টঙ্গীতে ওসির হাতে কামড়ে হ্যান্ডকাফসহ আসামি ছিনতাই

  গাজীপুর প্রতিনিধি ২২ এপ্রিল ২০১৯, ২২:২৯ | অনলাইন সংস্করণ

আসামি ছিনতাই

গাজীপুরের টঙ্গীতে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে হত্যা মামলার পরোয়ানাভুক্ত আসামিকে হাতকড়াসহ ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

হামলায় জিএমপির টঙ্গী পশ্চিম থানার একজন পুলিশ পরিদর্শকসহ ৫ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। রোববার শবেবরাতে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন টঙ্গী পশ্চিম থানার পরিদর্শক (অপারেশন) সহিদুর রহমান, এসআই রকিবুল হাসান, পিএসআই সাখাওয়াত, এএসআই শহিদুল ইসলাম খান ও কনস্টেবল শামীম।

পুলিশ এ ঘটনায় সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলরসহ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ শটগানের গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

টঙ্গী পশ্চিম থানা সূত্রে জানা যায়, সাবেক টঙ্গী থানার একটি হত্যা মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত পলাতক আসামি টিপু জিনাত বস্তির নিজ বাড়িতে অবস্থান করছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পরিদর্শক (অপারেশন) সহিদুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ রোববার রাত ১০টায় বস্তিতে অভিযান চালায়। এ সময় টিপুকে হ্যান্ডকাফ পরিয়ে মোটরসাইকেলে তুলে থানায় নেয়ার সময় বস্তিবাসী লাঠিসোঁটা নিয়ে পুলিশ সদস্যদেরকে চারদিক থেকে ঘিরে ফেলে।

ওয়ারেন্টের কপি দেখানোর পরও টিপুর স্বজনরা পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে টিপুকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা চালায়। একপর্যায়ে মুন্নি বেগম নামের একজন নারী ওসি সহিদুর রহমানকে কামড়িয়ে আহত করে এবং আসামি টিপুকে হ্যান্ডকাফসহ ছিনিয়ে নেয়।

একই সময় এসআই রকিবুলের মানিব্যাগ থেকে সাড়ে তিন হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। থানায় এই খবর পৌঁছলে অবরুদ্ধ পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করার জন্য ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ পাঠানো হয়।

এ সময় পুলিশের কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর সেলিম হোসেনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ঘটনায় পুলিশের সঙ্গে বস্তিবাসীর মারামারি ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া শুরু হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শটগানের ফাঁকা গুলি ছুড়ে বস্তিবাসীকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

এ ঘটনায় পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) সহিদুর রহমান, এসআই বিল্লাল হোসেন, রকিবুল হাসান, পিএসআই সাখাওয়াত, এএসআই শহিদুল ইসলাম খান ও কনস্টেবল শামিম আহত হয়। আহতদের টঙ্গীর শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

রাতেই পুলিশ বস্তিতে অভিযান চালিয়ে আরও ৯ জনকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন মুন্নি বেগম (৩৫), জোছনা (৩০), জাহিদুল ইসলাম মিথুন (২৫), রাজু (২০), কামরুল হাসান (২০), আকাশ হোসেন (১৮), রেখা (৩০), সানোয়ার হোসেন (৩২) ও রুহুল আমিন (৪০)।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে এসআই বিল্লাল হোসেন বাদী হয়ে ১৭ জনের নাম উল্লেখ ও ২৫-৩০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা দায়ের করেন। সোমবার গ্রেফতারকৃতদের আদালতের মাধ্যমে গাজীপুর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে বস্তিবাসীরা জানান, রোববার শবেবরাতে এলাকার মসজিদে অবস্থান করছিল টিপু। নামাজে দাঁড়ানোর সময় পুলিশ টিপুকে মসজিদের ভেতর থেকে গ্রেফতার করলে মুসল্লিরা বাধা দেয়। এ সময় টিপু পুলিশের হাত ফসকে দৌড়ে পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) সহিদুর রহমান বলেন, মসজিদ ও টিপুর বাসা পাশাপাশি। টিপু মসজিদ থেকে বের হওয়ার সময় তাকে গ্রেফতার করা হলে বস্তিবাসী বাধা দিয়ে টিপুকে ছিনিয়ে নেয় বলে তিনি জানান।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×