অবশেষে গণভবনে ডাক পেলেন ত্যাগী নেতা মোজাম্মেল হক

  শেরপুর প্রতিনিধি ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ২১:৪৫ | অনলাইন সংস্করণ

শেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক
শেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক

যুগান্তরে খবর প্রকাশের পর অসুস্থ শেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হককে গণভবনে ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মোজাম্মেল হকের চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রী অনুদান প্রদান করবেন বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় মোজাম্মেল হককে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন গণভবনে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের টেলিফোনিক বার্তার বরাত দিয়ে শেরপুরের জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব গণভবনে ওই সময়ে উপস্থিত থাকার জন্য বুধবার সকালে মোজাম্মেল হকের কাছে পত্র দিয়েছেন।

অসুস্থ মোজাম্মেল হকের বড় ছেলে মো. মাহাদী মোহসানুল হক লেমন বুধবার বিকালে এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

গত ৬ জানুয়ারি যুগান্তরে ‘প্রধানমন্ত্রীর চিকিৎসা সহযোগিতা চান শেরপুরের আওয়ামী লীগ নেতা’- শিরোনামে মোজাম্মেল হকের ছবিসহ একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই প্রকাশিত প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে ডাক পেলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক।

তার বড় ছেলে লেমন জানান, প্রধানমন্ত্রীর ডাক পাওয়ার পর বুধবার বিকালে অসুস্থ বাবা মোজাম্মেল হককে অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকার পথে রওনা হয়েছেন। মীরপুরে তার বোনের বাসায় রাত কাটানোর পর সকালে গণভবনে যাবেন।

শেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মোজাম্মেল হক দীর্ঘ ২১ বছর দায়িত্বপালন করেন। দেড় বছর ধরে অসুস্থ তিনি। অর্থ সংকটে অবহেলা অনাদরেই দিনাতিপাত করছিলেন। প্রায় দেড় বছর আগে তিনি লিভার জটিলতাসহ অন্যান্য রোগে আক্রান্ত হন।

একসময়ের অনর্গল যিনি বক্তব্য দিতেন এখন তিনি অসুস্থতার কারণে আগের মতো কথা বলতে পারেন না। হুইলচেয়ার ছাড়া চলতেও পারেন না। দুধ ও সামান্য জাওভাতসহ তরল জাতীয় খাবার ছাড়া কোনো কিছুই তিনি খেতে পারেন না।

রাজনীতি থেকে তিনি বেশ কয়েক বছর ধরে একেবারেই দূরে সরে আছেন। কেউ খোঁজ রাখেননি অনেক দিন। অবশেষে একসময়ের অসম সাহসী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সপরিবারে নিহত হওয়ার পর প্রতিবাদ সভা করতে গিয়ে কারাবরণকারী এ রাজনৈতিক নেতাকে গণভবনে ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রায় ৮০ বছর বয়স্ক এই নেতা শেরপুর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধকালীন সর্বদলীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সদস্য ছিলেন। ১৯৮৬ সাল থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ২১ বছর শেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বপালন করেছেন।

১৯৭৫ সালে জাতির পিতা ও তার পরিবারে সদস্যরা নিহত হওয়ার পর এর প্রতিবাদে সভা করার অপরাধে ১৭ মাস ময়মনসিংহ জেলা কারাগারের কারারুদ্ধ ছিলেন মোজাম্মেল হক।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×