‘৯ টাকায় এক জিবি চাই না, নিরাপদ সড়ক চাই’

প্রকাশ : ০১ আগস্ট ২০১৮, ১৮:০১ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক

ছবি: যুগান্তর

বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থীর নিহতের ঘটনায় চতুর্থ দিনের মতো রাজধানীজুড়ে বিক্ষোভ করছেন বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা।

বুধবার চতুর্থ দিন বিভিন্ন সড়কে শিক্ষার্থীদের অবরোধ ও বিক্ষোভের কারণ কার্যত ঢাকা শহর অচল হয়ে পড়ে। এদিকে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ভয়ে রাস্তায় বাস ছাড়েনি মালিকরা।

শিক্ষার্থীরা নিরাপদ সড়ক, ঘাতক বাস চালকদের বিচার করাসহ ৯ দফা দাবি উত্থাপন করেছে। এ সময় রাজপথে নানান প্ল্যাকার্ডে দেখতে পাওয়া যায় শিক্ষার্থীদের হাতে। 

বুধবার কাকরাইল এলাকায় কিছু প্ল্যাকার্ডে মানুষের চোখ আটকে যায়। এক শিক্ষার্থী প্ল্যাকার্ডে লিখেছে, ‘৯ টাকায় ১ জিবি চাইনা, নিরাপদ সড়ক চাই।’ 

প্ল্যাকার্ডে আরও দেখা যায়, ‘স্বার্থক জন্ম মাগো জন্মেছি এই দেশে, যেই দেশে মানুষ মরলে মন্ত্রী হাসেব হাঁসে। আমার ভাইয়ের রক্ত, বৃথা যেতে দেব না।’

‘পুলিশ আংকেল আপনার চা-সিগারেটের টাকা আমি আমার টিফিনের টাকা দিয়ে দিচ্ছি, তাও আপনি এভাবে গাড়ি চালাতে দিয়েন না।’

বৈচিত্র্যময় প্লেকার্ড নিয়ে শিক্ষার্থীরা

প্রসঙ্গত, যে ৯ দফা দাবিতে বিক্ষোভ করছে শিক্ষার্থীরা সেগুলো হচ্ছে–

১. বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানো ড্রাইভারকে ফাঁসি দিতে হবে এবং এই বিধান সংবিধানে সংযোজন করতে হবে।

২. নৌপরিবহন মন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাহার করে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে।

৩. ফিটনেসবিহীন গাড়ি রাস্তায় চলাচল বন্ধ ও লাইসেন্স ছাড়া চালকরা গাড়ি চালাতে পারবেন না।

৪. বাসে অতিরিক্ত যাত্রী নেয়া যাবে না।

৫. শিক্ষার্থীদের চলাচলে এমইএস ফুটওভারব্রিজ বা বিকল্প নিরাপদ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

৬. প্রত্যেক সড়কে দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকায় স্পিডব্রেকার দিতে হবে।

৭. সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ছাত্রছাত্রীদের দায়ভার সরকারকে নিতে হবে।

৮. শিক্ষার্থীরা বাস থামানোর সিগন্যাল দিলে থামিয়ে তাদের নিতে হবে।

৯. শুধু ঢাকা নয়, সারাদেশের শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ ভাড়ার ব্যবস্থা করতে হবে।