চৌহালীর সেই মতিন চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশ : ০১ এপ্রিল ২০১৯, ২২:৪৫ | অনলাইন সংস্করণ

  চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি

আহত নারী ইউপি সদস্য আলেয়া খাতুন। যুগান্তর

সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার উমরপুর ইউনিয়ন পরিষদের নারী সদস্য আলেয়া খাতুনকে মারপিট করার ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল মতিন মণ্ডলসহ তিনজনকে আসামি করে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে সিরাজগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেন নারী ইউপি সদস্যের ছেলে মিলন পাশা।

আদালতের বিচারক মামলাটি এজাহারভুক্ত করতে চৌহালী থানার ওসিকে আদেশ দিয়েছেন।

মামলার আসামিরা হলেন উমরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল মতিন মণ্ডল, ইউপি সদস্য আরফান আলী ও হেলাল উদ্দিন লালন।

মামলায় বাদীপক্ষের আইনজীবী আবদুর রউফ পান্না মামলার দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মামলার আরজি সূত্রে জানা যায়, ভিজিডি কার্ডের ভাগবাটোয়ারা নিয়ে গত বুধবার দুপুরে চৌহালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে উমারপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল মতিন মণ্ডলের সঙ্গে নারী সদস্য আলেয়া খাতুনের বাগ্বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে চেয়ারম্যান ক্ষুব্ধ হয়ে নারী সদস্যকে ধারালে অস্ত্র ও লোহার রড দিয়ে মারপিট করেন। এতে নারী সদস্যের বাম হাত ভেঙে যায় এবং কানের লতি ছিঁড়ে যায়।

এ সময় স্থানীয়রা আলেয়া খাতুনকে দ্রুত উদ্ধার করে প্রথমে চৌহালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে টাঙ্গাইলের নাগরপুর হাসপাতাল ও সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মারপিটের ঘটনায় চেয়ারম্যানকে সহযোগিতা করেন ইউপি সদস্য আরফান আলী ও হেলাল উদ্দিন লালন।

এ ঘটনায় নারী ইউপি সদস্য আলেয়া খাতুনের ছেলে উমারপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মিলন পাশা বাদী হয়ে ইউপি চেয়ারম্যানসহ তিন জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।