মোরেলগঞ্জে প্রেম নিয়ে বিরোধ: মাদ্রাসা ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা
jugantor
মোরেলগঞ্জে প্রেম নিয়ে বিরোধ: মাদ্রাসা ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা

  মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধি  

১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৫:৪৯:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

কুপিয়ে হত্যা

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে প্রেম নিয়ে বিরোধের জেরে ইমন মোল্লা (১৭) নামে এক মাদ্রাসা ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষরা।

শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামের নুরানী মাদ্রাসা সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ইমন উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামের মৃত মামুন মোল্লার ছেলে। সে চন্ডীপুর দাখিল মাদ্রাসার দশম শ্রেণির ছাত্র।

এ ঘটনায় হত্যাকান্ডের মুল আসামি তানভিরসহ (২০) চার জনকে আটক করেছে পুলিশ।

অন্যরা হলো- একই গ্রামের আলমগীর শেখের মেয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থী জান্নাতি (১৫), চান্দু মোল্লার ছেলে সজিব (১৮) ও নিহত ইমনের বন্ধু চন্ডীপুর গ্রামের কুদ্দুস খানের ছেলে আসিব খান (১৭)।

চন্ডীপুর দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক সরোয়ার হোসেন ও ইমনের একাধিক প্রতিবেশী জানান, ওই গ্রামের জান্নাতির সঙ্গে আসিবের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। জান্নাতিদের বাড়িতে তার কয়েকজন আত্মীয় বেড়াতে আসে।

জান্নাতি ওই আত্মীয়ের ছেলেদের সঙ্গে কথা বলে। এই নিয়ে আসিব ও ইমনের সঙ্গে জান্নাতি ও তার ফুফাতো ভাইয়ের কথা কাটাকাটি হয়। পরে আসিব ও ইমন সেখান থেকে চলে যায়।

রাত ১০টার দিকে ইমন ও আসিব মাহফিল শুনতে যায়। এসময় মোবাইল ফোনে একটি কল পেয়ে তারা মাহফিল থেকে বের হয়ে আসে।

এ সময় কয়েকজন ইমনের বুকে ও হাতে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় ইমন।

মোরেলগঞ্জ থানার ওসি কেএম আজিজুল ইসলাম জানান, প্রেমঘটিত বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এক নারীসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে। এদের মধ্যে তানভির সরাসরি হত্যাকাণ্ডে জড়িত।

মোরেলগঞ্জে প্রেম নিয়ে বিরোধ: মাদ্রাসা ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা

 মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধি 
১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৩:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কুপিয়ে হত্যা
কুপিয়ে হত্যা। প্রতীকী ছবি

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে প্রেম নিয়ে বিরোধের জেরে ইমন মোল্লা (১৭) নামে এক মাদ্রাসা ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষরা। 

শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামের নুরানী মাদ্রাসা সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ইমন উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামের মৃত মামুন মোল্লার ছেলে। সে চন্ডীপুর দাখিল মাদ্রাসার দশম শ্রেণির ছাত্র। 

এ ঘটনায় হত্যাকান্ডের মুল আসামি তানভিরসহ (২০) চার জনকে আটক করেছে পুলিশ।

অন্যরা হলো- একই গ্রামের আলমগীর শেখের মেয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থী জান্নাতি (১৫), চান্দু মোল্লার ছেলে সজিব (১৮) ও  নিহত ইমনের বন্ধু চন্ডীপুর গ্রামের কুদ্দুস খানের ছেলে আসিব খান (১৭)। 

চন্ডীপুর দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক সরোয়ার হোসেন ও ইমনের একাধিক প্রতিবেশী জানান, ওই গ্রামের জান্নাতির সঙ্গে আসিবের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। জান্নাতিদের বাড়িতে তার কয়েকজন আত্মীয় বেড়াতে আসে। 

জান্নাতি ওই আত্মীয়ের ছেলেদের সঙ্গে কথা বলে। এই নিয়ে আসিব ও ইমনের সঙ্গে জান্নাতি ও তার ফুফাতো ভাইয়ের কথা কাটাকাটি হয়। পরে আসিব ও ইমন সেখান থেকে চলে যায়। 

রাত ১০টার দিকে ইমন ও আসিব মাহফিল শুনতে যায়। এসময় মোবাইল ফোনে একটি কল পেয়ে তারা মাহফিল থেকে বের হয়ে আসে। 

এ সময় কয়েকজন ইমনের বুকে ও হাতে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় ইমন। 

মোরেলগঞ্জ থানার ওসি কেএম আজিজুল ইসলাম জানান, প্রেমঘটিত বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে। 

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এক নারীসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে। এদের মধ্যে তানভির সরাসরি হত্যাকাণ্ডে জড়িত।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন