রোটারি গভর্নর ইঞ্জিনিয়ার এমএ ওয়াহাবের বার্ষিক কর্মসূচি ঘোষণা
jugantor
রোটারি গভর্নর ইঞ্জিনিয়ার এমএ ওয়াহাবের বার্ষিক কর্মসূচি ঘোষণা

  সংবাদ বিজ্ঞপ্তি  

৩০ জুন ২০২২, ১৪:৩৯:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

রোটারি গভর্নর ইঞ্জিনিয়ার এমএ ওয়াহাবের বার্ষিক কর্মসূচি ঘোষণা

২০২২-২৩ রোটারি বর্ষের সূচনালগ্নে রোটারি ডিস্ট্রিক্ট ৩২৮১-এর গভর্নর ইঞ্জিনিয়ার এমএ ওয়াহাব বলেছেন, রোটারি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ ২০২১-২২ অর্থবছরে জনকল্যাণমূলক প্রকল্পসমূহ বাস্তবায়নে দেশব্যাপী ১০০ কোটিরও বেশি ব্যয় করেছে। আগামী অর্থবছরে রোটারির এ কর্মসূচি আরও জোরদার করা হবে।

ইভেন্ট চেয়ারম্যান রোটারির অ্যাডিশনাল গভর্নর আবুল খায়ের চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এ কথা বলেন।

আরও বক্তব্য রাখেন ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর ইলেক্ট মো. আশরাফুজ্জামান নান্নু, সাবেক গভর্নর কেএম জয়নুল আবেদিন, ড. মীর আনিসুজ্জামান, এম খাইরুল আলম, এক্সিকিউটিভ ডিস্ট্রিক্ট সেক্রেটারি আতিকুর রহমান, ডিস্ট্রিক্ট সেক্রেটারি এক্সটার্নাল এফেয়ার্স শিরিন বন, কসমোপলিটন রোটারির সভাপতি খন্দকার ওমর ফারুক ও পাস্ট গভর্নরবৃন্দ।

গভর্নর বলেন, ১ জুলাই মহাআড়ম্বরে বিশ্বব্যাপী ২০২২-২৩ রোটারি বর্ষের শুভ সূচনা হবে। সারা বিশ্বের ৩৩ হাজারেরও অধিক ক্লাবের ১২ লক্ষাধিক রোটারিয়ান বিভিন্ন সেবামূলক উদ্যোগ গ্রহণের পাশাপাশি নানান কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে নতুন রোটারি বর্ষ উদযাপন করবেন।

এ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশেও বিশেষ কর্মসূচির মধ্য দিয়ে নতুন বছরের প্রথম দিনটি উদযাপন করা হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে গভর্নর এমএ ওয়াহাব উল্লেখ করেন।

১ জুলাই সারাদেশের বিভিন্ন শহরে বর্ণালি শোভাযাত্রা বলে করা হবে। ঢাকায় শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে হাতিরঝিলে সকাল ৯টায়।

আগামীকাল বিকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে ডিস্ট্রিক্ট ইনস্টলেশন। প্রধান অতিথি পাস্ট রোটারি ইন্টারন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট হলগার ন্যাক।

অনুষ্ঠানে রোটারি জেলা ৩২৮১-এর চিফ অ্যাডভাইজর, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, দুর্যোগ ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান যোগ দেবেন। চার মন্ত্রী রোটারি ইন্টারন্যাশনালের সদস্য।

রোটারি গভর্নর বলেন, এ বছরের রোটারি থিম-ইমাজিন রোটারি। আন্তর্জাতিক রোটারির ইতিহাসে প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট জেনিফার জোনস এমন একটি রোটারি বিশ্বের কল্পনা করতে আহ্বান জানিয়েছেন, যখন বিশ্ব শান্তি ও পোলিওমুক্ত বিশ্ব প্রতিষ্ঠাসহ রোটারিয়ানদের সব স্বপ্ন ও শুভ আকাঙ্ক্ষাগুলো সত্যে পরিণত হবে এবং মানুষের মধ্যে পরস্পর এমন এক আত্মিক সমঝোতা প্রতিষ্ঠা হবে, যা এই পৃথিবীকে বদলে দেবে।

সংবাদ সম্মলেনে ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর এমএ ওয়াহাব বছরব্যাপী তার কর্মপরকিল্পনা জানাতে গিয়ে রোটারির প্রভাব ও কর্মতৎপরতাকে সুদূরপ্রসারী, অংশগ্রহণমূলক করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

তিনি নতুন সদস্যের অন্তর্ভুক্তি ও সদস্যদের দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে রোটারি ক্লাবগুলো আরও শক্তশালী করা এবং Every hour Rotary Care- এই প্রতিপাদ্যের আওতায় রোটারির মাতৃ ও শিশু স্বাস্থ্যসেবা ও শিক্ষাসেবা কার্যক্রম বেগবান করার পরিকল্পনার কথাও জানান।

তিনি জানান, সারা দেশের স্বেচ্ছায় রক্তদান ক্যাম্পেইন পরিচালিত হবে এবং রোটারিয়ান ও স্বেচ্ছাসেবীদের অংশগ্রহণে সারা বছরে মোট ৮৭৬০ ব্যাগ রক্ত সংগ্রহ করা হবে।

৮৭৬০ জন দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীকে শিক্ষাবৃত্তি ও শিক্ষাসামগ্রী দানের মাধ্যমে সহায়তা করা হবে।

৮৭৬০ জন মা ও শিশুকে স্বাস্থ্যসেবাসহ সামগ্রিক জীবনমান উন্নয়নে সহায়তা করা হবে।

২০০ জনের একটি রোটারি স্বেচ্ছাসেবক দল গঠন করা হবে, যারা রোটারির প্রয়োজনে ও বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগকালে স্বেচ্ছাসেবা প্রদান করবে।

৮৭৬০ জন তরুণকে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে।

রোটারি জেলা ৩২৮১-এর সব শহরে শব্দদূষণের বিরুদ্ধে সচতেনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হবে।

সংবাদ সম্মেলনে ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর এমএ ওয়াহাব প্রত্যেক রোটারিয়ান কমপক্ষে ৮৭৬০ টাকা করে রোটারি ফাউন্ডেশনে ডোনেশনের লক্ষ্যমাত্রা পূরণে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করার কথাও জানান।

রোটারি গভর্নর ইঞ্জিনিয়ার এমএ ওয়াহাবের বার্ষিক কর্মসূচি ঘোষণা

 সংবাদ বিজ্ঞপ্তি 
৩০ জুন ২০২২, ০২:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রোটারি গভর্নর ইঞ্জিনিয়ার এমএ ওয়াহাবের বার্ষিক কর্মসূচি ঘোষণা
রোটারি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ জেলা ৩২৮১ এর গভর্নর ইঞ্জিনিয়ার এম এ ওয়াহাব বৃস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে রোটারির ২০২২-২৩ সেশনের বার্ষিক কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

২০২২-২৩ রোটারি বর্ষের সূচনালগ্নে রোটারি ডিস্ট্রিক্ট ৩২৮১-এর গভর্নর ইঞ্জিনিয়ার এমএ ওয়াহাব বলেছেন, রোটারি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ ২০২১-২২ অর্থবছরে জনকল্যাণমূলক প্রকল্পসমূহ বাস্তবায়নে দেশব্যাপী ১০০ কোটিরও বেশি ব্যয় করেছে। আগামী অর্থবছরে রোটারির এ কর্মসূচি আরও জোরদার করা হবে।

ইভেন্ট চেয়ারম্যান রোটারির অ্যাডিশনাল গভর্নর আবুল খায়ের চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এ কথা বলেন। 

আরও বক্তব্য রাখেন ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর ইলেক্ট মো. আশরাফুজ্জামান নান্নু, সাবেক গভর্নর কেএম জয়নুল আবেদিন, ড. মীর আনিসুজ্জামান, এম খাইরুল আলম, এক্সিকিউটিভ ডিস্ট্রিক্ট সেক্রেটারি আতিকুর রহমান, ডিস্ট্রিক্ট সেক্রেটারি এক্সটার্নাল এফেয়ার্স শিরিন বন, কসমোপলিটন রোটারির সভাপতি খন্দকার ওমর ফারুক ও পাস্ট গভর্নরবৃন্দ।

গভর্নর বলেন, ১ জুলাই মহাআড়ম্বরে বিশ্বব্যাপী ২০২২-২৩ রোটারি বর্ষের শুভ সূচনা হবে। সারা বিশ্বের ৩৩ হাজারেরও অধিক ক্লাবের ১২ লক্ষাধিক রোটারিয়ান বিভিন্ন সেবামূলক উদ্যোগ গ্রহণের পাশাপাশি নানান কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে নতুন রোটারি বর্ষ উদযাপন করবেন।

এ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশেও বিশেষ কর্মসূচির মধ্য দিয়ে নতুন বছরের প্রথম দিনটি উদযাপন করা হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে গভর্নর এমএ ওয়াহাব উল্লেখ করেন।

১ জুলাই সারাদেশের বিভিন্ন শহরে বর্ণালি শোভাযাত্রা বলে করা হবে। ঢাকায় শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে হাতিরঝিলে সকাল ৯টায়। 

আগামীকাল বিকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে ডিস্ট্রিক্ট ইনস্টলেশন। প্রধান অতিথি পাস্ট রোটারি ইন্টারন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট হলগার ন্যাক।

অনুষ্ঠানে রোটারি জেলা ৩২৮১-এর চিফ অ্যাডভাইজর, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, দুর্যোগ ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান যোগ দেবেন। চার মন্ত্রী রোটারি ইন্টারন্যাশনালের সদস্য।

রোটারি গভর্নর বলেন, এ বছরের রোটারি থিম-ইমাজিন রোটারি। আন্তর্জাতিক রোটারির ইতিহাসে প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট জেনিফার জোনস এমন একটি রোটারি বিশ্বের কল্পনা করতে আহ্বান জানিয়েছেন, যখন বিশ্ব শান্তি ও পোলিওমুক্ত বিশ্ব প্রতিষ্ঠাসহ রোটারিয়ানদের সব স্বপ্ন ও শুভ আকাঙ্ক্ষাগুলো সত্যে পরিণত হবে এবং মানুষের মধ্যে পরস্পর এমন এক আত্মিক সমঝোতা প্রতিষ্ঠা হবে, যা এই পৃথিবীকে বদলে দেবে।

সংবাদ সম্মলেনে ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর এমএ ওয়াহাব বছরব্যাপী তার কর্মপরকিল্পনা জানাতে গিয়ে রোটারির প্রভাব ও কর্মতৎপরতাকে সুদূরপ্রসারী, অংশগ্রহণমূলক করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। 

তিনি নতুন সদস্যের অন্তর্ভুক্তি ও সদস্যদের দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে রোটারি ক্লাবগুলো আরও শক্তশালী করা এবং Every hour Rotary Care- এই প্রতিপাদ্যের আওতায় রোটারির মাতৃ ও শিশু স্বাস্থ্যসেবা ও শিক্ষাসেবা কার্যক্রম বেগবান করার পরিকল্পনার কথাও জানান। 

তিনি জানান, সারা দেশের স্বেচ্ছায় রক্তদান ক্যাম্পেইন পরিচালিত হবে এবং রোটারিয়ান ও স্বেচ্ছাসেবীদের অংশগ্রহণে সারা বছরে মোট ৮৭৬০ ব্যাগ রক্ত সংগ্রহ করা হবে।

৮৭৬০ জন দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীকে শিক্ষাবৃত্তি ও শিক্ষাসামগ্রী দানের মাধ্যমে সহায়তা করা হবে।

৮৭৬০ জন মা ও শিশুকে স্বাস্থ্যসেবাসহ সামগ্রিক জীবনমান উন্নয়নে সহায়তা করা হবে।

২০০ জনের একটি রোটারি স্বেচ্ছাসেবক দল গঠন করা হবে, যারা রোটারির প্রয়োজনে ও বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগকালে স্বেচ্ছাসেবা প্রদান করবে।

৮৭৬০ জন তরুণকে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে।

রোটারি জেলা ৩২৮১-এর সব শহরে শব্দদূষণের বিরুদ্ধে সচতেনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হবে।

সংবাদ সম্মেলনে ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর এমএ ওয়াহাব প্রত্যেক রোটারিয়ান কমপক্ষে ৮৭৬০ টাকা করে রোটারি ফাউন্ডেশনে ডোনেশনের লক্ষ্যমাত্রা পূরণে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করার কথাও জানান।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন