টেলিভিশন দেখতে গিয়ে শিশুর মৃত্যু, কাঁদলেন শিক্ষক-সহপাঠীরা!

  গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২২:৩৬ | অনলাইন সংস্করণ

সাথী আক্তার স্মরণে বিদ্যালয়ে শোকসভা ও দোয়া মাহফিল (ইনসেটে সাথী আক্তার)
সাথী আক্তার স্মরণে বিদ্যালয়ে শোকসভা ও দোয়া মাহফিল (ইনসেটে সাথী আক্তার)

টেলিভিশন দেখতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পর্শে নিহত সাথী আক্তার স্মরণে ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার কলতাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শোকসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

শোকসভায় সাথী আক্তারের বর্ণনা দিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন প্রিয় শিক্ষক। সহপাঠীকে হারিয়ে শোকাহত শিক্ষার্থীরাও কান্নায় ভেঙে পড়েন।

সহপাঠীদের সঙ্গে সাথী প্রতি শনিবারে এক দুই তিন-সিসিমপুরের গল্প বলত। শুক্রবার সেই গল্প বলার সাথীকে কেড়ে নেয় বিদ্যুৎ। সাথী আক্তার এ বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

ঝুমা আক্তার জানায়, ও আমাদের সবার প্রিয় ছিল। গল্প বলত, সুন্দর করে ক্লাসরুম পরিষ্কার করত। আমাদেরকে ক্লাসে সহযোগিতা করত।

স্মরণসভায় সভাপতিত্ব করেন প্রধান শিক্ষক মোর্শেদা খাতুন। সঞ্চালনা করেন সহকারী শিক্ষক মো. মহসিন মিয়া। বক্তব্য রাখেন সহকারী শিক্ষক নাজনীন সুলতানা, বিউটি আক্তার, এনি খানম, নাসরিন সুলতানা, রুপা আক্তার, মো. আশরাফুল ইসলাম, শিক্ষার্থী মো. হায়দার আলী, সুমা আক্তার, সাবিনা আক্তার, জুলহাস মিয়া প্রমুখ।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্র জানায়, বাংলাদেশ টেলিভিশনে শুক্রবার সকাল ১০টা ৫ মিনিটে প্রচারিত এক দুই তিন সিসিমপুর অনুষ্ঠান দেখতে যায় সাথী আক্তার। নিজেই বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পর্শ হয়ে মারা যায়। সে তারাকান্দা উপজেলার বিসকা গ্রামের আব্দুস সালাম ও ফরিদা বেগমের কন্যা। কলতাপাড়া ভাড়া বাসায় থাকত।

আরও পড়ুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×