রেদোয়ানের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন
jugantor
রেদোয়ানের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৩ মে ২০২২, ১৭:৩৯:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার চান্দিনায় নিজের গাড়িতে হামলা হওয়ায় এলোপাতাড়ি গুলি ছোড়ার ঘটনায় গ্রেফতার লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) মহাসচিব ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী ড. রেদোয়ান আহমেদের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলডিপির মহিলা সংগঠন গণতান্ত্রিক মহিলা দলের নেতাকর্মীরা।

শুক্রবার রাজধানীতে এলডিপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন তারা।

গণতান্ত্রিক মহিলা দলের সভাপতি অধ্যাপিকা কারিমা খাতুনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য দেন– এলডিপির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট ড. আওরঙ্গজেব বেলাল, অ্যাডভোকেট মাহমুদ মোর্শেদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. নেয়ামুল বশির, উপদেষ্টা অধ্যক্ষ মাহবুবুর রহমান, যুগ্ম মহাসচিব বিল্লাল হোসেন মিয়াজি, আইন সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবুল হাসেম, গণতান্ত্রিক যুবদলের আহ্বায়ক আমান সোবহান, গণতান্ত্রিক স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক খালিদ বিন জসিম, ঢাকা মহানগর উত্তর এলডিপির সদস্য সচিব অবাক হোসেন রনি, গণতান্ত্রিক মহিলাদলের সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ তপতি রানী কর, সহসভাপতি উপাধ্যক্ষ শামসুন নাহার সিদ্দিকা, সহসভাপতি অধ্যাপিকা মোমেনা খন্দকার, দক্ষিণের সভাপতি তাহমিনা, উত্তরের সভাপতি নিলা, মহিলা দল নেত্রী আনোয়ারা প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘রেদোয়ান আহমেদ কুমিল্লার চান্দিনা থেকে চারবারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য। তিনি মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ছিলেন। ৯ মে চান্দিনা উপজেলা যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ রেদোয়ান আহমেদের গাড়ি ভাঙচুর, দলীয় কার্যালয় ভাঙচুর ও বাড়িতে হামলা চালিয়ে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করে। রেদোয়ান আহমেদ আত্মরক্ষার্থে থানায় অবস্থান নেন। কিন্তু তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে। বর্তমান আওয়ামী সরকার যে সন্ত্রাসনির্ভর কার্যক্রম চালাচ্ছে, এই হামলা তারই প্রমাণ। আমরা রেদোয়ান আহমেদের নিঃশর্ত মুক্তি চাই।’

প্রসঙ্গত, গত ৯ মে বিকাল ৪টায় চান্দিনা রেদোয়ান আহমেদ কলেজ ক্যাম্পাস-২ মমতাজ আহমেদ ভবন এ কলেজ ছাত্রলীগ ও পৌর এলডিপি পালটাপালটি ঈদ পুনর্মিলনীর আয়োজন করেন। দুপুর ১টার পর থেকে ছাত্রলীগের আয়োজনে স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা অনুষ্ঠান স্থলে উপস্থিত হতে শুরু করে।

দুপুর আড়াইটায় এলডিপি মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ কলেজ ক্যাম্পাস-২ প্রধান ফটকের সামনে গেলে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাদের সঙ্গে কথা হয়। এ সময় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতারা একই স্থানে এলডিপির প্রোগ্রাম করতে নিষেধ করেন এবং ছাত্রলীগও প্রোগ্রাম করবেন না বলে জানান। এ সময় তিনি গাড়ি নিয়ে ফিরে যাওয়ার সময় কোনো এক ছাত্রলীগ কর্মী রেদোয়ান আহমেদের গাড়িতে তরমুজ ছুড়ে মারে। এ সময় রেদোয়ান আহমেদ গাড়ির জানালা খুলে পরপর দুইটি গুলি করেন।

এতে ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের দুই কর্মী গুলিবিদ্ধ হয়। এ ঘটনায় উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা কাজী আখলাকুর রহমান জুয়েল বাদী হয়ে ১৫ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় রেদোয়ান আহমেদসহ চারজনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

এদিকে আজ রেদোয়ান আহমেদের মুক্তির দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধন শেষে দলটির ‌সাধারণ নেতাকর্মীরা মিষ্টি বিতরণ করেন। এলডিপি থেকে শতাধিক নেতাকর্মী পদত্যাগ করায় এ মিষ্টি বিতরণ করেন তারা। এ সময় এক প্রতিক্রিয়ায় এলডিপির যুগ্ম মহাসচিব বিল্লাল হোসেন মিয়াজি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘কমিটি বাণিজ্য, টাকা আত্মসাত, অবৈধ প্রবাসীদের নাগরিকত্ব পাইয়ে দেওয়ার নামে এলডিপির প্রেসিডেন্টের (কর্নেল অলি) স্বাক্ষর নকল করে পদ প্রদান, অনুষ্ঠানে খরচের নামে দীর্ঘদিন ধরে দলের টাকা আত্মসাত, বিভিন্ন অনুষ্ঠানের ফান্ড কালেকশনের নামে চাঁদাবাজি, পার্টি ও অনুষ্ঠানের হল ভাড়া নেওয়ার কথা বলে বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে টাকা উত্তোলন করে আত্মসাত করাসহ বিভিন্ন অরাধে অভিযুক্ত এই প্রতারক চক্র। তারা দীর্ঘদিন এলডিপি নেতা পরিচয় দিয়ে অপকর্ম করে আসছিল। বিষয়গুলো জানাজানি হওয়ায় জনরোশ থেকে বাঁচতে তারা এলডিপি ছেড়েছে। এই প্রতারক চক্র এলডিপি ছাড়ায় দলের সব নেতাকর্মীরা খুশি। জেলায় জেলায় মিষ্টি বিতরণ চলছে।’

তিনি বলেন, ‘গণমাধ্যমে পদপদবিসহ বিভিন্ন লোকের নাম প্রকাশ করা হলেও এদের ১-২ জন ছাড়া কেউ পার্টির কার্যক্রমে সক্রিয় ছিল না। পদত্যাগকারীদের যে তালিকা গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে তা সম্পূর্ণ ভুয়া। এখানে অনেকের নাম উল্লেখ করা হয়েছে যারা কখনই এলডিপি করত না এবং আমরাও তাদের চিনি না। এই প্রতারক চক্র এলডিপি থেকে সরে যাওয়ায় তাৎক্ষণিক আনন্দ উদযাপন করে মিষ্টি বিতরণ করেছেন এলডিপির নেতাকর্মীরা। এই প্রতারক চক্রের পদত্যাগের সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানাচ্ছি।’

রেদোয়ানের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৩ মে ২০২২, ০৫:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার চান্দিনায় নিজের গাড়িতে হামলা হওয়ায় এলোপাতাড়ি গুলি ছোড়ার ঘটনায় গ্রেফতার লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) মহাসচিব ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী ড. রেদোয়ান আহমেদের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলডিপির মহিলা সংগঠন গণতান্ত্রিক মহিলা দলের নেতাকর্মীরা। 

শুক্রবার রাজধানীতে এলডিপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন তারা। 

গণতান্ত্রিক মহিলা দলের সভাপতি অধ্যাপিকা কারিমা খাতুনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য দেন– এলডিপির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট ড. আওরঙ্গজেব বেলাল, অ্যাডভোকেট মাহমুদ মোর্শেদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. নেয়ামুল বশির, উপদেষ্টা অধ্যক্ষ মাহবুবুর রহমান, যুগ্ম মহাসচিব বিল্লাল হোসেন মিয়াজি, আইন সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবুল হাসেম, গণতান্ত্রিক যুবদলের আহ্বায়ক আমান সোবহান, গণতান্ত্রিক স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক খালিদ বিন জসিম, ঢাকা মহানগর উত্তর এলডিপির সদস্য সচিব অবাক হোসেন রনি, গণতান্ত্রিক মহিলাদলের সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ তপতি রানী কর, সহসভাপতি উপাধ্যক্ষ শামসুন নাহার সিদ্দিকা, সহসভাপতি অধ্যাপিকা মোমেনা খন্দকার, দক্ষিণের সভাপতি তাহমিনা, উত্তরের সভাপতি নিলা, মহিলা দল নেত্রী আনোয়ারা প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘রেদোয়ান আহমেদ কুমিল্লার চান্দিনা থেকে চারবারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য। তিনি মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ছিলেন। ৯ মে চান্দিনা উপজেলা যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ রেদোয়ান আহমেদের গাড়ি ভাঙচুর, দলীয় কার্যালয় ভাঙচুর ও বাড়িতে হামলা চালিয়ে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করে। রেদোয়ান আহমেদ আত্মরক্ষার্থে থানায় অবস্থান নেন।  কিন্তু তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে। বর্তমান আওয়ামী সরকার যে সন্ত্রাসনির্ভর কার্যক্রম চালাচ্ছে, এই হামলা তারই প্রমাণ। আমরা রেদোয়ান আহমেদের নিঃশর্ত মুক্তি চাই।’

প্রসঙ্গত, গত ৯ মে বিকাল ৪টায় চান্দিনা রেদোয়ান আহমেদ কলেজ ক্যাম্পাস-২ মমতাজ আহমেদ ভবন এ কলেজ ছাত্রলীগ ও পৌর এলডিপি পালটাপালটি ঈদ পুনর্মিলনীর আয়োজন করেন। দুপুর ১টার পর থেকে ছাত্রলীগের আয়োজনে স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা অনুষ্ঠান স্থলে উপস্থিত হতে শুরু করে।

দুপুর আড়াইটায় এলডিপি মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ কলেজ ক্যাম্পাস-২ প্রধান ফটকের সামনে গেলে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাদের সঙ্গে কথা হয়। এ সময় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতারা একই স্থানে এলডিপির প্রোগ্রাম করতে নিষেধ করেন এবং ছাত্রলীগও প্রোগ্রাম করবেন না বলে জানান। এ সময় তিনি গাড়ি নিয়ে ফিরে যাওয়ার সময় কোনো এক ছাত্রলীগ কর্মী রেদোয়ান আহমেদের গাড়িতে তরমুজ ছুড়ে মারে। এ সময় রেদোয়ান আহমেদ গাড়ির জানালা খুলে পরপর দুইটি গুলি করেন।

এতে ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের দুই কর্মী গুলিবিদ্ধ হয়। এ ঘটনায় উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা কাজী আখলাকুর রহমান জুয়েল বাদী হয়ে ১৫ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় রেদোয়ান আহমেদসহ চারজনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

এদিকে আজ রেদোয়ান আহমেদের মুক্তির দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধন শেষে দলটির ‌সাধারণ নেতাকর্মীরা মিষ্টি বিতরণ করেন। এলডিপি থেকে শতাধিক নেতাকর্মী পদত্যাগ করায় এ মিষ্টি বিতরণ করেন তারা। এ সময় এক প্রতিক্রিয়ায় এলডিপির যুগ্ম মহাসচিব বিল্লাল হোসেন মিয়াজি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘কমিটি বাণিজ্য, টাকা আত্মসাত, অবৈধ প্রবাসীদের নাগরিকত্ব পাইয়ে দেওয়ার নামে এলডিপির প্রেসিডেন্টের (কর্নেল অলি) স্বাক্ষর নকল করে পদ প্রদান, অনুষ্ঠানে খরচের নামে দীর্ঘদিন ধরে দলের টাকা আত্মসাত, বিভিন্ন অনুষ্ঠানের ফান্ড কালেকশনের নামে চাঁদাবাজি, পার্টি ও অনুষ্ঠানের হল ভাড়া নেওয়ার কথা বলে বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে টাকা উত্তোলন করে আত্মসাত করাসহ বিভিন্ন অরাধে অভিযুক্ত এই প্রতারক চক্র। তারা দীর্ঘদিন এলডিপি নেতা পরিচয় দিয়ে অপকর্ম করে আসছিল। বিষয়গুলো জানাজানি হওয়ায় জনরোশ থেকে বাঁচতে তারা এলডিপি ছেড়েছে। এই প্রতারক চক্র এলডিপি ছাড়ায় দলের সব নেতাকর্মীরা খুশি। জেলায় জেলায় মিষ্টি বিতরণ চলছে।’

তিনি বলেন, ‘গণমাধ্যমে পদপদবিসহ বিভিন্ন লোকের নাম প্রকাশ করা হলেও এদের ১-২ জন ছাড়া কেউ পার্টির কার্যক্রমে সক্রিয় ছিল না। পদত্যাগকারীদের যে তালিকা গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে তা সম্পূর্ণ ভুয়া। এখানে অনেকের নাম উল্লেখ করা হয়েছে যারা কখনই এলডিপি করত না এবং আমরাও তাদের চিনি না। এই প্রতারক চক্র এলডিপি থেকে সরে যাওয়ায় তাৎক্ষণিক আনন্দ উদযাপন করে মিষ্টি বিতরণ করেছেন এলডিপির নেতাকর্মীরা। এই প্রতারক চক্রের পদত্যাগের সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানাচ্ছি।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন