১০ ডিসেম্বর বাস বন্ধ রাখবেন না মালিকরা, তবে... 
jugantor
১০ ডিসেম্বর বাস বন্ধ রাখবেন না মালিকরা, তবে... 

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮:৫৭:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

আগামী ১০ ডিসেম্বর বিএনপির গণসমাবেশ ঘিরে বাস বন্ধ রাখবেন না পরিবহণ মালিক-শ্রমিকরা। সমাবেশের দিন তারা গাড়ি চালাবেন। তবে গাড়ি পাহারা দেওয়ার নামে ঢাকার প্রবেশমুখের টার্মিনালগুলোতে অবস্থান নেবেন তারা।

এছাড়া মিরপুর, কল্যাণপুর, গুলিস্তান, উত্তরা, তেজগাঁও টার্মিনালসহ গাড়ি অবস্থান করে এমন স্থানগুলোতেও পাহারা বসানো হবে। গাড়িতে হামলা হলে তাৎক্ষণিক তা প্রতিরোধে যা যা করার তা সবই করা হবে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউতে ঢাকা সড়ক পরিবহণ মালিক সমিতির কার্যালয়ে এক সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিএনপির গণসমাবেশ সামনে রেখে ঢাকার পরিবহণ মালিক ও শ্রমিক নেতাদের নিয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা সড়ক পরিবহণ মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ।

সভা শেষে তিনি যুগান্তরকে বলেন, আমাদের সব গাড়ি সচল রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সমাবেশ কেন্দ্র করে আমরা গাড়ি বন্ধ করব না। সব মালিকদের নিজ নিজ গাড়ি সাবধানে রাখতে বলা হয়েছে।

ওই সভায় অংশ নেওয়া বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী বলেন, সভায় আমরা সবাই গাড়ি সচল রাখার বিষয়ে একমত হয়েছি। একইসঙ্গে যার যার সম্পদ তাকেই পাহারা দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

এদিকে সভা শেষে ঢাকা সড়ক পরিবহণ মালিক সমিতি গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, পরিবহণ নেতারা ১০ ডিসেম্বর গাড়ি চলাচলের বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন। সেদিন ঢাকা শহর, শহরতলী ও আন্তঃজেলা রুটে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক থাকবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এছাড়া গাড়ি চলাচলে যাতে কোনো প্রকার বাধাগ্রস্থ না হয় সেজন্য শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে নিরাপত্তা জোরদার করতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়।

১০ ডিসেম্বর বাস বন্ধ রাখবেন না মালিকরা, তবে... 

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:৫৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আগামী ১০ ডিসেম্বর বিএনপির গণসমাবেশ ঘিরে বাস বন্ধ রাখবেন না পরিবহণ মালিক-শ্রমিকরা। সমাবেশের দিন তারা গাড়ি চালাবেন। তবে গাড়ি পাহারা দেওয়ার নামে ঢাকার প্রবেশমুখের টার্মিনালগুলোতে অবস্থান নেবেন তারা।

এছাড়া মিরপুর, কল্যাণপুর, গুলিস্তান, উত্তরা, তেজগাঁও টার্মিনালসহ গাড়ি অবস্থান করে এমন স্থানগুলোতেও পাহারা বসানো হবে। গাড়িতে হামলা হলে তাৎক্ষণিক তা প্রতিরোধে যা যা করার তা সবই করা হবে। 

বৃহস্পতিবার রাজধানীর কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউতে ঢাকা সড়ক পরিবহণ মালিক সমিতির কার্যালয়ে এক সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। 

বিএনপির গণসমাবেশ সামনে রেখে ঢাকার পরিবহণ মালিক ও শ্রমিক নেতাদের নিয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা সড়ক পরিবহণ মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ। 

সভা শেষে তিনি যুগান্তরকে বলেন, আমাদের সব গাড়ি সচল রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সমাবেশ কেন্দ্র করে আমরা গাড়ি বন্ধ করব না। সব মালিকদের নিজ নিজ গাড়ি সাবধানে রাখতে বলা হয়েছে। 

ওই সভায় অংশ নেওয়া বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী বলেন, সভায় আমরা সবাই গাড়ি সচল রাখার বিষয়ে একমত হয়েছি। একইসঙ্গে যার যার সম্পদ তাকেই পাহারা দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। 

এদিকে সভা শেষে ঢাকা সড়ক পরিবহণ মালিক সমিতি গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, পরিবহণ নেতারা ১০ ডিসেম্বর গাড়ি চলাচলের বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন। সেদিন ঢাকা শহর, শহরতলী ও আন্তঃজেলা রুটে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক থাকবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 

এছাড়া গাড়ি চলাচলে যাতে কোনো প্রকার বাধাগ্রস্থ না হয় সেজন্য শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে নিরাপত্তা জোরদার করতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন