ছাত্রলীগ নেতাকে কোপাল সম্পাদক, পুলিশ কর্মকর্তাও আহত

প্রকাশ : ১৭ এপ্রিল ২০১৯, ২২:৩৫ | অনলাইন সংস্করণ

  মাগুরা প্রতিনিধি

জুয়ার বোর্ড তুলতে গিয়ে হামলার শিকার এএসআই শরিফুল হাসপাতালে ভর্তি

মাগুরার শ্রীপুরে স্কুল মাঠে বসানো জুয়ার বোর্ড তুলতে গিয়ে একজন পুলিশ কর্মকর্তা হামলার শিকার হয়েছেন।

আর পুলিশকে খবর দেয়ার অভিযোগে রুবেল মাহমুদ নামে এক ছাত্রলীগ নেতাকে তারই দলের সাধারণ সম্পাদক কুপিয়ে জখম করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

এলাকাবাসী জানায়, প্রতি বছর শ্রীপুর উপজেলার কুপুড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে বৈশাখী মেলার আয়োজন হয়ে থাকে। কিন্তু এবার আয়োজিত মেলায় কাদিরপাড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক নেপচুন বিশ্বাসের তত্ত্বাবধানে জুয়ার বোর্ড বসানো হয়।

সংবাদটি জানতে পেরে এএসআই শরিফুলের নেতৃত্বে নাকোল ফাঁড়ি পুলিশের একটি দল বুধবার সন্ধ্যায় স্কুল মাঠ থেকে জুয়ার বোর্ড তুলতে যায়। এ সময় ছাত্রলীগ নেতা নেপচুনের নেতৃত্বে স্থানীয় ৮-১০ জন যুবক পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এতে লাঠির আঘাতে পুলিশ কর্মকর্তা শরিফুলের হাতের মাংস উঠে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঘটনার সময় সেখানে অবস্থান করছিলেন একই ইউনিয়নের ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রুবেল মাহমুদ। সে পুলিশকে জুয়ার বোর্ডের খবর জানিয়েছে সন্দেহে নেপচুন ধারালো ড্যাগার তার ওপর হামলা চালায়।

এ সময় বাধা দিতে গেলে তার এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছোট ভাই সোহেল রানাকেও কুপিয়ে জখম করে। ঘটনার পর আহত দুই ভাইকে দ্বারিয়াপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রুবেল মাহমুদ বলেন, নেপচুনের নেতৃত্বে সোহাগ, মননু, সুরুজসহ অন্তত ১০ জন আমার ওপর ড্যাগার নিয়ে হামলা করে। এ সময় বাধা দেয়ায় তারা আমার বাবা আইয়ুব হোসেন ও ছোট ভাইয়ের ওপরও হামলা করে। ছোট ভাই সোহেল রানাকে কুপিয়ে জখম করেছে আর লাঠির আঘাতে বাবার হাতের একটি আঙুল ভেঙে গেছে।

হামলার বিষয়ে অভিযানে অংশ নেয়া এএসআই শরিফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। ঘটনাস্থল থেকে ড্যাগারসহ ছাত্রলীগ নেতা নেপচুন এবং জুয়ার বোর্ড পরিচালনাকারী নাজমুল নামে দুজনকে আটক করা হয়েছে বলে তিনি জানান।