টিকিট পেতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা স্টেশনে
jugantor
টিকিট পেতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা স্টেশনে

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০২ জুলাই ২০২২, ১২:০০:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

টিকিট পেতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা স্টেশনে

ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে দ্বিতীয় দিনের মতো ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। স্টেশনে টিকিট প্রত্যাশীদের দীর্ঘ লাইন রয়েছে। বরাবরের মতো এবারও কাউন্টারের পাশাপাশি অর্ধেক টিকিট মিলবে অনলাইনে।

শনিবার সকাল ৮টা থেকে এ টিকিট বিক্রি শুরু হয়।

এদিন টিকিট পেতে বৃহস্পতিবার বিকাল থেকেই রেলস্টেশনে অবস্থান করছেন অনেকেই। ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকেও টিকিট পাচ্ছেন না। এছাড়া টিকিট প্রত্যাশীদের একটি অংশ রয়েছেন যারা প্রথম দিন লাইনে দাঁড়িয়েও টিকিট পাননি।

কাউন্টারের সামনে গিয়ে দেখা যায়, কয়েকজন বসে আছেন। তাদের মধ্য থেকে মোহাম্মদ শাহ আলম নামে এক টিকিট প্রত্যাশী বলেন, আমি দ্রুতযান এক্সপ্রেসে রাজশাহী যাব। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় আমি এখানে এসেছি। আজ যখন টিকিট শেষ হয়ে গেছে, তখনও লাইনে ২০-২৫ জন ছিলেন। যখন রাতে এসে সিরিয়ালে ছিলাম তখন প্রায় ১৫০ জন আমার সামনে ছিলেন। ৫ তারিখের টিকিট তো পাইনি, এখন ৬ তারিখের টিকিটের জন্য বসছি। বাকিটা কি হবে জানি না।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, এ দিন পুরুষদের পাশাপাশি নারীরাও অপেক্ষায় আছেন স্টেশনে। ঈদের আগে সড়কপথে অনেক বেশি যানজট থাকবে এমন আশঙ্কায় তারা ট্রেনের টিকিট পেতে আগ্রহী। যাত্রাপথের ভোগান্তি এড়াতে এজন্য আগেই ট্রেনের টিকিট সংগ্রহ করতে এসেছেন তারা।

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানায়, শনিবার দেওয়া হবে ৬ জুলাইয়ের টিকিট। ৭ জুলাইয়ের টিকিট ৩ জুলাই, ৮ জুলাইয়ের টিকিট ৪ জুলাই এবং ৯ জুলাইয়ের টিকিট ৫ জুলাই বিক্রি হবে।

এ ছাড়া ১১ জুলাইয়ের ট্রেনের ফিরতি টিকিট ৭ জুলাই, ১২ জুলাইয়ের টিকিট ৮ জুলাই, ১৩ জুলাইয়ের টিকিট ৯ জুলাই এবং ১৪ ও ১৫ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি করা হবে ১১ জুলাই। অনলাইন টিকিটের অর্ধেক ওয়েবসাইটে এবং অর্ধেক অ্যাপে বিক্রি করা হবে।

টিকিট পেতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা স্টেশনে

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০২ জুলাই ২০২২, ১২:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
টিকিট পেতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা স্টেশনে
ছবি: সংগৃহীত

ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে দ্বিতীয় দিনের মতো ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। স্টেশনে টিকিট প্রত্যাশীদের দীর্ঘ লাইন রয়েছে। বরাবরের মতো এবারও কাউন্টারের পাশাপাশি অর্ধেক টিকিট মিলবে অনলাইনে। 

শনিবার সকাল ৮টা থেকে এ টিকিট বিক্রি শুরু হয়।

এদিন টিকিট পেতে বৃহস্পতিবার বিকাল থেকেই রেলস্টেশনে অবস্থান করছেন অনেকেই। ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকেও টিকিট পাচ্ছেন না। এছাড়া টিকিট প্রত্যাশীদের একটি অংশ রয়েছেন যারা প্রথম দিন লাইনে দাঁড়িয়েও টিকিট পাননি।

কাউন্টারের সামনে গিয়ে দেখা যায়, কয়েকজন বসে আছেন। তাদের মধ্য থেকে মোহাম্মদ শাহ আলম নামে এক টিকিট প্রত্যাশী বলেন, আমি দ্রুতযান এক্সপ্রেসে রাজশাহী যাব। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় আমি এখানে এসেছি। আজ যখন টিকিট শেষ হয়ে গেছে, তখনও লাইনে ২০-২৫ জন ছিলেন। যখন রাতে এসে সিরিয়ালে ছিলাম তখন প্রায় ১৫০ জন আমার সামনে ছিলেন। ৫ তারিখের টিকিট তো পাইনি, এখন ৬ তারিখের টিকিটের জন্য বসছি। বাকিটা কি হবে জানি না।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, এ দিন পুরুষদের পাশাপাশি নারীরাও অপেক্ষায় আছেন স্টেশনে। ঈদের আগে সড়কপথে অনেক বেশি যানজট থাকবে এমন আশঙ্কায় তারা ট্রেনের টিকিট পেতে আগ্রহী। যাত্রাপথের ভোগান্তি এড়াতে এজন্য আগেই ট্রেনের টিকিট সংগ্রহ করতে এসেছেন তারা।

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানায়, শনিবার দেওয়া হবে ৬ জুলাইয়ের টিকিট। ৭ জুলাইয়ের টিকিট ৩ জুলাই, ৮ জুলাইয়ের টিকিট ৪ জুলাই এবং ৯ জুলাইয়ের টিকিট ৫ জুলাই বিক্রি হবে।

এ ছাড়া ১১ জুলাইয়ের ট্রেনের ফিরতি টিকিট ৭ জুলাই, ১২ জুলাইয়ের টিকিট ৮ জুলাই, ১৩ জুলাইয়ের টিকিট ৯ জুলাই এবং ১৪ ও ১৫ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি করা হবে ১১ জুলাই। অনলাইন টিকিটের অর্ধেক ওয়েবসাইটে এবং অর্ধেক অ্যাপে বিক্রি করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন