পা কেটে নেয়া সেই স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা বহিষ্কার

  বাঞ্ছারামপুর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি ২২ এপ্রিল ২০১৯, ০৩:০৯ | অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার রূপসদী গ্রামে টেঁটাবিদ্ধ করে কালা মিয়ার পা কেটে নিয়ে যাওয়া সেই স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আবুল বাশারকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

শনিবার রাতে জরুরি এক সভা ডেকে বাঞ্ছারামপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ আবুল বাশারকে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

এছাড়া আবুল বাশারকে প্রধান আসামি করে ১৫ জনের নামে বাঞ্ছারামপুর মডেল থানায় রোববার একটি মামলা দায়ের করেছেন কালা মিয়ার স্ত্রী সালমা আক্তার।

রোববার বিকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

জানা গেছে, পূর্বশত্রুতার জের ধরে গত শুক্রবার বিকালে বাঞ্ছারামপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি আবুল বাশার ও তার লোকজন উপজেলার রূপসদী গ্রামের কালা মিয়া এবং তার ছেলেকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে টেঁটাবিদ্ধ করে। পরে কালা মিয়ার ডান পায়ের হাঁটুর নিচের অংশ কেটে নিয়ে যায় ও তার ছেলে বিপ্লব মিয়ার দুই পায়ের রগ কেটে দেয়।

গুরুতর আহত অবস্থায় কালা মিয়া তার ছেলে বিপ্লব মিয়াকে বাঞ্ছারামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। বর্তমানে বাবা-ছেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

রোববার বিকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন, সহকারী পুলিশ সুপার (ডিএসবি) আলাউদ্দিন চৌধুরী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নবীনগর সার্কেল চিত্ত রঞ্জন পাল ও বাঞ্ছারামপুর মডেল থানার ওসি মো. সালাহ উদ্দিন চৌধুরী রূপসদী গ্রামের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এইদিকে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ গতশনিবার রাতে এক জরুরী সভায় সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে আবুল বাশারকে দল থেকে বহিষ্কার ও প্রাথমিক সদস্য পদ বাতিল করে। ঘটনার পর থেকে বাশার ও তার লোকজন আত্মগোপনে রয়েছে। পুলিশের বিভিন্নদল আসামিদের ধরতে অভিযান চালাচ্ছে।

এই বিষয়ে মামলার বাদী সালমা বেগম জানান, ‘আমার স্বামীর কোনো অপরাধ নাই। সন্ত্রাসী বাশার ও তার লোকজন মিলে আমার স্বামী ও ছেলেকে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে টেঁটাবিদ্ধ করে। আমার স্বামীর পা কেটে নিয়ে গেছে। আমি বাশারসহ ১৫ জনের নামে একটি মামলা দায়ের করেছি।’

এ ব্যাপারে উপজেলার স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মাহমুদুল হাসান ভূইয়া জানান, ‘রূপসদীর সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগের ভিত্তিতে আবুল বাশারকে সহ-সভাপতির পদ থেকে বহিষ্কার ও প্রাথমিক সদস্য পদ বাতিল করা হয়েছে। আমরা কোনো অন্যায়কে প্রশ্রয় দেবো না।’ এ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন জানান, ‘একজন জীবন্ত মানুষের পা কেটে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা খুবই বর্বরচিত। এই ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত তাদের কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। এদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। অপরাধী যেই হোক কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে। ’

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×