স্ত্রীকে গোয়ালন্দ স্টেশনে রেখে পালাল কথিত স্বামী

  গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি ২২ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:৪০ | অনলাইন সংস্করণ

রাজবাড়ী

স্ত্রীকে বাড়িতে আনার কথা বলে গোয়ালন্দ ঘাট (দৌলতদিয়া) রেলস্টেশনে রেখে পালিয়েছেন কথিত স্বামী। নিরুপায় হয়ে স্ত্রী আকলিমা বেগম (২১) গোয়ালন্দ ঘাট থানায় আশ্রয় নিয়ে স্বামীর সন্ধান করছেন।

আকলিমা বেগম দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর উপজেলার নোওখোর গ্রামের মৃত আ. হাকিম আলীর মেয়ে।

মঙ্গলবার দুপুরে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় কথা হয় গৃহবধূ আকলিমার সঙ্গে। তিনি জানান, গাজীপুরের করনী ফ্যাশন গার্মেন্টসে কাজ করতেন। একই গার্মেন্টসে কাজ করতেন গোয়ালন্দের মজিবর ফকিরের ছেলে সুজন ফকির (২৬)। একই গার্মেন্টসে কাজ করার সুবাদে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

তিনি জানান, একপর্যায়ে গত দুই বছর আগে তারা বিয়ে করে একসঙ্গে বসবাস শুরু করেন। মাস খানেক আগে তারা ওই গার্মেন্টস থেকে এসে ঢাকা সাভারের একটি গার্মেন্টসে কাজ নিয়ে সেখানে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করতে থাকেন।

ওই গৃহবধূ জানান, গত রোববার সুজন তাকে তাদের বাড়িতে আনার কথা বলে গোয়ালন্দের দৌলতদিয়ায় নিয়ে আসেন। কিন্তু সুজন তাকে বাড়িতে না নিয়ে দৌলতদিয়ায় একটি আবাসিক হোটেলে রাখে তাকে।

তিনি জানান, সোমবার সকালে সুজন তাকে তার এক বড় ভাইয়ের বাড়িতে বেড়াতে নিয়ে যায়। সেখান থেকে বিকালের দিকে সুজন গোয়ালন্দ ঘাট (দৌলতদিয়া) রেলস্টেশনে নিয়ে গিয়ে তাকে বসিয়ে রেখে কৌশলে পালিয়ে যায়। এরপর স্থানীয়দের পরামর্শে তিনি গোয়ালন্দ ঘাট থানায় আশ্রয় নেন।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম জানান, ওই তরুণীকে কেন গোয়ালন্দে নিয়ে এসেছিল তা এখনো পরিষ্কার নয়। এছাড়া সুজনের কোনো ঠিকানাও ওই তরুণী জানাতে পারেনি। তরুণীর পরিবারকে খবর দেয়া হয়েছে। তারা আসলে ওই তরুণীতে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×