হাসপাতালে স্ত্রীর লাশ ফেলে পালালেন স্বামী

  ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি ১৬ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:২১ | অনলাইন সংস্করণ

ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স
ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

স্ত্রীর লাশ হাসপাতালে রেখে পালিয়েছেন স্বামী। নিহত গৃহবধূ নাম রেবেকা শাহিন রত্না (৩২)।

গৃহবধু রত্না পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলা শহরের রহিমপুর খলিলের মোড় এলাকার মৃত আবদুস সামাদ মজনুর মেয়ে ও আবদুল কুদ্দুসের স্ত্রী।

বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে স্বামীর ওপর অভিমান করে শোয়ার ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেন ওই গৃহবধূ। রুম্মান খান নামের পাঁচ বছরের পুত্রসন্তান রয়েছে এই দম্পতির।

নিহতের পরিবার জানান, রত্নার স্বামী আবদুল কুদ্দুস একজন সৌদি প্রবাসী। দীর্ঘদিন পর গত কয়েকদিন আগেই দেশে ফিরেছেন। বিকালে শিশুসন্তান রুম্মানকে (নিহত গৃহবধূর ছেলে) কোনো কারণে মা রত্না চড়-থাপ্পড় মারেন। শিশু সন্তানকে মারধরের কারণে স্বামী কুদ্দুস এ সময় স্ত্রী রত্নার গায়ে হাত তোলেন।

এতে স্বামীর ওপর অভিমান করে শোয়ার ঘরের আড়ার সঙ্গে রত্না গলায় ফাঁস নেয়। সংজ্ঞাহীন অবস্থায় হাসপাতালে আনা হলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। স্ত্রীর মৃত্যুর খবর শুনে আবদুল কুদ্দুস ভয়ে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়।

ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তার তানজিলা মোস্তফা জানান, গলায় ফাঁস নিয়ে গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে আনার আগেই গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে।

ঈশ্বরদী থানার ওসি বাহাউদ্দিন ফারুকী গলায় ফাঁস নিয়ে গৃহবধূর আত্মহত্যার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। স্বামী পলাতক রয়েছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×