নতুন স্টাইলে হোন্ডা এক্সব্লেড ডাবল ডিস্ক এবিএস এখন বাংলাদেশে
jugantor
নতুন স্টাইলে হোন্ডা এক্সব্লেড ডাবল ডিস্ক এবিএস এখন বাংলাদেশে

  সংবাদ বিজ্ঞপ্তি  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৫২:৫৬  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ হোন্ডা প্রাইভেট লিমেটেড আজ দেশের বাজারে তাদের জনপ্রিয় মডেল এক্সব্লেডের ডাবল ডিস্ক এবং সিঙ্গেল ডিস্কে এবিএস ভার্সন উন্মুক্ত করল। বাইক লাভারদের আকাঙ্খা এবং আধুনিক সব চাহিদা মেটাতে ১৬০ সিসি ক্লাসের নতুন এই হোন্ডা এক্সব্লেড সাশ্রয়ী দামের স্ট্রিট অলরাউন্ডার একটি বাইক।

অত্যাধুনিক ফিচারের কমপ্লিট একটি প্যাকেজ এই বাইকটি প্রতিদিনের যাত্রাপথে সবসময় একটি ব্যালেন্সড পারফর্মেন্স ধরে রাখতে পারে বলেই একে ‘অলরাউন্ডার’ নামকরণ করা হয়েছে।

অত্যাধুনিক স্টাইল, দারুণ পাওয়ার ও মাইলেজ, উন্নতমানের কমফোর্ট ফিচারস এর সাথে এর সাশ্রয়ী প্রাইসের বিবেচনায় এক্সব্লেড বাইকটি হল একটি কমপ্লিট প্যাকেজ।

নজরকাড়া অত্যাধুনিক ডিজাইন: এক্সব্লেডকে ডিজাইন করা হয়েছে রোবো ফেসড হেডল্যাম্প, শার্প স্কাল্পটেড ফুয়েল ট্যাঙ্ক, স্টার্ডি হাগার ফেন্ডার, স্পোর্টি আন্ডার কাউল, আকর্ষণীয় ফ্রন্ট ফর্ক কভার, এবং ডুয়েল আউটলেট মাফলার এর মত নজরকারা অত্যাধুনিক ডিজাইন দিয়ে।

নতুন অত্যাধুনিক সেফটি: এক্সব্লেডে দেয়া হয়েছে ডাবল ডিস্ক ব্রেক। যার সামনে রয়েছে সিঙ্গেল চ্যানেল অ্যান্টি-লক ব্রেকিং সিস্টেম। বাইকটিকে আরো নিরাপদ করতে সামনের চাকায় ২৭৬ মিলিমিটার এবং পেছনের চাকায় ২২০ মিলিমিটার পেডাল ডিস্ক সংযোজন করা হয়েছে। যা সহজেই তাপ ছড়িয়ে দিয়ে যেকোনো পরিস্থিতিতে সেরা ব্রেকিং অভিজ্ঞতা দিতে পারে।

এছাড়াও এর অ্যান্টি লক ব্রেকিং সিস্টেম (এবিএস) তৎক্ষণাৎ ব্রেকিংয়ে পর্যাপ্ত কন্ট্রোল বজায় রেখে ব্রেক করার কার্যকারিতা বাড়িয়ে তোলে। ইমারজেন্সি পরিস্থিতিতে বাইকের হ্যাজার্ড সতর্কতা বার্তা দিতেও সক্ষম। পেছনের ১৩০ মিলিমিটার প্রশস্ত টায়ার, বাইকে যেকোনো স্পিডে প্রোপার কন্ট্রোল বজায় রেখে অসাধারণ গ্রিপ এবং সর্বোচ্চ ভারসাম্য ধরে রাখতে পারে যা শহরবাসীদের জন্য খুবই জরুরি।

ব্যালেন্সড পারফর্মেন্স: হোন্ডা ইকো-টেকনোলজি (এইচইটি) ইঞ্জিনে আছে সর্বোচ্চ শক্তি ১৪.১ পিএস@৮৫০০ আরপিএম, সর্বোচ্চ টর্ক ১৩.৯ নিউটন মিটার @ ৬০০০ আরপিএম। এটিতে ১৬৩ সিসির ইঞ্জিন সংযোজিত হয়েছে। রয়েছে সর্বোচ্চ ফুয়েল ধারন ক্ষমতা। এক্সব্লেডে প্রতি লিটারের ৫৯* কিলোমিটারের একটি ব্যালেন্সড পারফর্মেন্স দিয়ে থাকে।

এই ক্লাসের সেরা কমফোর্ট এবং স্বাচ্ছন্দ্যদায়ক ব্যবস্থা: এক্সব্লেডে আছে ফুল ডিজিটাল স্পিডোমিটার, গিয়ার পজিশন ইন্ডিকেটর, সার্ভিস ডিউ ইন্ডিকেটর, ফুয়েল ইন্ডিকেটর, ট্রিপ কিলোমিটার, এবিএস ইন্ডিকেটর এবং ডিজিটাল ঘড়ির মত উন্নত ফিচারস যা একজন রাইডারকে যাত্রাকালীন সময়ে সকল ধরনের তথ্য দিয়ে তাকে সাহায্য করে থাকে।

বাইকটির মনো-শক সাসপেনশন, লিংক টাইপ গিয়ার শিফট প্যাডেল, ১৩৫০ মিলিমিটার লং হুইলবেস, ১৬০ মিটার গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স এবং লম্বা সিট রাইডিং অভিজ্ঞতাকে নিয়ে যাবে এক অনন্য মাত্রায়।

বাইকটিতে রয়েছে এম এফ ব্যাটারি, ভিস্কস এয়ার ফিল্টার, টিউবলেস টায়ার এবং সিলড চেইন
১৬০সিসি সেগমেন্টের এক্সব্লেড একটি কমপ্লিট প্যাকেজ যা একটি সত্যিকারের স্ট্রিট অল-রাইন্ডার।

নতুন এক্সব্লেডের এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখার সময় বাংলাদেশ হোন্ডা প্রাইভেট লিমিটেড এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর এবং সিইও মুতসুও উসুই বলেন, বিনিয়োগ বৃদ্ধি, টেকনোলজির নতুন সংস্করণ এবং আন্তর্জাতিক প্রযুক্তির ব্যাবহারের মাধ্যমে হোন্ডা এখন একটি প্রতিনিয়ত বর্ধমান ব্যবসায় পরিনত হয়েছে।

তিনি আরো বলেন এবছর হোন্ডা ইতিমধ্যেই তাদের ফ্যাক্টরিতে সম্পূর্ণ নতুন ইঞ্জিন এসেম্বল এবং এবিএস ফ্যাসিলিটি যুক্ত করেছে। ১৫০ টি ডিলারশিপ নেটওয়ার্কে ফ্যাসিলিটিগুলো স্থানীয়করণ করতে পারায় হোন্ডা বাংলাদেশে সবচেয়ে সাশ্রয়ী রেটে কাস্টমারদের সর্বোচ্চ যাতায়াত সুবিধা দেয়ার জন্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

এক্সব্লেডের ফিচার সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করার সময় বাংলাদেশ হোন্ডা প্রাইভেট লিমিটেডের সেলস এবং মার্কেটিং ডিপার্টমেন্ট এর সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট নরেশ কুমার রতন বলেন, এক্সব্লেল সিঙ্গেল ডিস্ক ভার্সন কাস্টমারদের কাছে খুবই গ্রহণীয় এবং নির্ভরযোগ্য একটি নাম এবং তিনি এত তাড়াতাড়ি ২৫,০০০ ইউনিট সেলস অর্জন করতে পারায় কাস্টমারদের কাছে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

তিনি আরো বলেন, ১৫০সিসি সেগমেন্টে কাস্টমারদের চাহিদা মেটাতে হোন্ডার রিসার্চ এবং ডেভেলপমেন্ট টিম নতুন এক্সব্লেডের নতুন এবং অত্যাধুনিক ডিজাইন এর পাশাপাশি ডাবল ডিস্ক এবং অ্যান্ট-লক ব্রেকিং সিস্টেম (এবিএস) ও সংযুক্ত করেছে।

তিনি আশা করেন মাত্র ১ লাখ ৯২ হাজার টাকার নতুন এই এক্সব্লেড ডাবল ডিস্ক এবিএস ভার্সন বাইকটি আধুনিক চিন্তাধারার বাংলাদেশি কাস্টমারদের মন ছুঁয়ে যাবে।

নতুন এই এক্সব্লেড এখন সারাদেশে হোন্ডার সকল স্বীকৃতিপ্রাপ্ত ডিলারদের শো-রুমে সিঙ্গেল ডিস্কের বাইকটি পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ১ লাখ ৭৩ হাজার ৯০০ টাকায় এবং ডবল ডিস্কের বাইকটি বিভিন্ন আকর্ষণীয় কালারে পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ১ লাখ ৯২ হাজার টাকা বাজারমুল্যে। একই সাথে কাস্টমারেরা ৪ বার ফ্রি সার্ভিসের সাথে ২ বছর কিংবা ২০ হাজার কিলোমিটারের একটি আকর্ষণীয় ওয়ারেন্টি পলিসি ও পাচ্ছেন।

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ থেকে আপনার নিকটস্থ যেকোনো হোন্ডা ডিলার পয়েন্টে ভিজিট করলেই আকর্ষণীয় এই স্ট্রিট আল-রাউন্ডার এক্সব্লেড বাইকটি দেখতে এবং বুক করতে পারবেন।

এছাড়াও অনলাইনে www.bdhonda.com/xblade, ফেসবুকে facebook.com/bdhondaofficial কিংবা আমাদের হটলাইন 08000430430 নাম্বারে যোগাযোগ করেও হোন্ডার প্রোডাক্ট সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিতে পারেন।

নতুন স্টাইলে হোন্ডা এক্সব্লেড ডাবল ডিস্ক এবিএস এখন বাংলাদেশে

 সংবাদ বিজ্ঞপ্তি 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ হোন্ডা প্রাইভেট লিমেটেড আজ দেশের বাজারে তাদের জনপ্রিয় মডেল এক্সব্লেডের ডাবল ডিস্ক এবং সিঙ্গেল ডিস্কে এবিএস ভার্সন উন্মুক্ত করল। বাইক লাভারদের আকাঙ্খা এবং আধুনিক সব চাহিদা মেটাতে ১৬০ সিসি ক্লাসের নতুন এই হোন্ডা এক্সব্লেড সাশ্রয়ী দামের স্ট্রিট অলরাউন্ডার একটি বাইক।   

অত্যাধুনিক ফিচারের কমপ্লিট একটি প্যাকেজ এই বাইকটি প্রতিদিনের যাত্রাপথে সবসময় একটি ব্যালেন্সড পারফর্মেন্স ধরে রাখতে পারে বলেই একে ‘অলরাউন্ডার’ নামকরণ করা হয়েছে। 

অত্যাধুনিক স্টাইল, দারুণ পাওয়ার ও মাইলেজ, উন্নতমানের কমফোর্ট ফিচারস এর সাথে এর সাশ্রয়ী প্রাইসের বিবেচনায় এক্সব্লেড বাইকটি হল একটি কমপ্লিট প্যাকেজ।

নজরকাড়া অত্যাধুনিক ডিজাইন: এক্সব্লেডকে ডিজাইন করা হয়েছে রোবো ফেসড হেডল্যাম্প, শার্প স্কাল্পটেড ফুয়েল ট্যাঙ্ক, স্টার্ডি হাগার ফেন্ডার, স্পোর্টি আন্ডার কাউল, আকর্ষণীয় ফ্রন্ট ফর্ক কভার, এবং ডুয়েল আউটলেট মাফলার এর মত নজরকারা অত্যাধুনিক ডিজাইন দিয়ে। 

নতুন অত্যাধুনিক সেফটি: এক্সব্লেডে দেয়া হয়েছে ডাবল ডিস্ক ব্রেক। যার সামনে রয়েছে সিঙ্গেল চ্যানেল অ্যান্টি-লক ব্রেকিং সিস্টেম। বাইকটিকে আরো নিরাপদ করতে সামনের চাকায় ২৭৬ মিলিমিটার এবং পেছনের চাকায় ২২০ মিলিমিটার পেডাল ডিস্ক সংযোজন করা হয়েছে।  যা সহজেই তাপ ছড়িয়ে দিয়ে যেকোনো পরিস্থিতিতে সেরা ব্রেকিং অভিজ্ঞতা দিতে পারে। 

এছাড়াও এর অ্যান্টি লক ব্রেকিং সিস্টেম (এবিএস) তৎক্ষণাৎ ব্রেকিংয়ে পর্যাপ্ত কন্ট্রোল বজায় রেখে ব্রেক করার কার্যকারিতা বাড়িয়ে তোলে। ইমারজেন্সি পরিস্থিতিতে বাইকের হ্যাজার্ড  সতর্কতা বার্তা দিতেও সক্ষম। পেছনের ১৩০ মিলিমিটার প্রশস্ত টায়ার, বাইকে যেকোনো স্পিডে প্রোপার কন্ট্রোল বজায় রেখে অসাধারণ গ্রিপ এবং সর্বোচ্চ ভারসাম্য ধরে রাখতে পারে যা শহরবাসীদের জন্য খুবই জরুরি। 

ব্যালেন্সড পারফর্মেন্স: হোন্ডা ইকো-টেকনোলজি (এইচইটি) ইঞ্জিনে আছে সর্বোচ্চ শক্তি ১৪.১ পিএস@৮৫০০ আরপিএম, সর্বোচ্চ টর্ক ১৩.৯ নিউটন মিটার @ ৬০০০ আরপিএম। এটিতে ১৬৩ সিসির ইঞ্জিন সংযোজিত হয়েছে।  রয়েছে সর্বোচ্চ ফুয়েল ধারন ক্ষমতা। এক্সব্লেডে প্রতি লিটারের ৫৯* কিলোমিটারের একটি ব্যালেন্সড পারফর্মেন্স দিয়ে থাকে।  

এই ক্লাসের সেরা কমফোর্ট এবং স্বাচ্ছন্দ্যদায়ক ব্যবস্থা: এক্সব্লেডে আছে ফুল ডিজিটাল স্পিডোমিটার, গিয়ার পজিশন ইন্ডিকেটর, সার্ভিস ডিউ ইন্ডিকেটর, ফুয়েল ইন্ডিকেটর, ট্রিপ কিলোমিটার, এবিএস ইন্ডিকেটর এবং ডিজিটাল ঘড়ির মত উন্নত ফিচারস যা একজন রাইডারকে যাত্রাকালীন সময়ে সকল ধরনের তথ্য দিয়ে তাকে সাহায্য করে থাকে।
  
বাইকটির মনো-শক সাসপেনশন, লিংক টাইপ গিয়ার শিফট প্যাডেল, ১৩৫০ মিলিমিটার লং হুইলবেস, ১৬০ মিটার গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স এবং লম্বা সিট রাইডিং অভিজ্ঞতাকে নিয়ে যাবে এক অনন্য মাত্রায়।  

বাইকটিতে  রয়েছে এম এফ ব্যাটারি, ভিস্কস এয়ার ফিল্টার, টিউবলেস টায়ার এবং সিলড চেইন
১৬০সিসি সেগমেন্টের এক্সব্লেড একটি কমপ্লিট প্যাকেজ যা একটি সত্যিকারের স্ট্রিট অল-রাইন্ডার।

নতুন এক্সব্লেডের এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখার সময় বাংলাদেশ হোন্ডা প্রাইভেট লিমিটেড এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর এবং সিইও মুতসুও উসুই বলেন, বিনিয়োগ বৃদ্ধি, টেকনোলজির নতুন সংস্করণ এবং আন্তর্জাতিক প্রযুক্তির ব্যাবহারের মাধ্যমে হোন্ডা এখন একটি প্রতিনিয়ত বর্ধমান ব্যবসায় পরিনত হয়েছে। 

তিনি আরো বলেন এবছর হোন্ডা ইতিমধ্যেই তাদের ফ্যাক্টরিতে সম্পূর্ণ নতুন ইঞ্জিন এসেম্বল এবং এবিএস ফ্যাসিলিটি যুক্ত করেছে। ১৫০ টি ডিলারশিপ নেটওয়ার্কে ফ্যাসিলিটিগুলো স্থানীয়করণ করতে পারায় হোন্ডা বাংলাদেশে সবচেয়ে সাশ্রয়ী রেটে কাস্টমারদের সর্বোচ্চ যাতায়াত সুবিধা দেয়ার জন্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।      

এক্সব্লেডের ফিচার সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করার সময় বাংলাদেশ হোন্ডা প্রাইভেট লিমিটেডের সেলস এবং মার্কেটিং ডিপার্টমেন্ট এর সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট নরেশ কুমার রতন বলেন, এক্সব্লেল সিঙ্গেল ডিস্ক ভার্সন কাস্টমারদের কাছে খুবই গ্রহণীয় এবং নির্ভরযোগ্য একটি নাম এবং তিনি এত তাড়াতাড়ি ২৫,০০০ ইউনিট সেলস অর্জন করতে পারায় কাস্টমারদের কাছে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

তিনি আরো বলেন, ১৫০সিসি সেগমেন্টে কাস্টমারদের চাহিদা মেটাতে হোন্ডার রিসার্চ এবং ডেভেলপমেন্ট টিম নতুন এক্সব্লেডের নতুন এবং অত্যাধুনিক ডিজাইন এর পাশাপাশি ডাবল ডিস্ক এবং অ্যান্ট-লক ব্রেকিং সিস্টেম (এবিএস) ও সংযুক্ত করেছে। 

তিনি আশা করেন মাত্র  ১ লাখ ৯২ হাজার টাকার নতুন এই  এক্সব্লেড ডাবল ডিস্ক এবিএস ভার্সন বাইকটি আধুনিক চিন্তাধারার বাংলাদেশি কাস্টমারদের মন ছুঁয়ে যাবে।     

নতুন এই এক্সব্লেড এখন সারাদেশে হোন্ডার সকল স্বীকৃতিপ্রাপ্ত ডিলারদের শো-রুমে সিঙ্গেল ডিস্কের বাইকটি পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ১ লাখ ৭৩ হাজার ৯০০ টাকায় এবং ডবল ডিস্কের বাইকটি বিভিন্ন আকর্ষণীয় কালারে পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ১ লাখ ৯২ হাজার টাকা বাজারমুল্যে। একই সাথে কাস্টমারেরা ৪ বার ফ্রি সার্ভিসের সাথে ২ বছর কিংবা ২০ হাজার কিলোমিটারের একটি আকর্ষণীয় ওয়ারেন্টি পলিসি ও পাচ্ছেন।

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ থেকে আপনার নিকটস্থ যেকোনো হোন্ডা ডিলার পয়েন্টে ভিজিট করলেই আকর্ষণীয় এই স্ট্রিট আল-রাউন্ডার এক্সব্লেড বাইকটি দেখতে এবং বুক করতে পারবেন। 

এছাড়াও অনলাইনে  www.bdhonda.com/xblade, ফেসবুকে facebook.com/bdhondaofficial কিংবা আমাদের হটলাইন 08000430430 নাম্বারে যোগাযোগ করেও হোন্ডার প্রোডাক্ট সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিতে পারেন।  
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর