অ্যাম্বুলেন্স দিয়ে গাঁজার কারবার, অতঃপর...
jugantor
অ্যাম্বুলেন্স দিয়ে গাঁজার কারবার, অতঃপর...

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৫ জুন ২০২২, ১৯:৫১:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

অ্যাম্বুলেন্স দিয়ে গাঁজার কারবার, অতঃপর...

অভিনব কায়দায় রোগী পরিবহণের পরিবর্তে অ্যাম্বুলেন্সে করে গাঁজা বহনের অপরাধে তিনজনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা মিরপুর বিভাগ।

গ্রেফতাররা হলেন- মো. রাকিব, মো. রনি ও অ্যাম্বুলেন্স চালক রাসেল আহম্মেদ খাঁন। শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ভাটারা থানার কুড়িল বিশ্বরোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে গোয়েন্দা মিরপুর বিভাগের পল­বী জোনাল টিম।

গ্রেফতার অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া গোয়েন্দা মিরপুর বিভাগের পল্ল­বী জোনাল টিমের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) মোস্তফা কামাল জানান, কতিপয় মাদক কারবারি ভাটারা থানার কুড়িল বিশ্বরোডের কুড়াতলী বাজারের জনতা হোটেল অ্যান্ড রেস্তোরাঁর সামনে গাঁজা বিক্রির জন্য একটি অ্যাম্বুলেন্সসহ অবস্থান করছে বলে তথ্য পাওয়া যায়। এমন তথ্যের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়।

‘পুলিশের উপস্থিতি বুঝতে পেরে অ্যাম্বুলেন্সসহ পালানোর চেষ্টাকালে রাকিব, রনি ও রাসেলকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় মাদক বহনে ব্যবহৃত একটি অ্যাম্বুলেন্স (রেজিস্ট্রেশন নাম্বার ঢাকা মেট্রো-ছ ৭১-৪৩৮৩) জব্দ করা হয়। পরবর্তীতে অ্যাম্বুলেন্সেটি তল্লাশি করে তাদের হেফাজত থেকে ৩৭ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়।’

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্য সম্পর্কে এডিসি মোস্তফা কামাল বলেন, গ্রেফতাররা দেশের বিভিন্ন জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে গাঁজা সংগ্রহ করে অ্যাম্বুলেন্সের মাধ্যমে ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকায় পাইকারি ও খুচরা বিক্রয় করত। তাদের বিরুদ্ধে ভাটারা থানায় মামলা করা হয়েছে।

অ্যাম্বুলেন্স দিয়ে গাঁজার কারবার, অতঃপর...

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৫ জুন ২০২২, ০৭:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
অ্যাম্বুলেন্স দিয়ে গাঁজার কারবার, অতঃপর...
ছবি: ডিএমপি নিউজ

অভিনব কায়দায় রোগী পরিবহণের পরিবর্তে অ্যাম্বুলেন্সে করে গাঁজা বহনের অপরাধে তিনজনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা মিরপুর বিভাগ। 

গ্রেফতাররা হলেন- মো. রাকিব, মো. রনি ও অ্যাম্বুলেন্স চালক রাসেল আহম্মেদ খাঁন। শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ভাটারা থানার কুড়িল বিশ্বরোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে গোয়েন্দা মিরপুর বিভাগের পল­বী জোনাল টিম।

গ্রেফতার অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া গোয়েন্দা মিরপুর বিভাগের পল্ল­বী জোনাল টিমের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) মোস্তফা কামাল জানান, কতিপয় মাদক কারবারি ভাটারা থানার কুড়িল বিশ্বরোডের কুড়াতলী বাজারের জনতা হোটেল অ্যান্ড রেস্তোরাঁর সামনে গাঁজা বিক্রির জন্য একটি অ্যাম্বুলেন্সসহ অবস্থান করছে বলে তথ্য পাওয়া যায়। এমন তথ্যের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। 

‘পুলিশের উপস্থিতি বুঝতে পেরে অ্যাম্বুলেন্সসহ পালানোর চেষ্টাকালে রাকিব, রনি ও রাসেলকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় মাদক বহনে ব্যবহৃত একটি অ্যাম্বুলেন্স (রেজিস্ট্রেশন নাম্বার ঢাকা মেট্রো-ছ ৭১-৪৩৮৩) জব্দ করা হয়। পরবর্তীতে অ্যাম্বুলেন্সেটি তল্লাশি করে তাদের হেফাজত থেকে ৩৭ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়।’

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্য সম্পর্কে এডিসি মোস্তফা কামাল বলেন, গ্রেফতাররা দেশের বিভিন্ন জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে গাঁজা সংগ্রহ করে অ্যাম্বুলেন্সের মাধ্যমে ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকায় পাইকারি ও খুচরা বিক্রয় করত। তাদের বিরুদ্ধে ভাটারা থানায় মামলা করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন