বান্দরবানে বর্ণাঢ্য আয়োজনে পহেলা বৈশাখ উদযাপিত
jugantor
বান্দরবানে বর্ণাঢ্য আয়োজনে পহেলা বৈশাখ উদযাপিত

  বান্দরবান প্রতিনিধি  

১৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১:৫০:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

পহেলা বৈশাখ উদযাপন

বর্ণাঢ্য আয়োজনে বান্দরবানে পহেলা বৈশাখ উদযাপিত হয়েছে।

রোববার সকালে পার্বত্য জেলা পরিষদ ও প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে স্থানীয় রাজারমাঠ থেকে বাংলা নববর্ষ বরণের বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়।

শোভাযাত্রার নেতৃত্ব দেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।

শোভাযাত্রায় এ অঞ্চলের পাহাড়ি-বাঙালিসহ ১৪টি জনগোষ্ঠীর তরুণ-তরুণী, শিশু-কিশোর এবং নারী-পুরুষেরা নিজস্ব পোষাকে ভিন্ন ভিন্ন সাজে ব্যানার, ফেষ্টুন, প্ল্যাকার্ড নিয়ে অংশ নেয়। শোভাযাত্রাটি শহরের গুরুত্বপূর্ন সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে।

পরে রাজারমাঠে পহেলা বৈশাখের মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান নাচে-গানে মাতিয়ে তোলেন পাহাড়ি-বাঙালি বিভিন্ন বয়সের শিল্পীরা।

এছাড়াও আদর্শ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে বাঙালির ঐতিহ্যবাহী খাবার পান্তা, মাছ, আলুভর্তা ভাতের আয়োজন চলে।

পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেন, পাহাড়ে উৎসব মানে পাহাড়ি-বাঙালির মিলন মেলা। সকলে একসঙ্গে মিলেমিশে একাকার।

নিজস্ব সংস্কৃতি এবং কৃষ্টি কালচারগুলোর সঙ্গে আগামী প্রজন্মকে পরিচিত করতে আগামীতে পহেলা বৈশাখে দুদিনব্যাপী মেলা আয়োজনের পরামর্শ দেন মন্ত্রী।

বান্দরবানে বর্ণাঢ্য আয়োজনে পহেলা বৈশাখ উদযাপিত

 বান্দরবান প্রতিনিধি 
১৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১:৫০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পহেলা বৈশাখ উদযাপন
পহেলা বৈশাখ উদযাপন। ছবি: যুগান্তর

বর্ণাঢ্য আয়োজনে বান্দরবানে পহেলা বৈশাখ উদযাপিত হয়েছে। 

রোববার সকালে পার্বত্য জেলা পরিষদ ও প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে স্থানীয় রাজারমাঠ থেকে বাংলা নববর্ষ বরণের বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। 

শোভাযাত্রার নেতৃত্ব দেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। 

শোভাযাত্রায় এ অঞ্চলের পাহাড়ি-বাঙালিসহ ১৪টি জনগোষ্ঠীর তরুণ-তরুণী, শিশু-কিশোর এবং নারী-পুরুষেরা নিজস্ব পোষাকে ভিন্ন ভিন্ন সাজে ব্যানার, ফেষ্টুন, প্ল্যাকার্ড নিয়ে অংশ নেয়। শোভাযাত্রাটি শহরের গুরুত্বপূর্ন সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে। 

পরে রাজারমাঠে পহেলা বৈশাখের মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান নাচে-গানে মাতিয়ে তোলেন পাহাড়ি-বাঙালি বিভিন্ন বয়সের শিল্পীরা। 

এছাড়াও আদর্শ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে বাঙালির ঐতিহ্যবাহী খাবার পান্তা, মাছ, আলুভর্তা ভাতের আয়োজন চলে।

পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেন, পাহাড়ে উৎসব মানে পাহাড়ি-বাঙালির মিলন মেলা। সকলে একসঙ্গে মিলেমিশে একাকার। 

নিজস্ব সংস্কৃতি এবং কৃষ্টি কালচারগুলোর সঙ্গে আগামী প্রজন্মকে পরিচিত করতে আগামীতে পহেলা বৈশাখে দুদিনব্যাপী মেলা আয়োজনের পরামর্শ দেন মন্ত্রী।

 
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন