‘সাইবার পেট্রোলিংয়ে দক্ষ অফিসার তৈরির বিকল্প নেই’
jugantor
‘সাইবার পেট্রোলিংয়ে দক্ষ অফিসার তৈরির বিকল্প নেই’

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০২ ডিসেম্বর ২০২১, ২১:৫৮:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ক্রমবর্ধমান সাইবার অপরাধ ও অপরাধীদের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সম্প্রতি ঢাকা রেঞ্জাধীন ১৩টি জেলার প্রতিটি জেলায় ৫ জন অফিসার ও ফোর্সের সমন্বয়ে ‘সাইবার ক্রাইম মনিটরিং সেল’ গঠন করা হয়েছে। ঢাকা রেঞ্জ হতে একজন পুলিশ সুপার পদমর্যাদার কর্মকর্তার নেতৃত্বে গঠিত একটি সেল রেঞ্জাধীন জেলাগুলোর সব সেলের সাথে সমন্বয় এবং পরবর্তী কার্যক্রম সংক্রান্ত দিকনির্দেশনা প্রদান করবেন।

সাম্প্রতিককালে সংঘটিত বিভিন্ন নাশকতামূলক সাইবার অপরাধ প্রতিরোধে এ মনিটিরিং সেল কার্যক্রম পরিচালনা করবে। সাইবার অপরাধ বিষয়ক তদন্তে প্রযুক্তিগত দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ঢাকা রেঞ্জের উদ্যোগে দুই দিনব্যাপী দুই দফায় এই সেলের ৭০ জন অফিসার ও ফোর্সকে সাইবার ক্রাইমের ওপর প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের এলআইসি শাখা, ডিএমপি ঢাকার সাইবার ক্রাইম ও সিআইডি সাইবার ক্রাইম ইউনিটের অভিজ্ঞ ও দক্ষ কর্মকর্তারা এ প্রশিক্ষণ প্রদান করেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইমের (সিটিটিসি) প্রধান মো. আসাদুজ্জামান (বিপিএম-বার) অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার, ডিএমপি, সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে কোর্স মূল্যায়ন করেন এবং প্রশিক্ষণার্থীদের সার্টিফিকেট প্রদান করেন।

সমাপনী বক্তব্যে তিনি সাইবার ক্রাইমের ক্রমবর্ধমান চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাংলাদেশ পুলিশের প্রতিটি জেলায় দক্ষ অফিসার ও ফোর্সের সমন্বয়ে সাইবার ক্রাইম মনিটরিং সেল গঠনে ঢাকা রেঞ্জের এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান। প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে অপরাধ ও অপরাধী শনাক্তে সাইবার পেট্রোলিংয়ে দক্ষ অফিসার তৈরির কোনো বিকল্প নেই বলে তিনি মন্তব্য করেন। সমাপনী অনুষ্ঠানে ঢাকা রেঞ্জের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

‘সাইবার পেট্রোলিংয়ে দক্ষ অফিসার তৈরির বিকল্প নেই’

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ক্রমবর্ধমান সাইবার অপরাধ ও অপরাধীদের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সম্প্রতি ঢাকা রেঞ্জাধীন  ১৩টি জেলার প্রতিটি জেলায় ৫ জন অফিসার ও ফোর্সের সমন্বয়ে ‘সাইবার ক্রাইম মনিটরিং সেল’ গঠন করা হয়েছে। ঢাকা রেঞ্জ হতে একজন পুলিশ সুপার পদমর্যাদার কর্মকর্তার নেতৃত্বে গঠিত একটি সেল রেঞ্জাধীন জেলাগুলোর সব সেলের সাথে সমন্বয় এবং পরবর্তী কার্যক্রম সংক্রান্ত দিকনির্দেশনা প্রদান করবেন।
 
সাম্প্রতিককালে সংঘটিত বিভিন্ন নাশকতামূলক সাইবার অপরাধ  প্রতিরোধে এ মনিটিরিং সেল কার্যক্রম পরিচালনা করবে। সাইবার অপরাধ বিষয়ক তদন্তে প্রযুক্তিগত দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে  ঢাকা রেঞ্জের উদ্যোগে দুই দিনব্যাপী দুই দফায় এই সেলের ৭০ জন অফিসার ও ফোর্সকে  সাইবার ক্রাইমের ওপর প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের এলআইসি শাখা, ডিএমপি ঢাকার সাইবার ক্রাইম ও সিআইডি সাইবার ক্রাইম ইউনিটের অভিজ্ঞ ও দক্ষ কর্মকর্তারা এ প্রশিক্ষণ প্রদান করেন।
 
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইমের (সিটিটিসি) প্রধান মো. আসাদুজ্জামান (বিপিএম-বার) অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার, ডিএমপি, সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে কোর্স মূল্যায়ন করেন এবং প্রশিক্ষণার্থীদের  সার্টিফিকেট প্রদান করেন। 

সমাপনী বক্তব্যে তিনি সাইবার ক্রাইমের ক্রমবর্ধমান চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাংলাদেশ পুলিশের প্রতিটি জেলায় দক্ষ অফিসার ও ফোর্সের সমন্বয়ে সাইবার ক্রাইম মনিটরিং সেল গঠনে ঢাকা রেঞ্জের এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান। প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে অপরাধ ও অপরাধী শনাক্তে সাইবার পেট্রোলিংয়ে দক্ষ অফিসার তৈরির কোনো বিকল্প নেই বলে তিনি মন্তব্য করেন। সমাপনী অনুষ্ঠানে ঢাকা রেঞ্জের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।  
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন