দেওয়ানগঞ্জে কাজী আসাদুজ্জামান লাইব্রেরি উদ্বোধন ২৯ মার্চ

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৩ মার্চ ২০১৯, ২০:৪৫ | অনলাইন সংস্করণ

ফাইল ছবি
জিলবাংলা সুগার মিলস। ফাইল ছবি

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার জিলবাংলা সুগার মিলস উচ্চ বিদ্যালয়ে একটি অত্যাধুনিক লাইব্রেরী উদ্ভোধন হতে যাচ্ছে। স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা শিক্ষকদের একজন কাজী আসাদুজ্জামানের নামে ‘কাজী আসাদুজ্জামান লাইব্রেরি’ আগামী ২৯ মার্চ লাইব্রেরি উদ্ভোধন করবেন স্কুলের কৃতি ছাত্র বিসিকের পরিচালক (যুগ্মসচিব) মাহবুবুর রহমান মুকুল।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সরকারের সাবেক সচিব ড. সৈয়দ নকীব মুসলিম।

জিলবাংলা চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক(এমডি)এ এস এম মুতিউল্লাহ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সম্মানীয় অতিথি হিসেবে থাকবেন দেওয়ানগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(এএসপি) মোসতাক সরকার, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) গোলাম মোস্তফা ও পৌরসভার মেয়র শাহনেওয়াজ শাহানশাহ।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম শনিবার যুগান্তরকে জানান, লাইব্রেরিটির যাবতীয় ব্যয় বহন করেছে স্কুলের প্রতিষ্ঠাকালীন শিক্ষক কাজী আসাদুজ্জামান-এর পরিবার। তার স্মৃতি স্মরণে রাখতে তারই সন্তান ও স্কুলের সাবেক ছাত্র কাজী কাইয়ুম শিশির এ উদ্যোগ গ্রহন করেন।

স্কুলে আর কোন লাইব্রেরি না থাকায় নতুন এই লাইব্রেরি চালু হলে স্কুলের শিক্ষক, ছাত্র ও অভিভাবকদের জ্ঞান পিপাসা কিছুটা হলেও মিটবে।

লাইব্রেরিটি উদ্বোধনের পর তা স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এমন মহৎ উদ্যোগ নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান স্কুলের প্রধান শিক্ষক।

কাজী আসাদুজ্জামান লাইব্রেরির মূল উদ্যোক্তা কাজী কাইয়ুম শিশির যুগান্তরকে বলেন, তার বাবা কাজী আসাদুজ্জামান একজন নামকরা শিক্ষক ছিলেন।

১৯৮৮ সালে তিনি মারা যান। তার স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রায় ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে আধুনিক এই লাইব্রেরিটি নির্মাণ করা হয়েছে। তার পিতা কাজী আসাদুজ্জামানের জš§ জামালপুর জেলার ইসলামপুর উপজেলার কুলকান্দীর বিখ্যাত কাজী পরিবারে।

মহান মুক্তিযুদ্ধে তার অবদানের জন্য ১৯৮১ সালে জামালপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল কর্তৃক সম্মাননা সনদ দেয়া হয়।

১৯৫৮ সালে প্রতিষ্ঠিত জিল পাক সুপার মিল (পরবর্তীতে জিল বাংলা) প্রতিষ্ঠার পর ১৯৬৩ সালের ৩ মার্চ জিলবাংলা চিনিকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা শুরু করেন। তিনি একজন ভাল ফুটবলার ও নাট্যকার ছিলেন। ১৯৮৬ সালে চাকরি থেকে অবসর নেয়ার পর ১৯৮৮ সালে তিনি মারা যান।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×