জাতিসংঘের সবুজ জলবায়ু তহবিল থেকে আরেকটি প্রকল্প পেল বাংলাদেশ
jugantor
জাতিসংঘের সবুজ জলবায়ু তহবিল থেকে আরেকটি প্রকল্প পেল বাংলাদেশ

  সংবাদ বিজ্ঞপ্তি  

০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮:০৩:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতিসংঘের সবুজ জলবায়ু তহবিল (জিসিএফ) থেকে আরেকটি প্রকল্প পেয়েছে বাংলাদেশ।

গত ১০ নভেম্বর সরকারি মালিকানাধীন আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইডকলকে একটি প্রকল্পের জন্য ওই অনুমোদন দিয়েছে জিসিএফ বোর্ড। বেসরকারি খাতে জ্বালানী সাশ্রয়ী প্রযুক্তি ও যন্ত্রের ব্যবহার বাড়াতে এই প্রকল্পটি কাজ করবে।

এটি জিসিএফ এর ইতিহাসে কোন ন্যশনাল ডিরেক্ট এক্সেস এন্টিটিকে (ডিএই) দেওয়া সবচেয়ে বড় প্রকল্প।

ইডকল কর্মীদের সাফল্যের জন্য অভিনন্দন জানিয়ে ইডকল পরচিালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান এবং অর্থনৈতিক সর্ম্পক বিভাগের (ইআরডি) সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন মনে করেন, ইডকল বাংলাদশের জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে বানিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য একটি আর্দশ উদাহরন তৈরি করবে।

তিনি DAE, Multilateral Implementing Entities (MIEs) এবং সম্পর্কিত মন্ত্রণালয় এবং বিভাগগুলোকে সিএফের দেয়া সুযোগগুলো অনুসন্ধান করার জন্য অনুরোধ করেছেন।

এই প্রকল্পের জন্য জিসিএফ থেকে ২৫০ মিলিয়ন বা ২৫ কোটি ডলার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ২০ বছরের জন্য দেওয়া এই ঋনের অর্থ পরিশোধের ক্ষেত্রে আরও ৫ বছরের অতিরিক্ত সময়ও দেওয়া হবে।

এর সঙ্গে ইডকলকে কারিগরি সহায়তা হিসেবে আরও ৬৫ লাখ ডলার দেওয়া হবে। এই অর্থ দিয়ে এ বিষয়ে সচেতনতা তৈরি, সক্ষমতা বাড়ানো, তদারকি করাসহ উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করা হবে।

জিসিএফ এর বোর্ড সভা বি-২৭ এ ‘টেক্সটাইল ও তৈরি পোষাক খাতে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী প্রযুক্তি ও যন্ত্র গ্রহনেও এ খাতে বিনিয়োগ বাড়াতে বেসরকারি খাতকে উৎসাহ দেওয়া শীর্ষক ওই প্রকল্পের এই অনুমোদন দেওয়া হয়।


জাতিসংঘের সবুজ জলবায়ু তহবিল থেকে আরেকটি প্রকল্প পেল বাংলাদেশ

 সংবাদ বিজ্ঞপ্তি 
০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০৬:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতিসংঘের সবুজ জলবায়ু তহবিল (জিসিএফ) থেকে আরেকটি প্রকল্প পেয়েছে বাংলাদেশ। 

গত ১০ নভেম্বর সরকারি মালিকানাধীন আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইডকলকে একটি প্রকল্পের জন্য ওই অনুমোদন দিয়েছে জিসিএফ বোর্ড। বেসরকারি খাতে জ্বালানী সাশ্রয়ী প্রযুক্তি ও যন্ত্রের ব্যবহার বাড়াতে এই প্রকল্পটি কাজ করবে। 

এটি জিসিএফ এর ইতিহাসে কোন ন্যশনাল ডিরেক্ট এক্সেস এন্টিটিকে (ডিএই) দেওয়া সবচেয়ে বড় প্রকল্প।

ইডকল কর্মীদের সাফল্যের জন্য অভিনন্দন জানিয়ে ইডকল পরচিালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান এবং অর্থনৈতিক সর্ম্পক বিভাগের (ইআরডি) সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন মনে করেন, ইডকল বাংলাদশের জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে বানিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য একটি আর্দশ উদাহরন তৈরি করবে।

তিনি DAE, Multilateral Implementing Entities (MIEs) এবং সম্পর্কিত মন্ত্রণালয় এবং বিভাগগুলোকে সিএফের দেয়া সুযোগগুলো অনুসন্ধান করার জন্য অনুরোধ করেছেন। 

এই প্রকল্পের জন্য জিসিএফ থেকে ২৫০ মিলিয়ন বা ২৫ কোটি ডলার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ২০ বছরের জন্য দেওয়া এই ঋনের অর্থ পরিশোধের ক্ষেত্রে আরও ৫ বছরের অতিরিক্ত সময়ও দেওয়া হবে। 

এর সঙ্গে ইডকলকে কারিগরি সহায়তা হিসেবে আরও ৬৫ লাখ ডলার দেওয়া হবে। এই অর্থ দিয়ে এ বিষয়ে সচেতনতা তৈরি, সক্ষমতা বাড়ানো, তদারকি করাসহ উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করা হবে।

জিসিএফ এর বোর্ড সভা বি-২৭ এ ‘টেক্সটাইল ও তৈরি পোষাক খাতে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী প্রযুক্তি ও যন্ত্র গ্রহনেও এ খাতে বিনিয়োগ বাড়াতে বেসরকারি খাতকে উৎসাহ দেওয়া শীর্ষক ওই প্রকল্পের এই অনুমোদন দেওয়া হয়।


 

 
আরও খবর