ভূঞাপুরে নৌকার কাজ না করায় আ’লীগ সভাপতিকে মারধর

  ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি ০২ এপ্রিল ২০১৯, ১৭:৪৮ | অনলাইন সংস্করণ

ভূঞাপুরে নৌকার কাজ না করায় মাধরের ঘটনায় আহত দুইজন
ভূঞাপুরে নৌকার কাজ না করায় মাধরের ঘটনায় আহত দুইজন

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকার পক্ষে কাজ না করায় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতিসহ বিদ্রোহী প্রার্থীর দুই নেতাকে মারধর করে গুরুতর আহত করার ঘটনা ঘটেছে।

আহত দুজন হলেন, পৌরসভার ফসলান্দি গ্রামের হযরত আলী খানের ছেলে ও ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল মান্নান (৪২) এবং উপজেলার রুহুলী গ্রামের আবু হানিফ মণ্ডলের ছেলে আওয়ামী লীগ কর্মী আবদুস সামাদ (৩৮)। তাদের দুজনকে ভূঞাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় ইউএনওর কার্যালয়ে সামনে আবদুল মান্নানের ওপর নৌকার কর্মী-সমর্থকরা হামলা চালায়।

মঙ্গলবার উপজেলার গোবিন্দাসীর ছাগলহাটির সামনে মীম মেডিকেল হলের মালিক আবদুস সামাদের ওপর হামলা চালানো হয়। পরে তার দোকান ভাঙচুর করা হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোটরসাইকেল প্রতীকে কাজ করেন পৌরসভার ফসলান্দির ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল মান্নান। এ জন্য তাকে ইউএনওর কার্যালয়ের সামনে বিজয়ী চেয়ারম্যান আবদুল হালিম, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আবদুল হামিদ ভোলা, তাহেরুল ইসলাম তোতার উপস্থিতিতে মারধর করা হয়। পরে তাকে আহতবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

অন্যদিকে মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার গোবিন্দাসীর ছাগলহাটি এলাকায় মীম মেডিকেল হলের মালিক আবদুস সামাদের ওপর হামলা চালায় নৌকার কর্মী-সমর্থকরা।

আহত আব্দুল মান্নান জানান, বাড়ি থেকে উপজেলা পরিষদের দিকে যাওয়ার সময় হামলার স্বীকার হতে হয়। এ সময় আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল হামিদ ভোলা, তাহেরুল ইসলাম তোতা, মাসুদুল হক টুকু, পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবদুর রাজ্জাক এবং জসিমসহ কয়েকজন এলোপাতাড়িভাবে মারধর করে। পরে অজ্ঞান হয়ে পড়লে লোকজন সেখান থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

মীম মেডিকেলের মালিক আবদুছ সামাদ জানান, নৌকার পক্ষে কাজ না করায় গোবিন্দাসী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইকরাম উদ্দিন তারা মৃধার কর্মী-সমর্থকরা হামলা চালায় দোকানে। পরে দোকানপাট ভাঙচুরসহ আমাকে ব্যাপক মারধর করা হয়।

ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত ফার্মাসিস্ট এমএ রকিব জানান, দুজনই গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক তাহেরুল ইসলাম তোতা জানান, চেয়ারম্যান আবদুল হালিমসহ আমরা কয়েকজন পরিষদে যাচ্ছিলাম। এ সময় আবদুল মান্নান চেয়ারম্যানের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন। এ সময় সেখানে উপস্থিত অজ্ঞাত দুজনের সঙ্গে হালকা ধাক্কাধাক্কি হওয়ার পরে মান্নানকে সেখান থেকে সরিয়ে দেয়া হয়।

ভূঞাপুর থানার ওসি রাশিদুল ইসলাম জানান, দুজনকে মারধরের ঘটনা জানার পরই হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঘটনাপ্রবাহ : উপজেলা নির্বাচন ২০১৯

আরও
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×