যুবলীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষে এমপির পিএসসহ আহত ৪, গুলিবর্ষণ

  দামুড়হুদা (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি ০১ জানুয়ারি ২০১৯, ১৯:২৪ | অনলাইন সংস্করণ

যুবলীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষে এমপির পিএসসহ আহত ৪, গুলিবর্ষণ

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় যুবলীগের দুগ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে স্থানীয় এক এমপির একান্ত সচিবসহ ৪ জন আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার দর্শনা পুরাতন বাজারে পাওনা টাকা নিয়ে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজগার টগর পিএস দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের সহসভাপতি আব্দুস সালাম ভুট্টো (৪৫), দর্শনা পৌর যুবলীগের সভাপতি আশরাফুল আলম বাবু (৪৮), সোহাগ হাসান (২৫)ও উপজেলা যুবলীগ নেতা আব্দুল মান্নান (৪৬) আহত হয়েছে।

এ সময় দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ ও দোকানপাট ভাঙচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এলাকাবাসী জানায়, মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে ওই এমপির পিএস ও দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের সহসভাপতি আব্দুস সালাম ভুট্ট দর্শনা পুরাতন বাজারের রেলগেটের কফি হাউসে বসে চা খাচ্ছিলেন। এ সময় যুবলীগ নেতা আব্দুল মান্নান তার পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে উভয়ের মধ্যে কথাকাটাকাটি শুরু হয়।

একপর্যায়ে আব্দুস সালাম ভুট্টকে জোরপূর্বক মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে নিজের দোকানঘরের মধ্যে আটকে রেখে মারধর করেন আব্দুল মান্নান।

এরপর সামনের দোকানের মালিক দর্শনা পৌর যুবলীগের সভাপতি আশরাফুল আলম বাবুর ওপর চড়াও হলে আব্দুস সালাম ভুট্ট ও আশরাফুল আলম বাবুর লোকজন আব্দুল মান্নানকে পিটিয়ে আহত করে।

এ সময় ২ রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে আব্দুল মান্নানের লোকজন একত্র হয়ে মিছিলসহকারে আশরাফুল আলম বাবুর দোকানঘর ভাঙচুর করে।

খবর পেয়ে দর্শনা তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ওসি এস এম সেলিম ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে দর্শনা কোম্পানি সদরের বিজিবি ও দামুড়হুদা থানার ওসি সুকুমার বিশ্বাস সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

দর্শনা পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আসলাম আলী তোতা জানান, স্থানীয় কফি হাউসে আব্দুস সালাম ভুট্ট বসে চা খাচ্ছিলেন। এ সময় আব্দুল মান্নান তাকে মোটরসাইকেলে করে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে এসে তার দোকানঘরে আটকে মারপিট করে আহত করে। এরপর মান্নানসহ তার লোকজন এসে পৌর যুবলীগের সভাপতি বাবুর দোকান ভাঙচুর ও ৩ রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে।

যুবলীগ নেতা আব্দুল মান্নান জানান, স্থানীয় কফি হাউসে বসে থাকার সময় ভুট্টর কাছে পাওনা টাকা চাইতে যান তিনি। একপর্যায়ে ভুট্ট ক্ষিপ্ত হয়ে তার ওপর চড়াও হন। এরপর তাকে মোটরসাইকেলে উঠিয়ে নিজের দোকান ঘরে বসিয়ে রাখেন বাবু এবং অপর পাওনাদার পৌর যুবলীগের সভাপতি বাবুর কাছে টাকা চান তিনি। এরপর ভুট্টর লোকজন তাকে মারপিট করে আহত করে। খবর পেয়ে তার লোকজন ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে।

গুলিবর্ষণের ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি জানান, গুলিবর্ষণ নয় তার লোকজন পটকা বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। কিন্তু দোকানঘর ভাঙচুরের ঘটনার সত্য নয়।

দামুড়হুদা থানার ওসি সুকুমার বিশ্বাস জানান,পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে দুগ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু গুলিবর্ষণ ও দোকান ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেনি।

আরও পড়ুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×