ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা মাস উপলক্ষে ‘পিংক ডে’ পালন
jugantor
ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা মাস উপলক্ষে ‘পিংক ডে’ পালন

  সংবাদ বিজ্ঞপ্তি  

১৯ অক্টোবর ২০২২, ১৬:৫১:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রেস্ট ক্যান্সার একটি মরণব্যাধি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য মতে, প্রতি বছর বাংলাদেশে প্রায় ৭ হাজার নারী, অর্থাৎ প্রতিদিন প্রায় ১৯ জন মারা যাচ্ছেন প্রাণঘাতী ব্রেস্ট ক্যান্সারের কারণে। শুধুমাত্র সচেতনতাই পারে এই মৃত্যুহার অনেকটা কমিয়ে আনতে।

প্রাথমিক পর্যায়ের সনাক্তকরণে এ রোগে সুস্থতার হার প্রায় ৯০%। বিশ্বব্যাপী প্রতি বছর অক্টোবর মাসটিকে ‘ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা মাস’ হিসেবে পালন করা হয়, যা ‘পিংক অক্টোবর’ হিসেবেও বলা হয়ে থাকে। যার মূল প্রতিপাদ্য হচ্ছে, ব্রেস্ট ক্যান্সার বিষয়ক সচেতনতা তৈরি ও প্রতিকার নিশ্চিত করা।

দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্প প্রতিষ্ঠান মেঘনা গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ (এমজিআই)-এর জনপ্রিয় ব্র্যান্ড ফ্রেশ টিস্যু বেশ কয়েক বছর ধরেই ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা ও সনাক্তকরণে দেশব্যাপী বিভিন্ন কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। এই কার্যক্রমে এ বছর সম্পৃক্ত হয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ কল্যাণ ট্রাষ্ট এবং ওয়েসিস।

ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে আয়োজকরা চলতি বছর অক্টোবর মাসের ১৮ তারিখকে ‘পিংক ডে’ হিসেবে উদযাপনের উদ্যোগ নেয়। যার মূল প্রতিপাদ্য হচ্ছে দেশের সর্বস্তরের মানুষের মাঝে সচেতনতার বার্তা ছড়িয়ে দেয়া। এরই লক্ষ্যে এমজিআইএর সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ পিংক টি-শার্ট পরিধানের মাধ্যমে দিনটিকে “পিংক ডে” উদযাপন করেছে। সেই সাথে ‘পিংক ডে’-এর সচেতনতার বার্তা অন্যদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে এমজিআই-এর পক্ষ থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালির আয়োজন করা হয়। একই সাথে নিজ নিজ সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম থেকে ছবি ও পোস্ট শেয়ার করেন তাদের অনেকেই।

এর বাইরে, ফ্রেশ টিস্যু-এর এই ‘পিংক ডে’ উদযাপনে একাত্মতা প্রকাশ করে গ্রামীণফোন, এশিয়াটিক থ্রিসিক্সটি, গ্রে গ্রুপ সহ অন্যান্য শীর্ষস্থানীয় কোম্পানির কর্মকর্তারাও তাদের নিজ নিজ কর্মস্থলে পিংক টি-শার্ট পরিধান করেন। একই সাথে বাংলাদেশ পুলিশ কল্যাণ ট্রাষ্ট এবং ওয়েসিস ফ্রেশ টিস্যুর এই মানবিক উদ্যোগের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছে।

এর আগে, মুছে যাক গ্লানি ক্যাম্পেইনের সাথে নিজেদের সামিল হওয়ার কথা জানিয়ে নিজ নিজ সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম থেকে ভিডিও বার্তা পোস্ট করেন এশিয়াটিক থ্রিসিক্সটি-এর কো-চেয়ারপারসন সারা যাকের, গ্রে গ্রুপ বাংলাদেশ-এর ম্যানেজিং পার্টনার এবং কান্ট্রি হেড গাউসুল আলম শাওন, গ্রামীণফোন-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইয়াসির আজমান সহ আরও অনেকে।
এছাড়াও ফ্রেশ টিস্যু-এর অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ-এ সচেতনতা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে অক্টোবর মাসের শুরুতে পোস্ট করা হয় একটি বিশেষ ওভিসি। সমাজ থেকে ব্রেস্ট ক্যান্সারের গ্লানি মোছার শপথে ফ্রেশ টিস্যুর এই কার্যক্রম ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।


ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা মাস উপলক্ষে ‘পিংক ডে’ পালন

 সংবাদ বিজ্ঞপ্তি 
১৯ অক্টোবর ২০২২, ০৪:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রেস্ট ক্যান্সার একটি মরণব্যাধি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য মতে, প্রতি বছর বাংলাদেশে প্রায় ৭ হাজার নারী, অর্থাৎ প্রতিদিন প্রায় ১৯ জন মারা যাচ্ছেন প্রাণঘাতী ব্রেস্ট ক্যান্সারের কারণে। শুধুমাত্র সচেতনতাই পারে এই মৃত্যুহার অনেকটা কমিয়ে আনতে। 

প্রাথমিক পর্যায়ের সনাক্তকরণে এ রোগে সুস্থতার হার প্রায় ৯০%। বিশ্বব্যাপী প্রতি বছর অক্টোবর মাসটিকে ‘ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা মাস’ হিসেবে পালন করা হয়, যা ‘পিংক অক্টোবর’ হিসেবেও বলা হয়ে থাকে। যার মূল প্রতিপাদ্য হচ্ছে, ব্রেস্ট ক্যান্সার বিষয়ক সচেতনতা তৈরি ও প্রতিকার নিশ্চিত করা।  

দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্প প্রতিষ্ঠান মেঘনা গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ (এমজিআই)-এর জনপ্রিয় ব্র্যান্ড ফ্রেশ টিস্যু বেশ কয়েক বছর ধরেই ব্রেস্ট ক্যান্সার সচেতনতা ও সনাক্তকরণে দেশব্যাপী বিভিন্ন কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। এই কার্যক্রমে এ বছর সম্পৃক্ত হয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ কল্যাণ ট্রাষ্ট এবং ওয়েসিস। 

ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে আয়োজকরা চলতি বছর অক্টোবর মাসের ১৮ তারিখকে ‘পিংক ডে’ হিসেবে উদযাপনের উদ্যোগ নেয়। যার মূল প্রতিপাদ্য হচ্ছে দেশের সর্বস্তরের মানুষের মাঝে সচেতনতার বার্তা ছড়িয়ে দেয়া। এরই লক্ষ্যে এমজিআইএর সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ পিংক টি-শার্ট পরিধানের মাধ্যমে দিনটিকে “পিংক ডে” উদযাপন করেছে। সেই সাথে ‘পিংক ডে’-এর সচেতনতার বার্তা অন্যদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে এমজিআই-এর পক্ষ থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালির আয়োজন করা হয়। একই সাথে নিজ নিজ সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম থেকে ছবি ও পোস্ট শেয়ার করেন তাদের অনেকেই। 

এর বাইরে, ফ্রেশ টিস্যু-এর এই ‘পিংক ডে’ উদযাপনে একাত্মতা প্রকাশ করে গ্রামীণফোন, এশিয়াটিক থ্রিসিক্সটি, গ্রে গ্রুপ সহ অন্যান্য শীর্ষস্থানীয় কোম্পানির কর্মকর্তারাও তাদের নিজ নিজ কর্মস্থলে পিংক টি-শার্ট পরিধান করেন। একই সাথে বাংলাদেশ পুলিশ কল্যাণ ট্রাষ্ট এবং ওয়েসিস ফ্রেশ টিস্যুর এই মানবিক উদ্যোগের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছে। 

এর আগে, মুছে যাক গ্লানি ক্যাম্পেইনের সাথে নিজেদের সামিল হওয়ার কথা জানিয়ে নিজ নিজ সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম থেকে ভিডিও বার্তা পোস্ট করেন এশিয়াটিক থ্রিসিক্সটি-এর কো-চেয়ারপারসন সারা যাকের, গ্রে গ্রুপ বাংলাদেশ-এর ম্যানেজিং পার্টনার এবং কান্ট্রি হেড গাউসুল আলম শাওন, গ্রামীণফোন-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইয়াসির আজমান সহ আরও অনেকে। 
এছাড়াও ফ্রেশ টিস্যু-এর অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ-এ সচেতনতা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে অক্টোবর মাসের শুরুতে পোস্ট করা হয় একটি বিশেষ ওভিসি। সমাজ থেকে ব্রেস্ট ক্যান্সারের গ্লানি মোছার শপথে ফ্রেশ টিস্যুর এই কার্যক্রম ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।


 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর