এসিসিএ বাংলাদেশ ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত
jugantor
এসিসিএ বাংলাদেশ ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত

  সংবাদ বিজ্ঞপ্তি  

০৯ মে ২০২১, ২১:৫৭:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

দ্য অ্যাসোসিয়েশন অব চার্টার্ড সার্টিফায়েড অ্যাকাউন্ট্যান্টস (এসিসিএ) বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের (বিটিইবি) মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে।

গত ৩ পারস্পরিক সহযোগিতা এবং একসাথে কাজ করার সম্ভাবনা নিয়ে ভার্চুয়ালি এই সমঝোতা স্মারক অনুষ্ঠানটি হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী এবং টেকনিক্যাল ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব আমিনুল ইসলাম খান। আরও উপস্থিত ছিলেন কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক হেলাল উদ্দিন, কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মোরাদ হোসেন মোল্লা, এসিসিএ মধ্যপ্রাচ্য ও দক্ষিণ এশিয়ার রিজিওনাল ডিরেক্টর স্টুয়ার্ট ডানলপ, এসিসিএ দক্ষিণ এশিয়া প্রধান নিলুশা রানাসিংহে, এসিসিএ মার্কেট পার্টনারশিপ প্রধান জারিফ লুদিন এবং বাংলাদেশ সরকারের অন্যান্য উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা।

এসিসিএ বাংলাদেশের এডুকেশন ম্যানেজার প্রমা তাপসী খান দুটি প্রতিষ্ঠানের একসাথে কাজ করার সুযোগ এবং সম্ভাবনা নিয়ে একটি প্রেজেন্টেশন প্রদান করেন। ভার্চুয়াল এই অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের ড. ইন্দ্রানী ধর। এখন থেকে এসিসিএ বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল প্রফেশনাল ডেভেলপমেন্ট পার্টনার হিসেবে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক বিভিন্ন পদক্ষেপে অংশগ্রহণ করার পাশাপাশি অ্যাকাউন্টিং সেক্টরের ক্ষেত্র তৈরি এবং মানোন্নয়নে এনটিভিকিউএফের সাথে সমন্বয় করে কাজ করবে। সমঝোতা অনুযায়ী এসিসিএর সিলেবাস অনুযায়ী কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের এইচএসসি (বিএম) অ্যাকাউন্টিং সিলেবাসের আধুনিকীকরণে এসিসিএ সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে। এসিসিএর প্রাথমিক পেপারগুলো এইচএসসি (বিএম) সিলেবাসে যুক্ত হবে যা পরবর্তীতে শিক্ষার্থীদের এসিসিএ বা সিএটি করে দক্ষ পেশাদার অ্যাকাউন্ট্যান্ট তৈরিতে বড় ভূমিকা রাখবে। এছাড়া অ্যাকাউন্টিং এবং ফাইন্যান্স সেক্টরে সক্ষমতা বৃদ্ধি, নতুন জ্ঞান বিন্যাস এবং আন্তর্জাতিক রিসোর্স সরবরাহসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে এসিসিএ সহযোগিতার করবে। এসিসিএ বাংলাদেশ থেকে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার (লার্নিং) শাহ্ ওয়ালিউল মনজুর, সিনিয়র বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার (ইএমএ) শাফায়াত আলী চয়ন, মার্কেটিং ম্যানেজার আব্দুল্লাহ আল হাসান এবং বিজনেস সার্ভিস ও কমপ্লায়েন্স ম্যানেজার জিএম রাশেদ।

এসিসিএ বাংলাদেশ ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত

 সংবাদ বিজ্ঞপ্তি 
০৯ মে ২০২১, ০৯:৫৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দ্য অ্যাসোসিয়েশন অব চার্টার্ড সার্টিফায়েড অ্যাকাউন্ট্যান্টস (এসিসিএ) বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের (বিটিইবি) মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে।

গত ৩ পারস্পরিক সহযোগিতা এবং একসাথে কাজ করার সম্ভাবনা নিয়ে ভার্চুয়ালি এই সমঝোতা স্মারক অনুষ্ঠানটি হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী এবং টেকনিক্যাল ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব আমিনুল ইসলাম খান। আরও উপস্থিত ছিলেন কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক হেলাল উদ্দিন, কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মোরাদ হোসেন মোল্লা, এসিসিএ মধ্যপ্রাচ্য ও দক্ষিণ এশিয়ার রিজিওনাল ডিরেক্টর স্টুয়ার্ট ডানলপ, এসিসিএ দক্ষিণ এশিয়া প্রধান নিলুশা রানাসিংহে, এসিসিএ মার্কেট পার্টনারশিপ প্রধান জারিফ লুদিন এবং বাংলাদেশ সরকারের অন্যান্য উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা।

এসিসিএ বাংলাদেশের এডুকেশন ম্যানেজার প্রমা তাপসী খান দুটি প্রতিষ্ঠানের একসাথে কাজ করার সুযোগ এবং সম্ভাবনা নিয়ে একটি প্রেজেন্টেশন প্রদান করেন। ভার্চুয়াল এই অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের ড. ইন্দ্রানী ধর। এখন থেকে এসিসিএ বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল প্রফেশনাল ডেভেলপমেন্ট পার্টনার হিসেবে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক বিভিন্ন পদক্ষেপে অংশগ্রহণ করার পাশাপাশি অ্যাকাউন্টিং সেক্টরের ক্ষেত্র তৈরি এবং মানোন্নয়নে এনটিভিকিউএফের সাথে সমন্বয় করে কাজ করবে। সমঝোতা অনুযায়ী এসিসিএর সিলেবাস অনুযায়ী কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের এইচএসসি (বিএম) অ্যাকাউন্টিং সিলেবাসের আধুনিকীকরণে এসিসিএ সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে। এসিসিএর প্রাথমিক পেপারগুলো এইচএসসি (বিএম) সিলেবাসে যুক্ত হবে যা পরবর্তীতে শিক্ষার্থীদের এসিসিএ বা সিএটি করে দক্ষ পেশাদার অ্যাকাউন্ট্যান্ট তৈরিতে বড় ভূমিকা রাখবে। এছাড়া অ্যাকাউন্টিং এবং ফাইন্যান্স সেক্টরে সক্ষমতা বৃদ্ধি, নতুন জ্ঞান বিন্যাস এবং আন্তর্জাতিক রিসোর্স সরবরাহসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে এসিসিএ সহযোগিতার করবে। এসিসিএ বাংলাদেশ থেকে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার (লার্নিং) শাহ্ ওয়ালিউল মনজুর, সিনিয়র বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার (ইএমএ) শাফায়াত আলী চয়ন, মার্কেটিং ম্যানেজার আব্দুল্লাহ আল হাসান এবং বিজনেস সার্ভিস ও কমপ্লায়েন্স ম্যানেজার জিএম রাশেদ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর