‘ইঞ্জিনিয়ার কি ঘোড়ার ঘাস কাটে, বাধা দেয় না কেন?’

  নরসিংদী প্রতিনিধি ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:২৩ | অনলাইন সংস্করণ

নির্মাণাধীন বহুতল বাণিজ্যিক ভবন (ইনসেটে আজম সরকার)
নির্মাণাধীন বহুতল বাণিজ্যিক ভবন (ইনসেটে আজম সরকার)

নরসিংদীর মনোহরদী বাসস্ট্যান্ডে পৌরসভার অনুমোদন না নিয়েই অবৈধভাবে বহুতল বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ করছে। একই সঙ্গে ভবন নির্মাণে দখল করা হয়েছে সরকারি জমি। আর এই ক্ষেত্রে মানা হচ্ছে না ইমারত নির্মাণের কোনো আইন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পৌর কর্তৃপক্ষ।

জানতে চাইলে অভিযুক্ত আজম সরকার ভবন নির্মাণের অনুমোদনের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য জানাতে পারেনি। উল্টো দম্ভোক্তি করে বলেছেন, ‘ইঞ্জিনিয়ার কি ঘোড়ার ঘাস কাটে, বাধা দেয় না কেন?’

এর আগে আজম সরকারের বিরুদ্ধে ঐতিহ্যবাহী মনোহরদী পরিবহনের অফিস লুটপাট ও কাউন্টার ভাঙচুরের অভিযোগ উঠে। পার্শ্ববর্তী গাজীপুরের কাপাশিয়ার মরিয়ম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলম সরকারের কাছে আত্মীয়ের পরিচয় দিয়ে মনোহরদীতে তিনি এ অরাজকতা করছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মনোহরদী বাসস্ট্যান্ডের মিলন মিয়া নামে এক ব্যক্তির কাছ থেকে বায়নাপত্রে ৫ শতাংশ জমির মালিকানা নিয়েছেন আজম সরকার। ওই জমিতে তিনি গত দুই মাস ধরে ভবন নির্মাণের কাজ করছেন। ইতিমধ্যে ভবনের বেসমেন্টের কাজ শেষ হয়েছে। কিন্তু পৌর এলাকায় ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে ইমারত নির্মাণের আইন অনুযায়ী ভবনের সামনে ৫ ফুট ও বাকি সব দিকে ৩ ফুট জায়গা খালি রাখার বিধান থাকলেও তা মানা হয়নি। উল্টো সামনে সড়ক ও জনপথ বিভাগের জায়গা দখল করে ভবনের সিঁড়ি নির্মাণ করা হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, বাসস্ট্যান্ডের মূল সড়কে রাখা হয়েছে ভবনের নির্মাণসামগ্রী বালি, ইটের কণা ও বাঁশসহ নির্মাণসামগ্রী। ফলে সড়কে জনসাধারণের চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে। ভবনের নির্মাণকাজ করছেন শ্রমিকরা।

এদেরই একজন লাবলু মিয়া বলেন, ‘১০ তলা ফাউন্ডেশন দিয়ে বিল্ডিংটি নির্মাণ করা হচ্ছে। মালিক যেভাবে বলছে সেভাবেই বিল্ডিংয়ের কাজ করা হচ্ছে। সামনে সড়কের ওপর যে সিড়ি নির্মাণ করা হয়েছে তা টেম্পরালি ব্যবহারের জন্য।’

স্থানীয় কাউন্সিলর মাসুদ রানা বলেন, আজম সরকারের ভাব দেখে মনে হচ্ছে, তিনি মগের মুল্লুক পেয়েছেন। টাকার জোরে নিয়মনীতি উপেক্ষা করে ভবন নির্মাণ করতে দেয়া হবে না। প্রয়োজনে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ভবনের সম্পর্কে জানতে চাইলে মনোহরদী পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) মাহবুব আলম বলেন, শুনেছি আজম সরকার নামে এক ব্যক্তি বাসস্ট্যান্ডে বহুতল বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ করছে। কিন্তু ভবন নির্মাণে তারা পৌরসভায় নকশা অনুমোদনের কোনো আবেদন করেনি। কীভাবে করছে তা আমাদের জানা নেই। বিষয়টি আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।

মনোহরদী পৌরসভার মেয়র আমিনুর রশিদ সুজন বলেন, আইনের বাইরে যদি কেউ ভবন নির্মাণ করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×