে কাজ করে আসছিলেন। 

‘কিন্তু টেন্ডারটি জোর করে ১৭ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ও সেক্রেটারি শিশির দুয়ারী ও শিমুল ও সজিব নিয়ে নেয়। তারা আমার ভাইকে টেন্ডার ছেড়ে দিতে বলেন। এ নিয়ে তাকে বিভিন্ন সময় হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছিলেন তারা।’

ওসমান গনি আরও জানান, আমার ভাই ঋণগ্রস্ত ছিলেন। টেন্ডার হাতছাড়া হওয়ায় মানসিকভাবে আরও ভেঙে পড়েন তিনি। এ নিয়ে দুশ্চিন্তা থেকে আত্মহত্যা করেছেন তিনি।

বরিশালের হিজলা থানার হরিনাথপুর গ্রাম মৃত আবদুল মালেকের ছেলে রুবেল। তিনি শেরেবাংলা নগরের শুক্রাবাদ ৬২/১ নম্বর বাসায় পরিবার নিয়ে থাকতেন।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই আব্দুল্লাহ খান জানান, শুক্রাবাদ থেকে এক ব্যক্তিকে আনার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় অবগত করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন