ফতুল্লায় যুগান্তর প্রতিনিধিসহ তিন সাংবাদিকের পূর্ণ জামিন

প্রকাশ : ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২৩:৩৩ | অনলাইন সংস্করণ

  ফতুল্লা প্রতিনিধি

সাংবাদিক হাবিবুর রহমান বাদল, জাবেদ আহমেদ জুয়েল ও আলামিন প্রধান (বাম থেকে)

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় আলোচিত সমালোচিত শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহমেদ পলাশের দায়ের করা তিনটি পৃথক মামলায় যুগান্তরের প্রতিনিধি আলামিন প্রধানসহ তিনজন সাংবাদিক পূর্ণ জামিন পেয়েছেন।

মঙ্গলবার সকালে নারায়ণগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল মোহসীনের আদালতে হাবিবুর রহমান বাদল, জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসানের আদালতে আলামিন প্রধান ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আহমেদ হুমায়ূন কবিরের আদালতে জাবেদ আহমেদ জুয়েলের জামিন শুনানী অনুষ্ঠিত হয়।

তিনটি আদালতেই কাউসার আহমেদ পলাশ উপস্থিত ছিলেন। পরবর্তী তারিখে মামলার চার্জ গঠনের দিন ধার্য করা হয়েছে।

সাংবাদিকদের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি হাসান ফেরদৌস জুয়েল, সাবেক সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান, সিনিয়র আইনজীবী শাহ্ মাজহারুল হক, রাকিবুল ইসলাম শিমুল ও সরকার হুমায়ূন কবির প্রমুখ।

সাংবাদিকদের মধ্যে ইত্তেফাকের নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি ও স্থানীয় পত্রিকা দৈনিক ডান্ডিবার্তার সম্পাদক হাবিবুর রহমান বাদল, দৈনিক যুগান্তরের ফতুল্লা প্রতিনিধি আলামিন প্রধান, স্থানীয় পত্রিকা সময়ের নারায়ণগঞ্জের সম্পাদক জাবেদ আহমেদ জুয়েল। 

উল্লেখ্য, গত ৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জে আরেক 'নূর হোসেন ফতুল্লার গডফাদার পলাশ ও তার চার খলিফা' শিরোনামে দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়।

ওই সংবাদ প্রকাশের পর সাংবাদিকদের নামে মামলা করা হয়। মামলার পরে পলাশ তার বাহিনীর মাধ্যমে ফতুল্লায় মাদক ব্যবসায়ীদের দিয়ে মিছিল করিয়ে সাংবাদিক আলামিন প্রধানের চামড়া তুলে নেয়ার হুমকি দেয়।

এঘটনায় আলামিন প্রধান একটি জিডিও করেন।

এছাড়া আরো একটি সংবাদের রেশ ধরে ডান্ডিবার্তা ও সময়ের নারায়ণগঞ্জের বিরুদ্ধে মামলা হয়।  

এরপর গত ৫  মে 'এক পলাশেই সর্বনাশ' শিরোনামে ও  নারায়ণগঞ্জে শ্রমিকলীগের নাম তাণ্ডব, চাঁদার জন্য ৩৬ শিল্প-কারখানা বন্ধ, এলাকা ছাড়ছেন ব্যবসায়ীরা' শিরোনামে বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়। কিন্তু ওই সংবাদের পরে তিনি আর কোন মামলা করেনি।