টেকনাফে গ্রেফতারের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত
jugantor
টেকনাফে গ্রেফতারের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:৪১:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

টেকনাফে গ্রেফতারের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ইউসুফ জালাল বাহাদুর (৩২) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন।

পুলিশের দাবি, নিহত বাহাদুর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী ছিলেন। তার বিরুদ্ধে হত্যা, মাদকসহ বিভিন্ন অভিযোগে ১২টিরও বেশি মামলা রয়েছে। এ সময় পাঁচ পুলিশ সদস্যও আহত হন। বাহাদুর উপজেলার ছোট হাবিবপাড়ার খলিলুর রহমানের ছেলে।

শুক্রবার ভোরে টেকনাফের ছোট হাবিবপাড়ায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, বুলেট ও ইয়াবা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী ইউসুফ জালাল বাহাদুরকে গ্রেফতার করা হয়।

পরে শুক্রবার ভোরে তাকে নিয়ে অভিযানে যায় পুলিশ। ছোট হাবিবপাড়ায় পৌঁছলে বাহাদুরের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এ সময় পুলিশও গুলি করলে তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়।

পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ বাহাদুরকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে কক্সবাজারে স্থানান্তর করে। সেখানে নেয়ার পথে বাহাদুরের মৃত্যু হয়।

এতে টেকনাফ মডেল থানার এসআই শরীফুল ইসলাম, এএসআই ফারুকুজ্জামান, কনস্টেবল রুবেল শর্মা, ইব্রাহীম, মহিউদ্দিন আহত হন। তারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

টেকনাফে গ্রেফতারের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:৪১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
টেকনাফে গ্রেফতারের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত
প্রতীকী ছবি: যুগান্তর

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ইউসুফ জালাল বাহাদুর (৩২) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন।

পুলিশের দাবি, নিহত বাহাদুর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী ছিলেন। তার বিরুদ্ধে হত্যা, মাদকসহ বিভিন্ন অভিযোগে ১২টিরও বেশি মামলা রয়েছে। এ সময় পাঁচ পুলিশ সদস্যও আহত হন।  বাহাদুর উপজেলার ছোট হাবিবপাড়ার খলিলুর রহমানের ছেলে।

শুক্রবার ভোরে টেকনাফের ছোট হাবিবপাড়ায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। 

ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, বুলেট ও ইয়াবা উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী ইউসুফ জালাল বাহাদুরকে গ্রেফতার করা হয়। 

পরে শুক্রবার ভোরে তাকে নিয়ে অভিযানে যায় পুলিশ। ছোট হাবিবপাড়ায় পৌঁছলে বাহাদুরের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এ সময় পুলিশও গুলি করলে তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়। 

পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ বাহাদুরকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে কক্সবাজারে স্থানান্তর করে। সেখানে নেয়ার পথে বাহাদুরের মৃত্যু হয়।

এতে টেকনাফ মডেল থানার এসআই শরীফুল ইসলাম, এএসআই ফারুকুজ্জামান, কনস্টেবল রুবেল শর্মা, ইব্রাহীম, মহিউদ্দিন আহত হন। তারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

 

ঘটনাপ্রবাহ : মাদকবিরোধী অভিযানে নিহত

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন