ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণার পর রাতে ইডেন কলেজে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ
jugantor
ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণার পর রাতে ইডেন কলেজে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ

  অনলাইন ডেস্ক  

১৪ মে ২০২২, ০৫:২৬:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ঐতিহ্যবাহী ইডেন কলেজে ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণার পর দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। শুক্রবার (১৩ মে) রাত সাড়ে নয়টার দিকে এ সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। পরে পুলিশ ও শিক্ষকদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হলেও ফের শুরু হয় বিক্ষোভ।

জানা যায়, ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণার পরই বাদ পরা নেত্রীদের ওপর চড়াও হন পদ পাওয়া নেত্রীরা। এরপরই শুরু হয় সংঘর্ষ। এ সময় ‘নতুন কমিটির সভাপতি ও সেক্রেটারিকে মানি না’ বলেও স্লোগান দেয় একটি পক্ষ।

ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের নতুন কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক নুরজাহান খানম সামিয়া গণমাধ্যমকে বলেন, অনেকে প্রত্যাশিত পদ না পেয়ে বিক্ষোভ করছে। ভাঙচুর করা হয়েছে আমাদের কক্ষ।

উল্লেখ্য, শুক্রবার বিকেলে সম্মেলনেরও প্রায় তিন বছর পর বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ইডেন কলেজ শাখার আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের সই করা সেই কমিটিতে সভাপতি হিসেবে তামান্না জেসমিন রিভা ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে রাজিয়া সুলতানা স্থান পান।

কমিটিতে সহ-সভাপতি হয়েছেন ৩০ জন। তারা হলেন- সোনালী আক্তার, শিরিন সুমি, জেবুন্নাহর শিলা, মারজান উর্মি, সাদিয়া জায়ন সাথী, কল্পনা বেগম, উম্মে রুম্মান রুমি, নাহিদা চৌধুরী রাকা, জিনাত জায়ন লিমা, বিজলি আক্তার, তানজিলা আক্তার, সুমা মল্লিক পপি, উদিতা আক্তার, আফরোজা আক্তার রশ্মি, কেয়া আক্তার লুনা, মীম ইসলাম, মনিকা তনচংগ্যা মিমি, রোকসানা আক্তার, মায়েদা বেগম মায়া, জান্নাতুল ফেরদৌস, সানজিদা পারভীন চৌধুরী, শেখ সানজিদা, মিলি আক্তার, সুমনা মিম, ফেরদৌসি আশরাফ লুবনা, শিরিনা আক্তার, তানজিলা মনি পরশ, সুস্মিতা বাড়ৈ, রুনা আক্তার সুপ্তি ও পুনম রহমান বৃষ্টি।

যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন ৫ জন। তারা হলেন- শায়না রহমান, ঋতু আক্তার, ফাতিমা খানম বিন্তি, রূপা দত্ত ও মালিহা হায়াত।

সাংগঠনিক সম্পাদক হয়েছেন কামরুন্নাহার জ্যোতি, নূরজাহান খানম সামিয়া, আক্তার বৈশাখী, আর্নিকা তাবাছছুম স্বর্ণা, সুস্মিতা পান্ডে, ফারজানা ইয়াছমিন নিলা ও সুরাইয়া ইসলাম শম্পা। এছাড়াও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সদস্য করা হয়েছে ইফরাত জাহান ইতি, পাপিয়া রয়, তাজুন্নাহার সোমা, সাবিকুন্নাহার তামান্নাকে।

ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণার পর রাতে ইডেন কলেজে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ

 অনলাইন ডেস্ক 
১৪ মে ২০২২, ০৫:২৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঐতিহ্যবাহী ইডেন কলেজে ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণার পর দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। শুক্রবার (১৩ মে) রাত সাড়ে নয়টার দিকে এ সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। পরে পুলিশ ও শিক্ষকদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হলেও ফের শুরু হয় বিক্ষোভ।

জানা যায়, ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণার পরই বাদ পরা নেত্রীদের ওপর চড়াও হন পদ পাওয়া নেত্রীরা। এরপরই শুরু হয় সংঘর্ষ। এ সময় ‘নতুন কমিটির সভাপতি ও সেক্রেটারিকে মানি না’ বলেও স্লোগান দেয় একটি পক্ষ।

ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের নতুন কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক নুরজাহান খানম সামিয়া গণমাধ্যমকে বলেন, অনেকে প্রত্যাশিত পদ না পেয়ে বিক্ষোভ করছে। ভাঙচুর করা হয়েছে আমাদের কক্ষ। 

উল্লেখ্য, শুক্রবার বিকেলে সম্মেলনেরও প্রায় তিন বছর পর বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ইডেন কলেজ শাখার আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের সই করা সেই কমিটিতে সভাপতি হিসেবে তামান্না জেসমিন রিভা ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে রাজিয়া সুলতানা স্থান পান।

কমিটিতে সহ-সভাপতি হয়েছেন ৩০ জন। তারা হলেন- সোনালী আক্তার, শিরিন সুমি, জেবুন্নাহর শিলা, মারজান উর্মি, সাদিয়া জায়ন সাথী, কল্পনা বেগম, উম্মে রুম্মান রুমি, নাহিদা চৌধুরী রাকা, জিনাত জায়ন লিমা, বিজলি আক্তার, তানজিলা আক্তার, সুমা মল্লিক পপি, উদিতা আক্তার, আফরোজা আক্তার রশ্মি, কেয়া আক্তার লুনা, মীম ইসলাম, মনিকা তনচংগ্যা মিমি, রোকসানা আক্তার, মায়েদা বেগম মায়া, জান্নাতুল ফেরদৌস, সানজিদা পারভীন চৌধুরী, শেখ সানজিদা, মিলি আক্তার, সুমনা মিম, ফেরদৌসি আশরাফ লুবনা, শিরিনা আক্তার, তানজিলা মনি পরশ, সুস্মিতা বাড়ৈ, রুনা আক্তার সুপ্তি ও পুনম রহমান বৃষ্টি।

যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন ৫ জন। তারা হলেন- শায়না রহমান, ঋতু আক্তার, ফাতিমা খানম বিন্তি, রূপা দত্ত ও মালিহা হায়াত।

সাংগঠনিক সম্পাদক হয়েছেন কামরুন্নাহার জ্যোতি, নূরজাহান খানম সামিয়া, আক্তার বৈশাখী, আর্নিকা তাবাছছুম স্বর্ণা, সুস্মিতা পান্ডে, ফারজানা ইয়াছমিন নিলা ও সুরাইয়া ইসলাম শম্পা। এছাড়াও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সদস্য করা হয়েছে ইফরাত জাহান ইতি, পাপিয়া রয়, তাজুন্নাহার সোমা, সাবিকুন্নাহার তামান্নাকে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন