বন্ধ ঘরে স্ত্রীর গলাকাটা লাশ, স্বামীর দেহ ঝুলছিল ফ্যানে
jugantor
বন্ধ ঘরে স্ত্রীর গলাকাটা লাশ, স্বামীর দেহ ঝুলছিল ফ্যানে

  ডেমরা (ঢাকা) প্রতিনিধি  

২৮ জুন ২০২২, ২৩:৪২:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজধানীর ডেমরায় স্বামী স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে ডেমরা থানা পুলিশ। মঙ্গলবার বিকালে ডেমরার মধুবাগ ১৯/৫ জাকারিয়ার ফ্ল্যাট বাসার দ্বিতীয় তলা থেকে ওই দম্পতির লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় স্ত্রী সীমা সুলতানার (৪০) গলাকাটা রয়েছে এবং ঘটনাস্থল থেকে ধারালো ছুরি ও বটি উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় স্বামী মো. লিয়াকত আলীকে (৫০) ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়।

নিহত লিয়াকত আলী ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার মৃত আজিম মোল্লার ছেলে। সীমা আক্তারের বাড়ি মাগুরা জেলায়। তাদের লিমন (১৮) নামে এক ছেলে ও লিমা (২৫) এক মেয়ে রয়েছে।

ওই বাড়ীর নিচতলায় লিমা ফার্মেসি নামে লিয়াকত আলী একটি ওষুধের দোকান চালাতেন। ডিএসসিসির ৬৫ নং ওয়ার্ডের মধুবাগ এলাকায় ওই বাড়িতেই গত ২০ বছর ধরে পরিবারসহ তারা ভাড়া থাকতেন লিয়াকত আলী।

লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হবে জানায় পুলিশ। সোমবার দিবাগত গভীর রাতে পারিবারিক কলহের জের ধরে লিয়াকত আলী প্রথমে তার স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা করে পরে নিজে বৈদ্যুতিক পাখার ঝুলে আত্মহত্যা করেন বলে পুলিশের ধারণা।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সোমবার দিবাগত রাতের খাবার খেয়ে ছেলে লিমন নিজের ঘরে পড়াশোনা করে ঘুমিয়ে পড়েন। মঙ্গলবার দুপুরে বাবা মায়ের ঘরের দরজা বন্ধ দেখে লিমন বাসার ভেন্টিলেটর দিয়ে তাকালে পিতার ঝুলন্ত দেহ দেখে বাড়ির মালিক জাকারিয়াকে খবর দেন। পরে বাড়ির মালিকসহ স্থানীয়রা ডেমরা থানায় খবর দিলে ওই দিন বিকালে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে।

ডেমরা থানার ওসি মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আমরা এসে মঙ্গলবার রাত পৌনে ৯টা পর্যন্ত লাশ উদ্ধারসহ সুরতহালের কার্যক্রম চালাচ্ছি। ময়নাতদন্ত রিপোর্টের ভিত্তিতে ওই দম্পতির মৃত্যুর আসল রহস্য বেরিয়ে আসবে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বন্ধ ঘরে স্ত্রীর গলাকাটা লাশ, স্বামীর দেহ ঝুলছিল ফ্যানে

 ডেমরা (ঢাকা) প্রতিনিধি 
২৮ জুন ২০২২, ১১:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজধানীর ডেমরায় স্বামী স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে ডেমরা থানা পুলিশ। মঙ্গলবার বিকালে ডেমরার মধুবাগ ১৯/৫ জাকারিয়ার ফ্ল্যাট বাসার দ্বিতীয় তলা থেকে ওই দম্পতির লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় স্ত্রী সীমা সুলতানার (৪০) গলাকাটা রয়েছে এবং ঘটনাস্থল থেকে ধারালো ছুরি ও বটি উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় স্বামী মো. লিয়াকত আলীকে (৫০) ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়।

নিহত লিয়াকত আলী ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার মৃত আজিম মোল্লার ছেলে। সীমা আক্তারের বাড়ি মাগুরা জেলায়। তাদের লিমন (১৮) নামে এক ছেলে ও লিমা (২৫) এক মেয়ে রয়েছে।

ওই বাড়ীর নিচতলায় লিমা ফার্মেসি নামে লিয়াকত আলী একটি ওষুধের দোকান চালাতেন। ডিএসসিসির ৬৫ নং ওয়ার্ডের মধুবাগ এলাকায় ওই বাড়িতেই গত ২০ বছর ধরে পরিবারসহ তারা ভাড়া থাকতেন লিয়াকত আলী।

লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হবে জানায় পুলিশ। সোমবার দিবাগত গভীর রাতে পারিবারিক কলহের জের ধরে লিয়াকত আলী প্রথমে তার স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা করে পরে নিজে বৈদ্যুতিক পাখার ঝুলে আত্মহত্যা করেন বলে পুলিশের ধারণা।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সোমবার দিবাগত রাতের খাবার খেয়ে ছেলে লিমন নিজের ঘরে পড়াশোনা করে ঘুমিয়ে পড়েন। মঙ্গলবার দুপুরে বাবা মায়ের ঘরের দরজা বন্ধ দেখে লিমন বাসার ভেন্টিলেটর দিয়ে তাকালে পিতার ঝুলন্ত দেহ দেখে বাড়ির মালিক জাকারিয়াকে খবর দেন। পরে বাড়ির মালিকসহ স্থানীয়রা ডেমরা থানায় খবর দিলে ওই দিন বিকালে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। 

ডেমরা থানার  ওসি মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আমরা এসে মঙ্গলবার রাত পৌনে ৯টা পর্যন্ত লাশ উদ্ধারসহ সুরতহালের কার্যক্রম চালাচ্ছি। ময়নাতদন্ত রিপোর্টের ভিত্তিতে ওই দম্পতির মৃত্যুর আসল রহস্য বেরিয়ে আসবে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন