এক ব্রিজ ভেঙে ৪০ হাজার মানুষের চলাচল বন্ধ

  আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি ০৮ মার্চ ২০১৯, ২২:০৮ | অনলাইন সংস্করণ

ব্রিজ ভেঙে চলাচল বন্ধ
ব্রিজ ভেঙে চলাচল বন্ধ

বরগুনার আমতলী উপজেলার কুকুয়া ইউনিয়নের সুগন্ধী নদীর ওপর নির্মিত আয়রন ব্রিজটি বুধবার সন্ধ্যায় ভেঙে পড়েছে।

এতে দুটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ তিন ইউনিয়নের ১০ গ্রামের ৪০ হাজার মানুষের চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। দুর্ভোগে পড়েছে এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, ২০০৭-০৮ অর্থবছরে স্থানীয় প্রকৌশল বিভাগ কুকুয়া ইউনিয়নের কুতুবপুর গ্রামে সুগন্ধি নদীর ওপর এ আয়রন ব্রিজটি নির্মাণ করেন। বুধবার সন্ধ্যায় আকস্মিক একটি ইজিবাইকসহ ব্রিজটির মাঝখান থেকে ভেঙে নদীর মধ্যে পড়ে যায়। এতে চারজন আহত হয়।

এ ব্রিজটি দিয়ে আঠারগাছিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম গাজীপুর, হলদিয়ার উত্তর রাওঘা ও কুকুয়ার কৃষ্ণনগর গ্রামসহ ১০ গ্রামের জনসাধারণ ও পশ্চিম গাজীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং কুতুবপুর ফাজিল মাদ্রাসার ৩ শতাধিক শিক্ষার্থীসহ ইজিবাইজ, মোটরসাইকেল, অটোরিকশা চলাচল করে। ব্রিজটি ভেঙে যাওয়ায় জনসাধারণ ও যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

সবচেয়ে ভোগান্তিতে পড়েছে দুটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। ব্রিজটি ভেঙে যাওয়ায় তারা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ক্লাশ করতে যেতে পারছে না। এতে ব্যাহত হচ্ছে তাদের লেখাপড়া।

পশ্চিম গাজীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী মো. মাসুম বিল্লাহ, যুথী ও শেফালী বলে, ব্রিজটি ভেঙে যাওয়ায় এখন স্কুলে যেতে পারছি না।

কুতুবপুর ফাজিল মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী মরিয়ম, নাসরিন বলে, আমাদের বাড়ি পশ্চিম গাজীপুর গ্রামে। ব্রিজ ভেঙে যাওয়ায় এখন আমরা মাদ্রাসায় গিয়ে ক্লাশ করতে পারছি না।

মোটরসাইকেলচালক কবির ও অটোরিকশাচালক হাবিব মিয়া বলেন, আগে এ ব্রিজ পাড় হয়ে দ্রুত গাজীপুর ও হলদিয়া যেতাম। এখন ব্রিজটি ভেঙে যাওয়ায় ৩-৪ কিলোমিটার ঘুরে যেতে হয়।

পথচারী ইসমাইল জানান, এ ব্রিজটি দিয়ে তিনটি ইউনিয়নের ১০ গ্রামের হাজার হাজার জনসাধারণ চলাচল করেন।

কুকুয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যার মো. বোরহান উদ্দিন মাসুম তালুকদার জানান, খবর পেয়ে ভেঙে যাওয়া ব্রিজটি দেখেছি। স্থানীয় সরকার বিভাগের আমতলীর প্রকৌশলীর সঙ্গে কথা হয়েছে যত দ্রুত সম্ভব ব্রিজটি মেরামত করে দেবেন।

তিনি আরও বলেন, আপাতত ভেঙে যাওয়া ব্রিজটির পাশে একটি বিকল্প বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করে দেয়া হবে যা দিয়ে জনসাধারণ ও শিক্ষার্থীরা চলাচল করতে পারেন।

আমতলী উপজেলা প্রকৌশলী মো. নজরুল ইসলাম বলেন, ব্রিজ ভেঙে যাওয়ার কথা শুনে দেখে এসেছি। দ্রুত ব্রিজটি মেরামত করার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রকল্প পাঠানো হবে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×