চাটমোহরে বিপিএল জুয়া জমজমাট!

  চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি ১৫ জানুয়ারি ২০১৯, ২১:৪৭ | অনলাইন সংস্করণ

চাটমোহরে বিপিএল জুয়া জমজমাট
চাটমোহরে বিপিএল জুয়া জমজমাট

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) ক্রিকেট শুরু হওয়ার পর থেকেই পাবনার চাটমোহরে শুরু হয়েছে জমজমাট জুয়া খেলা। পৌর শহর থেকে শুরু করে উপজেলাজুড়ে এই জুয়া বিস্তার লাভ করেছে।

খেলার শুরুর সময় থেকে শেষ না হওয়া পর্যন্ত অনেকটা গোপনে বাজি ধরছেন জুয়াড়িরা। বাজি ধরে সর্বস্বান্ত হচ্ছে বাজিকররা। ক্রমেই সাধারণ মানুষ এই জুয়ার সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে।

প্রতিদিন লাখ লাখ টাকা হাতবদল হচ্ছে উপজেলাজুড়ে। গোপনে বাজি ধরার কারণে প্রশাসনের ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছেন জুয়াড়িরা।

তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, পৌর শহরের বাসস্ট্যান্ড, চৌধুরীপাড়া, দোলং, রামনগর ঘাট, মথুরাপুর, অমৃতকুণ্ডা, শাহপুর, বালুদিয়াড় মোড়, হরিপুর, হান্ডিয়াল, সমাজ বাজার, মহেলা, গুয়াখড়া বাজারসহ উপজেলার সর্বত্র বাজিকররা খেলা শুরুর পর থেকে গোপনে নিজেদের মধ্যে বাজি ধরছেন। বিশেষ করে সন্ধ্যার পর চা-স্টলগুলোতে এসব বাজিকরদের ভিড় দেখলেই বোঝা যায় বিষয়টি।

পাশে বসে থাকলেও বোঝার উপায় নেই সেখানে হাতবদল হচ্ছে লাখ লাখ টাকা। অনেকে লাভের আশায় বাড়ির মূল্যবান জিনিসপত্র বিক্রি করে বাজি ধরছেন। যখন নিঃস্ব হচ্ছেন তখন পুঁজি সংগ্রহে চুরি ও ছিনতাইয়ের মতো অপরাধ কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ছে।

আরও জানা গেছে, বিভিন্ন সাংকেতিক ভাষায় চলছে বিপিএল জুয়া। প্রতি ২০ ওভারের ম্যাচে প্রতি ওভারে রানের ওপর, কোন খেলোয়াড় বেশি রান করবে, কোন বোলার বেশি উইকেট পাবে, কোন ব্যাটসম্যান বেশি ছক্কা মারবে, কে বেশি চার মারবে, কোন বলে চার বা ছয় হবে এবং কোন দল জিতবে এসবের ওপর ধরা হচ্ছে বাজি। আর এই খেলার সঙ্গে চিকিৎসক, শিক্ষক, ব্যবসায়ী, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ নানা শ্রেণিপেশার মানুষ জড়িয়ে পড়ছেন।

হার-জিতের টাকার লেদদেন হচ্ছে নগদে অথবা মোবাইলের মাধ্যমে। শুধু তাই নয়, হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক মেসেঞ্জারের মাধ্যমেও বাজি ধরা হচ্ছে। এভাবে ক্রিকেট জুয়ার ফাঁদে পড়ে সর্বস্বান্ত হচ্ছেন সবাই।

এতে আগের চেয়ে চাটমোহরে চুরি, ছিনতাইয়ের মতো ঘটনা বেড়ে গেছে বলে সচেতন মহলের অভিযোগ। অবিলম্বে এই জুয়া বন্ধে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন চাটমোহর বাসী।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে দুই বাজিকর যুগান্তরকে জানান, বিপিএল বা আইপিএল খেলা শুরু হলে প্রতিদিন মোটা অঙ্কের টাকা আয় হয়। মাঝে মধ্যে লোকসানও গুনতে হয়। তবে সবচেয়ে লাভ হয় আইপিএল খেলায়। সেখানে বাজি ধরার রেট অনেক বেশি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে থানার ওসি সেখ নাসীর উদ্দিন যুগান্তরকে বলেন, বিষয়টি জানা ছিল না। তবে এমন হয়ে থাকলে অভিযান পরিচালনা করে জুয়াড়িদের আটক করে আইনের আওতায় আনা হবে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×