সোর্সকে পিস্তল দিয়ে এসআইয়ের চাঁদাবাজি, অতঃপর...

  পূবাইল (গাজীপুর) প্রতিনিধি ১৩ মার্চ ২০১৯, ২০:৫০ | অনলাইন সংস্করণ

সোর্সকে পিস্তল দিয়ে এসআইয়ের চাঁদাবাজি, অতঃপর...
প্রতীকী ছবি

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের টঙ্গীতে সোর্সের হাতে পিস্তল দিয়ে টাকা আদায় করার অভিযোগে রেজাউল করিম নামে টঙ্গীর পশ্চিম থানার এক এসআইকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

বুধবার বিকাল ৩টায় প্রজ্ঞাপন জারি করে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) রিজার্ভ পুলিশ লাইনসে তাকে স্থানান্তর করা হয়। জিএমপি কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান তাকে প্রত্যাহার করেন।

সোর্স মোহাম্মদ আলীকে নিজের পিস্তল দিয়ে বিভিন্ন সময় সাধারণ নিরপরাধ মানুষকে মামলার ভয়ভীতি ও ইয়াবা ট্যাবলেট পকেটে ঢুকিয়ে টাকা আদায়ের অভিযোগে তাকে প্রত্যাহার করা হয়।

জিএমপির সহকারী কমিশনার আহসানুল হক বুধবার সকালে অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে তদন্ত রিপোর্ট জমা দিলে বিকালেই এসআই রেজাউল করিমকে প্রত্যাহার করা হয়।

সূত্র জানায়,সাবেক সরকারি জিনাত মিলের পেছনের কলোনির ৫৫নং ওয়ার্ড এলাকায় মুদি দোকানদার মিন্টু গত শুক্রবার এশার নামাজ পড়ে দোকানে বসেন। এ সময় টঙ্গী পশ্চিম থানার এসআই রেজাউল এসে তাকে বলেন, ‘ওসি স্যার আপনাকে সালাম দিয়েছেন এবং থানায় গিয়ে ওনার সঙ্গে দেখা করতে বলেছেন’। এ কথা বলার পর তাকে দোকান থেকে বের হয়ে আসতে বলা হয়। এ সময় দোকান থেকে বের হতে দেরি হওয়ায় সোর্স আলী পিস্তল নিয়ে দোকানে ঢুকে তাকে জোরপূর্বক বাইরে নিয়ে আসে এবং দোকানের শাটার বন্ধ করে তাকে থানায় নিয়ে যায়।

মিন্টুর স্ত্রী শারমিন বলেন, আমার স্বামীর অপরাধ জানতে চাওয়ায় পুলিশ আমার সঙ্গে চরম দুর্ব্যবহার করে- যা ভাষায় প্রকাশ করার নয়। পরে মিন্টুকে স্থানীয় বেক্সিমকো ওষুধ কারখানার সামনে নিয়ে হাতকড়া পরিয়ে আরও দু’জনের সঙ্গে রাখা হয়। এ সময় শারমিনের কাছে ১০ হাজার টাকা দাবি করেন এসআই রেজাউল। অন্যথায় তার স্বামীকে মিথ্যা মামলা দিয়ে জেলে পাঠানোর হুমকি দেন বলে অভিযোগ ওঠে।

টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে মিন্টুকে থানার কাছে একটি গলিতে নিয়ে অন্য আসামিদের সঙ্গে রাখা হয়। পরে রাত ১১টায় সোর্স আলীর মোবাইল নম্বরে দেড় হাজার টাকা পাঠালে মিন্টুকে মুক্তি দেয়া হয়।

এ ছাড়া গত রোববার একই এলাকার সাবেক ৫৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সেলিম হোসেনের কলেজপড়–য়া ছেলে সোহেলকে বাড়ির সামনে থেকে বিনা অপরাধে তুলে নেয়ার চেষ্টা করেন এসআই রেজাউল করিম ও সোর্স আলী।

এ সময় তার কাছে ৬০ হাজার টাকা দাবি করা হয় বলে জানা গেছে। অন্যথায় মাদক মামলায় জেলে পাঠানোর হুমকি দেয়া হয়। সোহেল প্রতিবাদ করায় তাকে বাড়ির সামনেই ফেলে বেধড়ক মারধর করা হয়। প্রতিবেশী ষাটোর্ধ্ব বৃদ্ধা হাজেরা বেগম প্রতিবাদ জানালে বৃদ্ধাকে গুলি করার জন্য এসআই রেজাউল নিজের পিস্তল সোর্স আলীর হাতে তুলে দেন। সোর্স আলী মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করার হুমকি দেয় এবং এসআই রেজাউল অশালীন ভাষায় গালি দিয়ে বলে ‘পিস্তলটা ওর...ভেতর ঢুকিয়ে দে।'

এ সময় আশপাশের লোকজন ক্ষুব্ধ হয়ে উঠলে অবস্থা বেগতিক দেখে সোর্স আলী ও এসআই রেজাউল পিস্তল উঁচিয়ে মোটরসাইকেলে করে দ্রুত স্থান ত্যাগ করে।

এসব বিষয়ে যোগাযোগ করলে এসআই রেজাউল করিম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, সোহেলকে সন্দেহজনক হিসেবে দেহ তল্লাশি করেছিলাম। কিন্তু তার কাছ থেকে কিছু পাওয়া যায়নি। তবে বিস্তারিত ঘটনাটি তিনি এড়িয়ে যান।

টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি এমদাদুল হক যুগান্তরকে বলেন, রেজাউলের বিরুদ্ধে এর আগে এমন কোনো অভিযোগ কেউ করেনি। বিষয়টা আমার জানাও ছিল না।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×