দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটে আটকা সহস্রাধিক যান

  গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২১:১৬ | অনলাইন সংস্করণ

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটে আটকা সহস্রাধিক যান
দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটে আটকা সহস্রাধিক যান

ঘন কুয়াশার কারণে দেশের গুরুত্বপূর্ণ দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে শনিবার সকালের দিকে ৪ ঘণ্টার মতো ফেরি চলাচল বন্ধ থাকে। এতে করে উভয় পাড়ে নদী পারের অপেক্ষায় আটকা পড়ে সহস্রাধিক যানবাহন। ফেলে যাত্রী ও চালকরা দুর্ভোগের শিকার হন।

বিআইডব্লিউটিসি ও অন্যান্য সূত্রে জানা গেছে, শনিবার মাঝ রাত থেকে নদী এলাকায় কুয়াশা পড়তে থাকে। ভোর সোয়া ৪টার দিকে কুয়াশার ঘনত্ব বেড়ে গিয়ে দৃষ্টিসীমা শূন্যে নেমে আসে। কয়েক কোটি টাকা খরচ করে কথিত ফগ লাইট দিয়েও দূরের কোনো কিছু দেখা যাচ্ছিল না। একপর্যায়ে বাধ্য হয়ে দুর্ঘটনা এড়াতে কর্তৃপক্ষ ফেরি চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেন।

এ সময় বেশ কয়েকটা ফেরি যাত্রী ও যানবাহন লোড অবস্থায় নদীর বিভিন্ন এলাকায় নোঙর করতে বাধ্য হয়। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে কুয়াশার ঘনত্ব কমে এলে ধীরে ধীরে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হয়।

বিআইডব্লিউটিসির একটি সূত্র জানায়, ২৩, ২৪ ও ২৫ ফেব্রুয়ারি ফরিদপুরের আটরশি বিশ্ব জাকের মঞ্জিলে ৩ দিনব্যাপী বাৎসরিক ওরসে যোগ দিতে শত শত বাড়তি যানবাহন ঢাকা ও আশপাশের জেলাগুলো থেকে আসছে। যে কারণে পাটুরিয়া ঘাটে যানবাহনের চাপ অপেক্ষাকৃত বেশি।

এদিকে দীর্ঘ সময় ফেরি বন্ধ থাকায় উভয় ঘাট এলাকায় দূরপাল্লার শত শত নৈশকোচ আটকা পড়ে যাত্রীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হন। ফেরি চলাচল শুরু হলেও অপচনশীল পণ্যবাহী যানবাহনগুলো বন্ধ রেখে যাত্রীবাহী যানবাহনগুলো অগ্রাধিকার দিয়ে পার করাতে ঘাটের টার্মিনাল ও মহাসড়কজুড়ে ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান আটকা পড়তে থাকে।

এ অবস্থার মধ্যে দুপুরের পর থেকে দিনের দূরপাল্লার যাত্রীবাহী কোচগুলো আসতে শুরু করায় পণ্যবাহী ট্রাক ও কাভার্ডভ্যানের সারি ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে।

বিকাল ২টার দিকে দৌলতদিয়া মডেল হাইস্কুল এলাকায় মহাসড়কে আটকে থাকা ট্রাকচালক তমিজুল ইসলাম ও মিন্টু মিয়া জানান, তারা খুলনার বটিয়াঘাট এলাকা হতে এলপিজি গ্যাসবোঝাই করে শুক্রবার রাত ৮টার দিকে দৌলতদিয়া ঘাটে এসে ওই দিনের সিরিয়ালে আটকা পড়েছেন। শনিবার ভোরের দিকে কুয়াশায় ফেরি বন্ধ হয়ে যাওয়াতে আমাদের দুর্ভোগ আরও বেড়ে গেল। আজো হয়তো ফেরির নাগাল পাবো না।

তারা জানান, দালালদের সহায়তায় ফেরি পারের টিকিট পেয়েছি বটে। কিন্তু টিকেট প্রতি ৬০০ টাকা করে বেশি দিতে হয়েছে।

বেলা ৩টার দিকে কথা হয় সাতক্ষীরা থেকে আসা কিংফিসার পরিবহনের চালক সাইফুল ইসলাম ও একে ট্রাভেলস পরিবহনের চালক মোনায়েম হোসেনের সঙ্গে। তারা জানান, যাত্রীবাহী বাসগুলোকে অগ্রাধিকার দিলেও সিরিয়ালে পড়ে তারা প্রায় দেড় ঘণ্টা হলো আটকে আছেন। এতে যাত্রীরা ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। বেলা ৪টা নাগাদ দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়া ঘাট মিলে অন্তত সহস্রাধিক বিভিন্ন যানবাহন নদী পারের অপেক্ষায় মহাসড়ক ও টার্মিনালজুড়ে আটকে আছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট শাখার সহকারী ব্যবস্থাপক আবু আবদুল্লাহ জানান, কুয়াশায় ৪ ঘণ্টা ফেরি বন্ধ ছাড়াও আটরশিগামী বাড়তি যানবাহনের চাপে ঘাট এলাকায় দীর্ঘ সিরিয়ালের সৃষ্টি হয়েছে। নৌরুটে ১৭টি ফেরি চলছে। আটকে পড়া যানবাহনগুলোকে রাতের মধ্যেই পার করা সম্ভব হবে বলে আশা করছি।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×