আগ্নেয়াস্ত্রসহ দেহরক্ষী নিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করছিলেন তিনি
jugantor
আগ্নেয়াস্ত্রসহ দেহরক্ষী নিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করছিলেন তিনি

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:১১:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

দেহরক্ষীদের নিয়ে আগ্নেয়াস্ত্র প্রদর্শন করে ত্রাস সৃষ্টি ও জনমনে ভীতি সঞ্চার করায় মেজবাহ উদ্দিন সরকার ওরফে রুবেল (৪৪) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

রাজধানীর উত্তরা ৭ নম্বর সেক্টর এলাকার ১২/এ সড়কের একটি বাসা থেকে বুধবার দিবাগত রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, দুটি ম্যাগাজিন, ৫০ রাউন্ড গুলি, একটি পিস্তল বক্স, দুটি পিস্তল কভার, একটি পিস্তলের লাইসেন্স ও দুটি মোবাইল উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে র‌্যাব-১ এর অপারেশন অফিসার এএসপি নোমান আহমদ এসব তথ্য জানান।

র‌্যাব জানায়, ভার্চুয়াল জগতে নজরদারির ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১ সাইবার মনিটরিং টিম সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি সন্দেহমূলক আইডি শনাক্ত করে। ওই আইডিতে আগ্নেয়াস্ত্র প্রদর্শন করে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টির কিছু স্থিরচিত্র দেখা যায়। এরই প্রেক্ষিতে মেজবাহ উদ্দিন সরকারের অবস্থান শনাক্ত করে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাব আরও জানায়, মেজবাহ তার দেহরক্ষী পলাতক ফারুকসহ অজ্ঞাতনামা আরও দুইজনকে নিয়ে উত্তরা পশ্চিম থানা, টঙ্গীসহ বিভিন্ন এলাকায় আধিপত্য বিস্তারে প্রকাশ্যে অস্ত্র প্রদর্শন করে থাকেন। আধিপত্য বিস্তারের জন্যই অস্ত্র প্রদর্শনের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আপলোড করেন। যেসব ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেখা যায়, তারমধ্যে একটিতে এমন ছিল যে, মেজবাহ ছাতা নিয়ে ঘুরছেন আর তার সঙ্গে রয়েছেন বিশেষ কটি পরা সশস্ত্র তিন যুবক।

র‌্যাব বলছে, তিনি অসৎ উদ্দেশ্যে অবৈধভাবে অস্ত্রসহ তিনজন দেহরক্ষী নিয়োগ দেন। আর বৈধ অস্ত্রের অবৈধ ব্যবহার করে আসছিলেন তিনি। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

আগ্নেয়াস্ত্রসহ দেহরক্ষী নিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করছিলেন তিনি

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দেহরক্ষীদের নিয়ে আগ্নেয়াস্ত্র প্রদর্শন করে ত্রাস সৃষ্টি ও জনমনে ভীতি সঞ্চার করায় মেজবাহ উদ্দিন সরকার ওরফে রুবেল (৪৪) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। 

রাজধানীর উত্তরা ৭ নম্বর সেক্টর এলাকার ১২/এ সড়কের একটি বাসা থেকে বুধবার দিবাগত রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, দুটি ম্যাগাজিন, ৫০ রাউন্ড গুলি, একটি পিস্তল বক্স, দুটি পিস্তল কভার, একটি পিস্তলের লাইসেন্স ও দুটি মোবাইল উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে র‌্যাব-১ এর অপারেশন অফিসার এএসপি নোমান আহমদ এসব তথ্য জানান। 

র‌্যাব জানায়, ভার্চুয়াল জগতে নজরদারির ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১ সাইবার মনিটরিং টিম সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি সন্দেহমূলক আইডি শনাক্ত করে। ওই আইডিতে আগ্নেয়াস্ত্র প্রদর্শন করে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টির কিছু স্থিরচিত্র দেখা যায়। এরই প্রেক্ষিতে মেজবাহ উদ্দিন সরকারের অবস্থান শনাক্ত করে তাকে গ্রেফতার করা হয়। 

র‌্যাব আরও জানায়, মেজবাহ তার দেহরক্ষী পলাতক ফারুকসহ অজ্ঞাতনামা আরও দুইজনকে নিয়ে উত্তরা পশ্চিম থানা, টঙ্গীসহ বিভিন্ন এলাকায় আধিপত্য বিস্তারে প্রকাশ্যে অস্ত্র প্রদর্শন করে থাকেন।  আধিপত্য বিস্তারের জন্যই অস্ত্র প্রদর্শনের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আপলোড করেন। যেসব ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেখা যায়, তারমধ্যে একটিতে এমন ছিল যে, মেজবাহ ছাতা নিয়ে ঘুরছেন আর তার সঙ্গে রয়েছেন বিশেষ কটি পরা সশস্ত্র তিন যুবক। 

র‌্যাব বলছে, তিনি অসৎ উদ্দেশ্যে অবৈধভাবে অস্ত্রসহ তিনজন দেহরক্ষী নিয়োগ দেন। আর বৈধ অস্ত্রের অবৈধ ব্যবহার করে আসছিলেন তিনি। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন