বনানী ট্রাজেডি: দরজা ভেঙেও বেরোতে পারেননি আবির

  লালমনিরহাট প্রতিনিধি ৩০ মার্চ ২০১৯, ০৫:২০ | অনলাইন সংস্করণ

আবিরের লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স পাটগ্রাম পৌরশহরের কলেজ পাড়ার বাড়িতে পৌঁছলে ভিড় করেন অসংখ্য মানুষ
আবিরের লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স পাটগ্রাম পৌরশহরের কলেজ পাড়ার বাড়িতে পৌঁছলে ভিড় করেন অসংখ্য মানুষ

বনানীর এফআর টাওয়ারে ১৬ তলায় শেয়ার বাজার লেনদেনকারী প্রতিষ্ঠান মিকা সিকিউরিটিজ লিমিটেডের নির্বাহী আনজির সিদ্দিকী আবির (২৪)।

টাওয়ারে যখন আগুন লাগে, তখন ওয়াশরুমে (শৌচাগারে) ছিলেন তিনি। আগুন লাগার খবর পেয়ে মুহূর্তেই প্রতিষ্ঠানের ১৯ কর্মী তাড়াহুড়ো করে বের হয়ে যান। অফিসের দরজা বাইরে থেকে লক (তালাবদ্ধ) করে যান।

ওয়াশরুম থেকে বেরিয়ে আবির দেখেন সহকর্মীরা কেউ নেই, দরজা বন্ধ। ফোন দেন সহকর্মীদের। তারা আগুনের তথ্য জানিয়ে দরজা ভেঙে বের হয়ে আবিরকে উপরে যেতে বলেন। বহু চেষ্টায় একা একা দরজা ভেঙেছিলেনও তিনি। এরপর থেকে তার মোবাইল ফোন বন্ধ। পরে ১৩ তলায় সিঁড়িতে লাশ মেলে তার।

আবিরের সহকর্মীদের বরাত দিয়ে এ তথ্য দিয়েছেন তার চাচা মোস্তাফিজুর রহমান।

তিনি বলেন, সহকর্মীদের ধারণা, ছাদে যাওয়ার চেষ্টা করে ধোঁয়ার কারণে না পেরে নিচে নামতে শুরু করে আবির। তখন শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মারা যান তিনি।

শুক্রবার বিকালে আবিরের লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স পাটগ্রাম পৌরশহরের কলেজ পাড়ার বাড়িতে পৌঁছলে পড়ে যায় কান্নার রোল। কিছুক্ষণের মধ্যে সে খবর ছড়িয়ে পড়ে পাটগ্রামজুড়ে। ওই বাড়িতে ভিড় করতে থাকেন অসংখ্য মানুষ।

বাদ আসর পাটগ্রাম সরকারি কলেজ মাঠে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। আবির পৌর শহরের কলেজ পাড়ার বাসিন্দা পাথর ব্যবসায়ী ও আওয়ামী লীগ নেতা আবু বক্কর সিদ্দিক বাচ্চুর ছেলে। তার মা তাসরিমা খানম পাটগ্রাম মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

আবির ২০০৯ সালে পাটগ্রাম টিএন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করে ভর্তি হয় ঢাকার সেন্ট যোশেফ কলেজে। সেখানে থেকে এইচএসসি পাস করার পর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ শেষ করে যোগ দেয় মিকা সিকিউরিটিজে।

আবির সর্বশেষ বাড়িতে এসেছিলেন ১০ মার্চ অনুষ্ঠিত প্রথম ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে। তিনি চাচাতো ভাই উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন লিপুর হয়ে প্রচারে অংশ নেন।

প্রসঙ্গত, বনানীর এফ আর টাওয়ারে বৃহস্পতিবার দুপুরে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। ভবনের নবম তলায় আগুনের সূত্রপাত। পরে ছড়িয়ে পড়ে ২৩ তলা ভবনের বেশ কয়েকটি তলায়। প্রায় সাড়ে ছয় ঘণ্টা চেষ্টার পর সন্ধ্যা ৭টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয় ফায়ার সার্ভিস।

ভয়াবহ এই আগুনে ২৫ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাদের লাশও বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। আহত অন্তত ৭৩ জন রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বনানীর অগ্নিকাণ্ডের এই ঘটনায় সারা দেশে মানুষ শোকাহত। নিহতদের পরিবারে চলছে শোকের মাতন।

ঘটনাপ্রবাহ : বনানীতে এফআর টাওয়ারে আগুন

আরও
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×