‘ভিক্ষা করি জানলে ছেলেমেয়ে কষ্ট পাবে’

  চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২১:২৫ | অনলাইন সংস্করণ

পাবনা

জন্মের পর বাবা-মা তাদের ছেলের নাম রেখেছিলেন সাহেব আলী। আশা ছিল ছেলে বড় হয়ে পড়াশোনা শিখবে। ‘সাহেব’ হয়ে চাকরি করে সংসারের অভাব ঘোচাবে।

কিন্তু অর্থাভাবে পড়াশোনা হয়নি সাহেব আলীর। কিশোর বয়সে বাবা আলিমুদ্দিন প্রামাণিক মারা যাওয়ার পর সংসারের হাল ধরতে হয় তাকে। দিনমজুরি কাজ করে চালাতেন সংসার।

ভাগ্যের নির্মম পরিহাস, সেই সাহেব আলী শ্রমিক থেকে এখন ভিক্ষুক! ভিক্ষা করে মা জয়তুন খাতুন, স্ত্রী রমেছা খাতুন ও দুই সন্তান সোহাগ-সাথীর মুখে অন্ন তুলে দেন তিনি।

পাবনার চাটমোহর উপজেলার নিমাইচড়া ইউনিয়নের ধানকুনিয়া উত্তরপাড়া গ্রামে তার বাড়ি। একটি দুর্ঘটনায় সাহেব আলীকে হতে হয়েছে পঙ্গু! বাধ্য হয়ে শুরু করেন ভিক্ষা বৃত্তি! তবে ভিক্ষা করতে লজ্জা পান তিনি।

সাহেব আলীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে তার ভিক্ষুক হওয়ার কাহিনী। এলাকায় কৃষিকাজ করে যা আয় হতো সেই টাকা দিয়ে সংসার চলত না তার। সংসারে জেঁকে বসে অভাব-অনটন। একটু বেশি আয়ের আশায় প্রতিবেশী কয়েকজন যুবকের সঙ্গে ঈশ্বরদীতে একটি ধানের চালাতে শ্রমিকের কাজ নেন।

প্রায় ৮ বছর আগের ঘটনা। সেদিন দিনের আলো নিভু নিভু করছে। চাতালের পাশে ছাইয়ের স্তূপে আগুন ফেলতে গিয়ে পা পিছলে পড়ে যান সাহেব আলী। তুষের আগুনে দুই পায়ের বেশির ভাগ অংশ পুড়ে যায়।

গুরুতর আহতবস্থায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসার পর ডান পায়ের ক্ষত শুকালেও বাম পায়ে গভীর ক্ষত সৃষ্টি হয়। এরপর ফিরে আসেন বাড়িতে।

গরু-ছাগল বিক্রি ও ধারদেনা করে করে দীর্ঘ দুই বছর চিকিৎসা করান। কিন্তু বাম পায়ের হাঁটুর নিচে চামড়া জোড়া লেগে যায়। হয়ে পড়েন পঙ্গু! উপায়ান্তর না পেয়ে শুরু করেন ভিক্ষা বৃত্তি।

অশ্রুসিক্ত নয়নে সাহেব আলী এই প্রতিবেদককে বলেন, ‘ছেলেমেয়ে স্কুলে পড়াশোনা করে। তাদের সহপাঠীরা জানলে হয়তো বলবে ‘ভিক্ষুকের ছেলে’! ছেলেমেয়ে যেন জানতে না পারে সে জন্য খুব ভোরে বাড়ি থেকে বের হই, ফিরি অনেক রাতে। কারণ আমি ভিক্ষা করি জানলে ছেলেমেয়ে কষ্ট পাবে। বাড়িটুকু ছাড়া আমার কিছুই সম্বল নেই। ভিক্ষা করতে ভালো লাগে না। সরকারি সহযোগিতা পেলে আমি ভিক্ষা করব না। ব্যবসা করে সংসার চালাব।’

সহযোগিতার ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরকার অসীম কুমার যুগান্তরকে বলেন, ‘খেটে খাওয়া সুস্থ মানুষ থেকে পঙ্গু হওয়ার বিষয়টি অত্যন্ত কষ্টের। খোঁজখবর নিয়ে উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে তাকে সাহেব আলীকে পুনর্বাসন করা হবে।’

আরও পড়ুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×