বরগুনায় দ্বিতীয় দিনেও আতঙ্কে বিদ্যালয়ে আসেনি শিক্ষার্থীরা

  আমতলী ও তালতলী প্রতিনিধি ০৮ এপ্রিল ২০১৯, ২১:৫৮ | অনলাইন সংস্করণ

প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনের ছাদের ভিম ধসে পড়েছে।
প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনের ছাদের ভিম ধসে পড়েছে। ছবি সংগৃহীত

বরগুনার তালতলী উপজেলার ছোটবগী পিকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনের ছাদের ভিম ধসে শিক্ষার্থী হতাহতের ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছেন দুটি তদন্ত টিম। সোমবার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ও বরগুনা জেলা প্রশাসনের তদন্ত টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। দ্বিতীয় দিনেও আতঙ্কে বিদ্যালয়ে আসেনি কোনো শিক্ষার্থী।

উপজেলার ছোটবগী পিকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শনিবার দ্বিতীয় শিফটের ক্লাস চলাকালীন সময়ে ভবনের ছাদ ধসে মানসুরা নামের এক ছাত্রী নিহত ও সাদিয়া, ইসমাইল, রুমা রোজমা ও শাহীনসহ ৯ শিক্ষার্থী আহত হয়।

এ ঘটনায় রোরবার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালক মো. সাবের হোসেনকে প্রধান করে দুই সদস্যের একটি এবং বরগুনা জেলা প্রশাসন এসিডি (শিক্ষা) মো. মাহবুব আলমকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন।

সোমবার দুটি তদন্ত টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। দুটি তদন্ত কমিটির সদস্য মো. মাহবুবুর রশীদ, উপসচিব বিদ্যালয়-১, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়, এলজিইডি’র বরগুনা নির্বাহী প্রকৌশলী এএসএম কবীর, বরগুনা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এমএম মিজানুর রহমান, তালতলী ইউএনও দীপায়ন দাশ শুভ ও ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকতা পুলক চন্দ্র রায় বিদ্যালয় ভবন পরিদর্শন, সুশীল সমাজের লোকজন, ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য, শিক্ষক, নিহত মানসুরার বাবা নজির তালুকদার, বিদ্যালয় অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করেছেন। তদন্ত টিম দুটি সোমবার সকালে ৯টায় ঘটনাস্থলে আসেন।

এ সময় তালতলী উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি রেজবিউল কবির জোমাদ্দার ও সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান মো. তৌফিকুজ্জামান তনু তদন্ত টিমকে সহযোগিতা করেছেন।

বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী আমেনা আক্তার উম্মি ভবনের ছাদ ধসে পড়ার বর্ণনা দিয়ে তদন্ত টিমকে বলেন, যত দিন পর্যন্ত বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মাণ করা না হবে, তত দিন পর্যন্ত বিদ্যালয়ে কোনো শিক্ষার্থী আসবে না। তদন্ত টিম উম্মিকে আশ্বস্ত করেছেন দ্রুত সময়ের মধ্যে ওই বিদ্যালয়ে একটি নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে।

তালতলী উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক ছোটবগী ইউপি চেয়ারম্যান মো. তৌফিকুজ্জামান তনু বলেন, দুটি তদন্ত টিম তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করেছেন। এছাড়া ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের নির্মাণসামগ্রী দিয়ে কাজ করায় এবং প্রকৌশল বিভাগ কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার কারণে এ ঘটনা ঘটেছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×