রাজশাহীতে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক উৎসব শুরু

  রাজশাহী ব্যুরো ১৭ মার্চ ২০১৯, ২২:৪৭ | অনলাইন সংস্করণ

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সাংষ্কৃতিক উৎসব উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা
বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সাংষ্কৃতিক উৎসব উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা

বর্ণাঢ্য ও বর্ণিল আয়োজনে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে রাজশাহীতে শুরু হলো ১০ দিনব্যাপী বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সাংষ্কৃতিক উৎসব।

রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় নগরভবনের গ্রিনপ্লাজায় উৎসব ও বই মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সদস্য সচিব কবি শেখ হাফিজুর রহমান।

সকাল ১০টায় উৎসব উপলক্ষ্যে সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের নেতৃত্বে নগরীর কুমারপাড়া মোড় থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়।

শোভাযাত্রাটি সাহেববাজার জিরোপয়েন্ট হয়ে সোনাদীঘির মোড় ঘুরে নিউ মার্কেটের সামনে দিয়ে নগরভবনের গ্রিনপ্লাজায় গিয়ে শেষ হয়।

শোভাযাত্রায় বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর প্রফেসর ড. আতিউর রহমান, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শাহীন আকতার রেনী, সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি ডা. আনিকা ফারিহা জামান অর্নাসহ মুক্তিযোদ্ধা, আদিবাসী, খেলোয়াড়, বিএনসিসি, স্কাউটস ও গার্লস গাইড, স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী, নৃত্যদল, সমাজের অন্যান্য প্রতিনিধি, স্থানীয় সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনসমূহের সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন।

এরপর নগরভবনের গ্রিন প্লাজায় জাতীয় পতাকা ও সিটি কর্পোরেশনের পতাকা উত্তোলন করা হয়। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন মেয়রসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ, রাসিক কাউন্সিলরবৃন্দ, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।

পরে অনুষ্ঠিত হয় মূল উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর প্রফেসর ড. আতিউর রহমান বলেন, দেশ স্বাধীনের পর সুবিবেচনাভিত্তিক কৃষি ও শিল্প নীতির আলোকে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশকে অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু অপশক্তি তাকে আমাদের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়ে গিয়েছিলো এবং আমরা অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নের পথ থেকে সরে এসেছিলাম। বহু বছর এবং বহু সংগ্রাম ও ত্যাগের পর আমরা আবার তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়ন অভিযাত্রার পথে আবার ফিরে আসতে পেরেছি। তিনি বলেন, দারিদ্র্য, রফতানি পণ্যে বৈচিত্রের অভাব, জনসম্পদের দক্ষতার ঘাটতির মতো কিছু চ্যালেঞ্জ থাকা সত্ত্বেও আমরা আশাবাদী যে একটি গতিশীল ও বর্ধিষ্ণু অর্থনীতির দেশ হিসেবেই আমরা অল্প সময়ের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী পালন করতে পারব।

তিনি বলেন, আমাদের সমাজ এবং অর্থনীতিকে আমরা একটা শক্ত ভিত্তির ওপর দাঁড় করাতে পেরেছি। এই শক্ত ভিত্তির ওপর দাঁড়িয়েই ব-দ্বীপ পরিকল্পনা ২১০০ এর বৃহত্তর প্রেক্ষাপটে ২০৩১ সালের মধ্যে উচ্চ-মধ্যম আয়ের দেশের মর্যাদা এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশের মর্যাদা অর্জনের যে স্বপ্ন প্রধানমন্ত্রী আমাদের দেখিয়েছেন তা বাস্তবায়ন করতে পারবো বলে আশা রাখি। তবে এজন্য অবশ্যই সামাজিক-রাজনৈতিক এবং আর্থিক খাতের স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে হবে। এই মহা স্বপ্ন বাস্তবায়ন সম্ভব হবে কেবলমাত্র অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়ন নিশ্চিত করার মাধ্যমেই।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হক, রাজশাহী-২ আসনের এমপি ফজলে হোসেন বাদশা, বিভাগীয় কমিশনার নুর উর রহমান, আরএমপি কমিশনার একেএম হাফিজ আক্তার, ভাষাসৈনিক গোলাম আরিফ টিপু, রাবির সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. আবদুল খালেক, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শাহীন আকতার রেনী। উৎসব উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক ভাষাসৈনিক আবুল হোসেন স্বাগত বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে কথা সাহিত্যিক হাসান আজিজুল হক ও ভাষাসৈনিক গোলাম আরিফ টিপুকে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন। এছাড়া চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিশুদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিরা।

প্রথম দিনের দ্বিতীয় অধিবেশনে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের গান, জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

প্রসঙ্গত, ১০ দিনের উৎসবে ভারত, নেপালসহ বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিবৃন্দ অংশ নিচ্ছেন। আগামী ২৬ মার্চ পর্যন্ত নানা আয়োজন রয়েছে উৎসবে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×