স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের সামনে টানা চতুর্থ দিন মেডিকেল শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন
jugantor
স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের সামনে টানা চতুর্থ দিন মেডিকেল শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৫:৩৫:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের সামনে নাইটিংগেল মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা।

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের সামনে টানা চতুর্থ দিনের মত মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে নাইটিংগেল মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা।রোববার সকালে এ কর্মসূচি শুরু হয়।

রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় এ মানববন্ধন শুরু হয়ে দুপুর ২টায় শেষ হয়।

শিক্ষার্থীরা জানান, স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ এইচ এম এনায়েত হোসেনের সঙ্গে শিক্ষার্থীরা তাদের দাবি তুলে ধরার চেষ্টা করেন। কিন্তু তিনি বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কোনো প্রকার যোগাযোগ না করেই তিনি তার কার্যালয় ত্যাগ করেন। তিনি এই শিক্ষার্থীদের দায় নিতে অস্বীকৃতি জানান।

এদিকে ভুক্তভোগী মেডিকেল শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তারা শান্তিপূর্ণভাবে মানববন্ধন কর্মসূচি চালিয়ে যাবে।

বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা জানায়, তারা ২০১৭-১৮ সেশনে জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশিত ভর্তি বিজ্ঞপ্তি দেখে ওই মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন। ওই সময় কলেজ কর্তৃপক্ষ জানায়, কলেজের অভ্যন্তরীণ কিছু সমস্যার কারণে ২০১৬ সালে তাদের পূর্ববর্তী শিক্ষার্থীরা মাইগ্রেশন করে অন্যত্র চলে গিয়েছে। তারা এটাও বলেছিলেন আমাদেরকে প্রথম ব্যাচ ধরে কলেজের সকল কার্যক্রম নতুনভাবে শুরু করবেন এবং তাদের পূর্ববর্তী সকল সমস্যারও সমাধান তারা করেছেন।

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের সামনে টানা চতুর্থ দিন মেডিকেল শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৩:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের সামনে নাইটিংগেল মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা।
স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের সামনে নাইটিংগেল মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা। ছবি: সংগৃহীত

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের সামনে টানা চতুর্থ দিনের মত মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে নাইটিংগেল মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা। রোববার সকালে এ কর্মসূচি শুরু হয়।  

রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় এ মানববন্ধন শুরু হয়ে দুপুর ২টায় শেষ হয়।

শিক্ষার্থীরা জানান, স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ এইচ এম এনায়েত হোসেনের সঙ্গে শিক্ষার্থীরা তাদের দাবি তুলে ধরার চেষ্টা করেন। কিন্তু তিনি বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কোনো প্রকার যোগাযোগ না করেই তিনি তার কার্যালয় ত্যাগ করেন। তিনি এই শিক্ষার্থীদের দায় নিতে অস্বীকৃতি জানান।

এদিকে ভুক্তভোগী মেডিকেল শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তারা শান্তিপূর্ণভাবে মানববন্ধন কর্মসূচি চালিয়ে যাবে।

বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা জানায়, তারা ২০১৭-১৮ সেশনে জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশিত ভর্তি বিজ্ঞপ্তি দেখে ওই মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন। ওই সময় কলেজ কর্তৃপক্ষ জানায়, কলেজের অভ্যন্তরীণ কিছু সমস্যার কারণে ২০১৬ সালে তাদের পূর্ববর্তী শিক্ষার্থীরা মাইগ্রেশন করে অন্যত্র চলে গিয়েছে। তারা এটাও বলেছিলেন আমাদেরকে প্রথম ব্যাচ ধরে কলেজের সকল কার্যক্রম নতুনভাবে শুরু করবেন এবং তাদের পূর্ববর্তী সকল সমস্যারও সমাধান তারা করেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন