মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি ১৯ মার্চ ২০১৯, ২১:৩৪ | অনলাইন সংস্করণ

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে স্মারকলিপি জমা দিচ্ছেন নারায়ণগঞ্জের সচেতন নাগরিক সমাজ।
জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে স্মারকলিপি জমা দিচ্ছেন নারায়ণগঞ্জের সচেতন নাগরিক সমাজ। ছবি-যুগান্তর

সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াত আইভীর বিরুদ্ধে জামায়াত-বিএনপির সঙ্গে সখ্যতা ও নারায়ণগঞ্জকে অস্থিতিশীল করার অভিযোগ এনে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে স্মারকলিপি দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের সকল শ্রেণি পেশার প্রতিনিধিরা।

প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া ঐ স্মারকলিপিতে মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনী ও কলেজ ছাত্রী তনু হত্যাকাণ্ড নিয়ে মন্তব্য করে সরকারকে বিব্রত ও প্রশ্নবিদ্ধ করার অভিযোগও আনা হয়।

পাশাপাশি জেলার ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক পরিবার হিসেবে পরিচিত ওসমান পরিবার নিয়ে মেয়র আইভীর দেয়া অশালীন বক্তব্যেরও প্রতিবাদ জানানো হয়।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে দাখিল করা ঐ স্মারকলিপিতে স্বাক্ষর করেছে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, জেলা আইনজীবী সমিতি, ৬১ জন সরকারী আইন কর্মকর্তা, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ), শিক্ষক সমিতি, ইমাম সমিতি, জেলা ও ৫টি উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটি, জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ, জাতীয় ও স্থানীয় ব্যবসায়ী সংগঠন, সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়রসহ ২৪ জন কাউন্সিলর, জেলা পরিষদ, জেলা ক্রিড়া সংস্থা, নারায়ণগঞ্জ ক্লাব, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের ২২ জন চেয়ারম্যান, বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠন, পত্রিকা মালিক সমিতি, ব্যাংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন, বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনসহ ২১ শ্রেণির কয়েক হাজার মানুষ।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এই নারায়ণগঞ্জের সচেতন নাগরিক সমাজের ব্যানারে ঐ স্মারকলিপি জমা দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের চত্বরে নাগরিক সমাজের পক্ষে প্রেস ব্রিফিং ও স্মারকলিপি পাঠ করেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাড. হাসান ফেরদৌস জুয়েল।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরকারকে সরাসরি প্রশ্নবিদ্ধ করে সাগর-রুনী ও তনু হত্যাকাণ্ড নিয়ে মেয়র আইভীর বক্তব্যে আমাদেরও জিজ্ঞাসা, আসলে তিনি সাগর-রুনী ও তনু হত্যাকাণ্ড নিয়ে এমন কি জানেন? কোন সভ্য দেশে বিচারাধীন বিষয়ে কথা বললে তাকে আইনের আওতায় আনা হয়।

জুয়েল স্মারকলিপির বরাত দিয়ে বলেন, যেখানে প্রধানমন্ত্রী মহান জাতীয় সংসদে আপনার বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর ও স্বাধীনতা পদকে ভূষিত (মরণোত্তর) প্রয়াত একেএম সামসুজ্জোহা ও ঐতিহ্যবাহী ওসমান পরিবারের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ গ্রহন এবং ৭৫’পরবর্তী সময়ের ভূমিকা নিয়ে যেভাবে বর্ণনা দিয়েছিলেন, তাতে নারায়ণগঞ্জবাসী গর্বিত ও সম্মানিত হয়েছে। সেখানে মেয়র আইভী ক্রমবদ্ধভাবে পুরো ওসমান পরিবারকে খুনী পরিবার আখ্যা দিয়ে চলেছেন। তার এসব বক্তব্যের দ্বায়ভার নারায়ণগঞ্জবাসী নিবে না।

তিনি বলেন, এসব ঘটনা ও আইভীর বক্তব্য প্রমাণ করে আওয়ামী লীগে জামায়াতের এজেন্ট কে বা কারা। জামায়াতের আমীরের দেয়া সেই জবানবন্দির প্রতিটি কথাই মিলে যাচ্ছে তার কর্মকাণ্ডে। আমরা কারও পক্ষে বা বিপক্ষে নই। আমরা সাদাকে সাদা, কালোকে কালো বলতে চাই। কিন্তু উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে আমরা লজ্জিত, দুঃখিত ও শঙ্কিত। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করা আমাদের দায়িত্ব ও পবিত্র কর্তব্য মনে করছি এবং তার হস্তক্ষেপ কামনা করেছি। আমাদের এই স্মারকলিপি প্রমাণ করে পুরো নারায়ণগঞ্জের সুশীল সমাজ ও সকল শ্রেণি পেশার মানুষ আইভীর কার্যকলাপের বিরুদ্ধে একাট্টা হয়েছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ বাদল, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা, জেলা পিপি অ্যাড.ওয়াজেদ আলী খোকন, বাংলাদেশ হোসিয়ারী সমিতির সভাপতি নাজমুল আলম সজল, সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র মতিউর রহমান মতি, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, স্বাচিপের সাধারণ সম্পাদক ডা. দেবাশীষ রায়, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মহসিন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম সম্পাদক ইব্রাহীম চেঙ্গিস প্রমুখ।

এদিকে সকালে জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া ওই স্মারকলিপি গ্রহণ করে বলেন, ‘এ স্মারকলিপিটি প্রধানমন্ত্রীর কাছে যথাযথ নিয়মেই প্রেরণ করা হবে।’

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×