ইস্ট ওয়েস্ট ইউনির্ভাসিটিতে জাতীয় শোক দিবসের স্মৃতি বক্তৃতা
jugantor
ইস্ট ওয়েস্ট ইউনির্ভাসিটিতে জাতীয় শোক দিবসের স্মৃতি বক্তৃতা

  সংবাদ বিজ্ঞপ্তি  

১৬ আগস্ট ২০২২, ২২:০৬:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

ইস্ট ওয়েস্ট ইউনির্ভাসিটি জাতীয় শোক দিবস স্মরণে বিশেষ স্মৃতি বক্তৃতা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস, আফতাবনগর, ঢাকায় আয়োজিত এই অনুষ্ঠানের আমন্ত্রিত বক্তা ছিলেন বিশিষ্ট ইতিহাসবিদ এবং একুশে পদক বিজয়ী প্রফেসর ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন।

অনুষ্ঠানে সৈয়দ আনোয়ার হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন একইসাথে একজন নিঃস্বার্থ, সক্রিয় এবং অনুপ্রাণিত করার মতো নেতা। যিনি পাকিস্তান সৃষ্টির পরপরই একটি স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন এবং তার স্বপ্নকে কোটি কোটি বাংলাদেশির হৃদয়ে রোপণ করতে পেরেছিলেন। বঙ্গবন্ধু একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশকে অর্থনৈতিকভাবে স্থিতিশীল, উন্নয়ণশীল দেশে পরিণত করার জন্য পুনর্গঠনও শুরু করেছিলেন। এছাড়া তিনি সাম্যভিত্তিক সমাজ গড়তে চেয়েছিলেন।

স্মৃতি বক্তৃতা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের (ভারপ্রাপ্ত) চেয়ারর্পাসন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন। ড. ফরাসউদ্দিন স্বাধীনতার পরপরই ১৯৭২ সালের প্রথম দিকে বঙ্গবন্ধুর একান্ত সচিব হিসেবে নিযুক্ত হয়েছিলেন। বক্তৃতায় প্রফেসর ফরাসউদ্দিন বঙ্গবন্ধুর সাথে তার ঘনিষ্ঠতার কথা স্মরণ করেন, সেইসাথে বাকশাল গঠনের পেছনে বঙ্গবন্ধুর দর্শন এবং এর সঠিক বাস্তবায়নে কীভাবে বাংলাদেশকে একটি আধুনিক কল্যাণ রাষ্ট্রে পরিণত করতে পারত তা ব্যাখ্যা করেন। একইসাথে গত এক দশকে বাংলাদেশ যে আর্থ-সামাজিক সাফল্য অর্জন করেছে, তার প্রশংসা করেন এবং আশা করেন বর্তমানে দেশ যেসব সমস্যার মোকাবেলা করছে শিগগিরই তার অবসান হবে।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ইস্ট ওয়েস্ট ইউনির্ভাসিটির ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য প্রফেসর ড. এম জিয়াউলহক মামুন, এবং লিবারেল আর্টস অ্যান্ড সোশ্যাল সায়েন্স অনুষদের ডিন, প্রফেসর ড. ফৌজিয়া মান্নান। অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত কোষাধ্যক্ষ এয়ার কমোডোর (অব.) ইশফাক এলাহী চৌধুরীসহ শিক্ষক, কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

ইস্ট ওয়েস্ট ইউনির্ভাসিটিতে জাতীয় শোক দিবসের স্মৃতি বক্তৃতা

 সংবাদ বিজ্ঞপ্তি 
১৬ আগস্ট ২০২২, ১০:০৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ইস্ট ওয়েস্ট ইউনির্ভাসিটি জাতীয় শোক দিবস স্মরণে বিশেষ স্মৃতি বক্তৃতা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস, আফতাবনগর, ঢাকায় আয়োজিত এই অনুষ্ঠানের আমন্ত্রিত বক্তা ছিলেন বিশিষ্ট ইতিহাসবিদ এবং একুশে পদক বিজয়ী প্রফেসর ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন।

অনুষ্ঠানে সৈয়দ আনোয়ার  হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন একইসাথে একজন নিঃস্বার্থ, সক্রিয় এবং অনুপ্রাণিত করার মতো নেতা। যিনি পাকিস্তান সৃষ্টির পরপরই একটি স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন এবং তার স্বপ্নকে কোটি কোটি বাংলাদেশির হৃদয়ে রোপণ করতে পেরেছিলেন। বঙ্গবন্ধু একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশকে অর্থনৈতিকভাবে স্থিতিশীল, উন্নয়ণশীল দেশে পরিণত করার জন্য পুনর্গঠনও শুরু করেছিলেন। এছাড়া তিনি সাম্যভিত্তিক সমাজ গড়তে চেয়েছিলেন।

স্মৃতি বক্তৃতা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের (ভারপ্রাপ্ত) চেয়ারর্পাসন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন। ড. ফরাসউদ্দিন স্বাধীনতার পরপরই ১৯৭২ সালের প্রথম দিকে বঙ্গবন্ধুর একান্ত সচিব হিসেবে নিযুক্ত হয়েছিলেন। বক্তৃতায় প্রফেসর ফরাসউদ্দিন বঙ্গবন্ধুর সাথে তার ঘনিষ্ঠতার কথা স্মরণ করেন, সেইসাথে বাকশাল গঠনের পেছনে বঙ্গবন্ধুর দর্শন এবং এর সঠিক বাস্তবায়নে কীভাবে বাংলাদেশকে একটি আধুনিক কল্যাণ রাষ্ট্রে পরিণত করতে পারত তা ব্যাখ্যা করেন। একইসাথে গত এক দশকে বাংলাদেশ যে আর্থ-সামাজিক সাফল্য অর্জন করেছে, তার প্রশংসা করেন এবং আশা করেন বর্তমানে দেশ যেসব সমস্যার মোকাবেলা করছে শিগগিরই তার অবসান হবে।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ইস্ট ওয়েস্ট ইউনির্ভাসিটির ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য প্রফেসর ড. এম জিয়াউলহক মামুন, এবং লিবারেল আর্টস অ্যান্ড সোশ্যাল সায়েন্স অনুষদের ডিন, প্রফেসর ড. ফৌজিয়া মান্নান। অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনিযুক্ত কোষাধ্যক্ষ এয়ার কমোডোর (অব.) ইশফাক এলাহী চৌধুরীসহ শিক্ষক, কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর