রাজধানীর কমলাপুরে তরুণকে কুপিয়ে হত্যা
jugantor
রাজধানীর কমলাপুরে তরুণকে কুপিয়ে হত্যা

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:২৯:০৩  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজধানীর কমলাপুরে তরুণকে কুপিয়ে হত্যা

রাজধানীর কমলাপুরে হৃদয় (২২) নামে এক তরুণকে হত্যা করা হয়েছে। সোমবার রাত ১১টার পর এ ঘটনা ঘটে।

ময়নাতদন্তের জন্য হৃদয়ের লাশ রাখা হয়েছে ঢাকা মেডিকেল কলেজের মর্গে।

মতিঝিল থানার ওসি ইয়াসিন আরাফাত টেলিফোনে যুগান্তরকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে। এটি হত্যাকাণ্ড বলেই মনে হচ্ছে।

পুলিশ জানায়, হৃদয় ভাসমান হিসেবে মতিঝিল ও কমলাপুর এলাকায় থাকতেন। সোমবার রাতে কমলাপুরের বাজার রোড এলাকায় অজ্ঞাত ব্যক্তিরা হৃদয়কে কুপিয়ে জখম করে ফেলে রেখে যায়। খবর পেয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় হৃদয়কে উদ্ধার করে রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

হৃদয়ের মা- বাবা কিংবা তার ঠিকানা জানা সম্ভব হয়নি। তার পরিচয় উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

পুলিশ ধারণা করছে, হৃদয়ের বন্ধুরাই তাকে হত্যা করেছে। তাদের পরিচয়ও জানার চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় যারা জড়িত, তাদের প্রত্যেককে আইনের আওতায় আনা হবে।

রাজধানীর কমলাপুরে তরুণকে কুপিয়ে হত্যা

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রাজধানীর কমলাপুরে তরুণকে কুপিয়ে হত্যা
প্রতীকী ছবি

রাজধানীর কমলাপুরে হৃদয় (২২) নামে এক তরুণকে হত্যা করা হয়েছে।  সোমবার রাত ১১টার পর এ ঘটনা ঘটে।
 
ময়নাতদন্তের জন্য হৃদয়ের লাশ রাখা হয়েছে ঢাকা মেডিকেল কলেজের মর্গে।

মতিঝিল থানার ওসি ইয়াসিন আরাফাত টেলিফোনে যুগান্তরকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে। এটি হত্যাকাণ্ড বলেই মনে হচ্ছে।

পুলিশ  জানায়, হৃদয় ভাসমান হিসেবে মতিঝিল ও কমলাপুর এলাকায় থাকতেন। সোমবার রাতে কমলাপুরের বাজার রোড এলাকায় অজ্ঞাত ব্যক্তিরা হৃদয়কে কুপিয়ে জখম করে ফেলে রেখে যায়। খবর পেয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় হৃদয়কে উদ্ধার করে রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

হৃদয়ের মা- বাবা কিংবা তার ঠিকানা জানা সম্ভব হয়নি। তার পরিচয় উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। 

পুলিশ ধারণা করছে, হৃদয়ের বন্ধুরাই তাকে হত্যা করেছে। তাদের পরিচয়ও জানার চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় যারা জড়িত, তাদের প্রত্যেককে আইনের আওতায় আনা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন