আড়াইহাজারে উদ্ধার ৪ যুবককেই গুলি করে হত্যা

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি ২১ অক্টোবর ২০১৮, ২০:৫৯ | অনলাইন সংস্করণ

আড়াইহাজারে উদ্ধার চার লাশ

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে চার যুবককে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। রোববার ভোরে আড়াইহাজার উপজেলার সাতগ্রাম ইউনিয়নের পাচঁরুখী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের দুপাশ থেকে ওই চার জনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এসময় ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি মাইক্রোবাস ও ১ রাউন্ড গুলি ভর্তি ২টি দেশি পিস্তল জব্দ করে। রোববার বিকালে নিহত চারজনের মধ্যে নিহত একজন জব্দকৃত মাইক্রোবাসটির চালক লুৎফর মোল্লা বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

রাজধানীর রামপুরা থানার বাগিচারটেক এলাকার বাসিন্দা রেশমা বেগম নারায়ণগঞ্জ মর্গে এসে তার স্বামীর লাশ শনাক্ত করেছেন।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. মো. আসাদুজ্জামান লাশের ময়নাতদন্ত শেষে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, চার লাশের মধ্যে তিনটি লাশের মাথায় শর্টগান বা বন্দুক জাতীয় অস্ত্রের গুলি পাওয়া গেছে।

রোববার দিবাগত রাতে ওই ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে বলেও জানান তিনি।

পুলিশের একটি সূত্র বলছে, আঘাত দেখে মনে হচ্ছে নিহতদের খুব কাছ থেকে বা মাথায় ঠেকিয়ে গুলি করা হয়েছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানিয়েছে, ভোরে স্থানীয়দের দেয়া খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। এসময় চার লাশের মাথাই থেতলানো অবস্থায় ছিল। ঘটনাস্থল থেকে এক রাউন্ডগুলি ভর্তি দুটি পিস্তল ও একটি সিলভার রঙের মাইক্রোবাস (ঢাকা মেট্রো চ-১৩-০৫০১) জব্দ করা হয়। লাশের শরীরের রক্তগুলো জমাট বাধা ছিল। তবে কী কারণে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এদিকে ব্যস্ততম ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় শত শত মানুষ সেখানে ভিড় করে। তবে ঘটনাস্থলের কাছেই এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা রায়হান জানান, ভোরে প্রকৃতির ডাকে সারা দিতে উঠার কয়েক মিনিটের মধ্যে তিনি চারটি গুলির শব্দ শুনতে পান। ভয়ে রাতের বাসা থেকে বের হতে না পারলেও ভোরে বের হয়ে দেখেন মহাসড়কের দুপাশে দুটি করে চারটি মৃত দেহ পড়ে আছে। একটি মাইক্রোবাস সেখানে পড়েছিল। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

আড়াইহাজার থানার ওসি এম এ হক জানান, নিহতদের প্রত্যেকের বয়স বয়স ৩০ থেকে ৩৫ এর মধ্যে। নিহত চারজনের মধ্যে একজনের পড়নে ছিল সাদা-নিল রঙের লুঙ্গি ও রঙের গাঢ় নীল গেঞ্জি পড়া। অপর তিনজনের মধ্যে পড়নে ছিল কালো গেঞ্জি, স্টাইপের লাল সাদা গেঞ্জি ও বেগুনি কালো স্টাইপের গেঞ্জি এবং প্রত্যেকের পড়নে ছিল নীল রঙের জিন্স প্যান্ট।

ওসি এমএ হক আরও জানান, লাশের সুরতহালকালে নিহতের চারজনের প্রত্যেকর মাথা পেছন থেকে থেতলানো ছিল।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জেলার অতিরক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, নিহত চারজনের মাথায় ক্ষতের চিহ্ন পেয়েছি। তবে এছাড়া শরীরে আর কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। আমাদের প্রাথমিক ধারণা যেহেতু ঘটনাস্থল থেকে আমরা পিস্তল ও গুলি পেয়েছি, সেহেতু দুদল ডাকাত ও সন্ত্রাসীর আভ্যন্তরীণ কোন্দলে এই ধরনের ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা যাচ্ছে। এই ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে।

এদিকে নিহত চারজনের মধ্যে একজন জব্দকৃত মাইক্রোবাসটির চালক লুৎফর মোল্লা বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। রাজধানীর রামপুরা থানার বাগিচারটেক এলাকার বাসিন্দা রেশমা বেগম মর্গে এসে তার স্বামীর লাশ শনাক্ত করেছেন।

তিনি জানান, শুক্রবার বিকালে যাত্রী নিয়ে যাওয়ার কথা বলে বাসা থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন। রাত থেকে তার সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। পরে শনিবার সকালে তিনি রামপুরা থানায় এ ব্যাপারে জিডি করেন।

রোববার সকাল থেকে বিভিন্ন গণমাধ্যমে চার যুবকের লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে রেশমা বেগম নারায়ণগঞ্জ সদরের ১০০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে এসে লাশগুলো দেখে স্বামীর লাশ শনাক্ত করেন। লুৎফর রহমানের এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। ছেলে রিশাদ অষ্টম শ্রেণি ও মেয়ে লিজা চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ে।

লুৎফর রহমানের স্ত্রী রেশমা বেগম আরও জানান, গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে তিনি রফিক আকন্দের ভাড়ায় চালিত মাইক্রোবসের চালক হিসেবে কাজ শুরু করেন। আড়াহাইহাজারে লাশের সঙ্গে জব্দকৃত গাড়ির মালিক রফিক আকন্দ বলেও নিশ্চত করেছেন আড়াইহাজার থানার ওসি এম এ হক।

গাড়ির মালিক রফিক আাকন্দ জানান, গত শুক্রবার সন্ধ্যায় চালক লুৎফর রহমান মোল্লা একটি ট্রিপ পেয়ে রাজধানীর রামপুরা থেকে গাড়ি নিয়ে যান। কিন্তু কোথায় ট্রিপ নিয়ে যাবেন তা জানায়নি।

তিনি জানান, এক মাস আগে লুৎফর রহমান মোল্লা তার গাড়িটি চালানো শুরু করেন।

রফিক আাকন্দ জানান, পুলিশের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করে জানানো হয়েছে যে গাড়িটি পুলিশ জব্দ করেছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter