মোখলেছুর-আল আমিনের ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ
jugantor
মোখলেছুর-আল আমিনের ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৯ আগস্ট ২০২২, ২১:৫৮:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

মোখলেছুর-আল আমিনের ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ

জ্বালানি তেল ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম কমানোর দাবিতে ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ জানিয়েছেন দুই যুবক। মোখলেছুর রহমান নামে এক যুবক জ্বালানি তেলের বর্ধিত মূল্য বাতিল ও দ্রব্যমূল্য কমানোর দাবি সংবলিত বিভিন্ন স্লোগান নিজের গায়ে লিখে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। অন্যদিকে তেলের দাম কমানোর দাবিতে গত চার দিন ধরে একাই জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অনশন করছেন আরেক যুবক আল আমিন আটিয়া।

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মোখলেছুর রহমানকে প্রতিবাদ করতে দেখা যায়। মোখলেছুরের শরীরের সামনের দিকে স্লোগানে লেখা ছিল- ‘জ্বালানি তেলের বর্ধিত মূল্য বাতিল করো’। বাঁ হাতে লিখেছেন, ‘দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি থামাও’ আর তার ডান হাতে লেখা, ‘নিত্যপণ্যের দাম কমাও’। মাথায় ছিল জাতীয় পতাকা বাঁধা। গালেও আঁকা জাতীয় পতাকা। এক হাতে লাঠির সঙ্গে বাঁধা জাতীয় পাতাকা আর অন্য হাতে হ্যান্ডমাইক।

মোখলেছুর রহমানের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তার গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব থানার জামালপুরে। এখন পরিবার নিয়ে রাজধানীর লালমাটিয়ায় থাকেন। রাজধানীর তেজগাঁও কলেজ থেকে হিসাববিজ্ঞান বিভাগে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছেন। তিনি বলেন, জ্বালানি তেল ও নিত্যপণ্যের দাম বাড়ায় মানুষকে অসহনীয় সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। তাই ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ হিসেবে এবং যেন দাম কমানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়, সেই লক্ষ্যে নিজের শরীরে লিখেছি।

এদিকে তেলের দাম কমানোর দাবিতে গত চার দিন ধরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অনশন করছেন আরেক যুবক। তিনি মিরপুর বাঙলা কলেজের ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী আল আমিন আটিয়া। ১৬ আগস্ট বেলা ১১টা থেকে অনশন করছেন। শুক্রবার বেলা ১২টার দিকে সরেজমিনে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সড়কের ফুটপাতে তাকে শুয়ে থাকতে দেখা গেছে। টানা চার দিন কিছু না খাওয়ায় তার শারীরিক অবস্থা ক্রমান্বয়ে খারাপ হয়ে যাচ্ছে। এমনকি শোয়া থেকে উঠে দাঁড়াতেও তার কষ্ট হচ্ছে।

আল আমিন বলেন, জ্বালানি তেলের দাম লিটারপ্রতি ৮০ টাকার নিচে না আসা পর্যন্ত বা আমার মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত এই কর্মসূচি চলতে থাকবে।

মোখলেছুর-আল আমিনের ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৯ আগস্ট ২০২২, ০৯:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মোখলেছুর-আল আমিনের ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ
প্রেস ক্লাবের সামনে মোখলেছুর রহমানকে প্রতিবাদ। ছবি: যুগান্তর

জ্বালানি তেল ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম কমানোর দাবিতে ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ জানিয়েছেন দুই যুবক। মোখলেছুর রহমান নামে এক যুবক জ্বালানি তেলের বর্ধিত মূল্য বাতিল ও দ্রব্যমূল্য কমানোর দাবি সংবলিত বিভিন্ন স্লোগান নিজের গায়ে লিখে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। অন্যদিকে তেলের দাম কমানোর দাবিতে গত চার দিন ধরে একাই জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অনশন করছেন আরেক যুবক আল আমিন আটিয়া।

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মোখলেছুর রহমানকে প্রতিবাদ করতে দেখা যায়। মোখলেছুরের শরীরের সামনের দিকে স্লোগানে লেখা ছিল- ‘জ্বালানি তেলের বর্ধিত মূল্য বাতিল করো’। বাঁ হাতে লিখেছেন, ‘দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি থামাও’ আর তার ডান হাতে লেখা, ‘নিত্যপণ্যের দাম কমাও’। মাথায় ছিল জাতীয় পতাকা বাঁধা। গালেও আঁকা জাতীয় পতাকা। এক হাতে লাঠির সঙ্গে বাঁধা জাতীয় পাতাকা আর অন্য হাতে হ্যান্ডমাইক।

মোখলেছুর রহমানের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তার গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব থানার জামালপুরে। এখন পরিবার নিয়ে রাজধানীর লালমাটিয়ায় থাকেন। রাজধানীর তেজগাঁও কলেজ থেকে হিসাববিজ্ঞান বিভাগে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছেন। তিনি বলেন, জ্বালানি তেল ও নিত্যপণ্যের দাম বাড়ায় মানুষকে অসহনীয় সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। তাই ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ হিসেবে এবং যেন দাম কমানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়, সেই লক্ষ্যে নিজের শরীরে লিখেছি।

এদিকে তেলের দাম কমানোর দাবিতে গত চার দিন ধরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অনশন করছেন আরেক যুবক। তিনি মিরপুর বাঙলা কলেজের ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী আল আমিন আটিয়া। ১৬ আগস্ট বেলা ১১টা থেকে অনশন করছেন। শুক্রবার বেলা ১২টার দিকে সরেজমিনে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সড়কের ফুটপাতে তাকে শুয়ে থাকতে দেখা গেছে। টানা চার দিন কিছু না খাওয়ায় তার শারীরিক অবস্থা ক্রমান্বয়ে খারাপ হয়ে যাচ্ছে। এমনকি শোয়া থেকে উঠে দাঁড়াতেও তার কষ্ট হচ্ছে। 

আল আমিন বলেন, জ্বালানি তেলের দাম লিটারপ্রতি ৮০ টাকার নিচে না আসা পর্যন্ত বা আমার মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত এই কর্মসূচি চলতে থাকবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন