স্বামীর দেয়া মোটা হওয়ার ট্যাবলেট খেয়ে গৃহবধূর মৃত্যু

  বগুড়া ব্যুরো ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ২১:৫৪ | অনলাইন সংস্করণ

স্বামীর দেয়া মোটা হওয়ার ট্যাবলেট খেয়ে গৃহবধূর মৃত্যু
প্রতীকী ছবি

বগুড়ার ধুনটে স্বামীর দেয়া মোটা হওয়ার ট্যাবলেট খেয়ে রত্না খাতুন (২২) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার দুপুরে পুলিশ উপজেলার চরনাটাবাড়ি গ্রাম থেকে লাশ উদ্ধার করেছে।

এ ঘটনায় স্বামী শাহাদত হোসেন (৩০), তার মা সাহারা বেগম (৪৫) ও বোন রানী বেগমকে (২৩) আটক করা হয়েছে।

ধুনট থানা পুলিশ জানায়, শেরপুর উপজেলার মোমিনপুর গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে শাহাদত হোসেন প্রায় তিন বছর আগে পার্শ্ববর্তী ধুনট উপজেলার চরনাটাবাড়ি গ্রামের গাজিউর রহমানের মেয়ে রত্না খাতুনকে বিয়ে করেন। তাদের সংসারে দুই বছর বয়সের এক ছেলে রয়েছে।

রত্নার বাবা গাজিউর রহমান অভিযোগ করেন, বিয়ের পর থেকে শ্বশুরবাড়ির লোকজন তার মেয়েকে নির্যাতন করে আসছে। এ নিয়ে কয়েকবার আপস-মীমাংসাও হয়েছে।

গাজিউর জানান, 'গত ২৩ এপ্রিল তিনি, তার স্ত্রী, মেয়ে ও জামাতা নন্দীগ্রাম উপজেলার মুরাদপুর গ্রামে আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যান। পথে জামাতা শাহাদত হোসেন একটি ওষুধের দোকান থেকে রত্নাকে মোটা হওয়ার ট্যাবলেট কিনে দেয়। রাতে ভাত খাওয়ার পর শাহাদত ওই ট্যাবলেট রত্নাকে খেতে বলে এবং এটা কাউকে বলতে নিষেধ করে। রাত সাড়ে ৮টার দিকে ট্যাবলেট খাওয়ার পর থেকে মেয়ে রত্না বমি করতে থাকে। অবস্থা বেগতিক দেখে স্বামী শাহাদত পালিয়ে যায়।'

পরে অসুস্থ রত্নাকে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে শজিমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। কিন্তু তারা স্থানান্তরের বিষয়টি বুঝতে না পেরে ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দিকে রওনা দেন। পথে ধুনটের মাঠপাড়া এলাকায় সিএনজি অটোরিকশার মধ্যে রত্না মারা যায় বলে জানান বাবা গাজিউর।

ধুনট থানার ওসি ইসমাইল হোসেন জানান, খবর পেয়ে বুধবার দুপুরে গৃহবধূ রত্নার লাশ বাবার বাড়ি থেকে উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। স্বজনদের দাবি- তাদের মেয়েকে বিষ খাইয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ জন্য স্বামী শাহাদত, শাশুড়ি সাহারা বেগম ও বোন রানী বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে গৃহবধূর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা সম্ভব হবে। এ ছাড়া ঘটনাস্থল নন্দীগ্রাম থানা এলাকায় হওয়ায় স্বজনদের সেখানে দণ্ডবিধির ৩২৮ ধারায় মামলা করতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে বলেও জানান ওসি।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×