চকরিয়ায় মাদ্রাসা নির্মাণের জন্য কবর খুঁড়ে লাশ উত্তোলন!

  চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি ০৭ মার্চ ২০১৯, ১৯:০৪ | অনলাইন সংস্করণ

কক্সবাজার

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের রিংভং ছগিরশাহ কাটা এলাকায় কবরস্থান থেকে এক শিশুর লাশ তুলে নেয়ার ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার সকালে ওই লাশ তুলে বস্তায় ভরে জঙ্গলের ঝুপঝাড়ে ঢুকিয়ে রাখা হয়।

এলাকাবাসী জানায় ছগিরশাহ কাটা দক্ষিণ পাহাড় পূর্ব পাড়া মসজিদ কমিটির লোকজন মসজিদের পাশে একটি নুরানি মাদ্রাসা নির্মাণের কথা বলে কবর খুঁড়ে এই লাশ তুলে নিয়েছে। লাশ তুলে নেয়ার ঘটনা এলাকায় জানাজানি হয়ে গ্রামবাসীর মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

ডুলাহাজারা মালুমঘাট রিংভং ছগিরশাহ কাটা এলাকার ট্রাকচালক সাইফুল ইসলাম জানান, গত ১১দিন আগে তার নবজাতক মো. ইব্রাহিম মারা যায়। শিশুটি মারা যাওয়ার পর জানাজা শেষে ওই মসজিদসংলগ্ন কবরস্থানে দাফন করা হয়। ওই মসজিদ পরিচালনা কমিটির লোক নুরুল আমিন, সুলতান ও মোহাম্মদ হোছন মেম্বার বৃহস্পতিবার সকালে কবর খঁড়ে লাশটি তুলে বস্তায় ভরে পাশের জঙ্গলের ঝোপঝাড়ে ঢুকিয়ে রাখেন।

বস্তা থেকে গন্ধ বের হওয়ায় এলাকাবাসী বিষয়টি জানতে পারলে চারদিকে হইচই পড়ে যায়। এ ঘটনায় গ্রামবাসীর মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়।

মসজিদ পরিচালনা কমিটির নুরুল আমিনের কাছ থেকে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, সেখানে একটি নুরানি মাদ্রাসা নির্মাণের কথা বলে কবর খুঁড়ে লাশটির খণ্ডিত অংশ তুলে নেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপরে স্থানীয় ইউপি সদস্য রফিক আহমদ লাশ তুলে নেয়ার ঘটনা নিশ্চিত করে বলেছেন, কবর খুঁড়ে শিশুর লাশটি তুলে নেয়ার সময় মসজিদ কমিটির লোকজন কাউকে অবহিত করেননি।

এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার ওসি মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীর কাছ থেকে জানতে চাইলে তিনি ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছেন বলে জানান।

আরও পড়ুন

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ১৬৪ ৩৩ ১৭
বিশ্ব ১৪,১১,৩৪৮৩,০০,৭৫৯৮১,০৪৯
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত