আমতলী উপজেলা চেয়ারম্যানের শপথ স্থগিত
jugantor
আমতলী উপজেলা চেয়ারম্যানের শপথ স্থগিত

  আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি  

২৪ এপ্রিল ২০১৯, ২২:১৬:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

বরগুনার আমতলী উপজেলার নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম ছরোয়ার ফোরকানের ঋণখেলাপির তথ্য গোপনের অভিযোগের মামলায় শপথ কার্যক্রম স্থগিত করেছেন আদালত।

বরগুনা যুগ্ম জজ আদালত ও নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালের বিচারক এ ই এম ইসমাইল হোসেন বুধবার শুনানি শেষে এ আদেশ দিয়েছেন।

জানা গেছে, আমতলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন গত ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত হয়। এতে চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীক নিয়ে গোলাম ছরোয়ার ফোরকান বিজয়ী হন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সামসুদ্দিন আহম্মেদ ছজু ২৬ হাজার ৩৩৬ ভোট পেয়ে হেরে যান। বিজয়ী প্রার্থী গোলাম ছরোয়ার ফোরকান হলফনামায় ঋণখেলাপির তথ্য গোপন করে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

এমন অভিযোগ এনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সামসুদ্দিন আহম্মেদ ছজু বরগুনা যুগ্ম জজ আদালত ও নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে রোববার মামলা দায়ের করেন। আদালতের বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে বিজয়ী প্রার্থী গোলাম ছরোয়ার ফোরকানকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কেন তার চেয়ারম্যান হিসেবে শপথ কার্যক্রম স্থগিত হবে না তার কারণ জানতে চেয়ে নোটিশ দেয়।

মঙ্গলবার গোলাম ছরোয়ার ফোরকান আদালতে ১৫ দিনের সময় আবেদন করেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালতের বিচারক তাকে এক দিনের সময় দেয়। বুধবার ছিল ওই মামলার শুনানি শেষে আদালতের বিচারক এ ই এম ইসমাইল হোসেন উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে গোলাম ছরোয়ার ফোরকানের শপথগ্রহণ কার্যক্রম স্থগিতাদেশ দিয়েছেন।

মামলার বিবরণ সূত্রে জানা গেছে, গোলাম ছরোয়ার ফোরকান পটুয়াখালী পৌরসভাধীন বনানী সড়কে মেসার্স বনানী ট্রেডার্স ও মেসার্স রূপালী ট্রেডার্স নামে দুই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক। ওই ব্যবসা সম্প্রসারণের জন্য পটুয়াখালীর সম্পত্তি ও উপরের স্থাপনা মর্টগেজ রেখে পটুয়াখালী রূপালী ব্যাংক লিমিটেড নিউ টাউন শাখায় গোলাম ছরোয়ার, বনানী ট্রেডার্স এবং রূপালী ট্রেডার্সের নামে ঋণগ্রহণ করেছেন। তার নামে এবং প্রতিষ্ঠানের নামের ঋণ পরিশোধ করেনি। এতে তিনি ঋণখেলাপির তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হন।

গত ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে গোলাম ছরোয়ার ফোরকান মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। ওই মনোনয়নপত্রে তার হলফনামায় তিনি ঋণখেলাপির তথ্য গোপন করে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। তার হলফনামার তিনি খেলাপি ঋণের পরিমাণ উল্লেখ করেনি।

গোলাম ছরোয়ার ফোরকান অর্থঋণ আদালতে মামলা ও আরও দুটি ঋণের তথ্য গোপন রেখে হলফনামায় নিজেকে ঋণখেলাপি নন মর্মে উল্লেখ করেছেন। তিনি তথ্য গোপন করে হলফনামা দাখিল করায় নির্বাচনী আইন লংঘন করেছেন এবং রিটার্নিং অফিসারের সঙ্গে যোগসাজশে তিনি তার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেছেন। এমন অভিযোগ এনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সামসুদ্দিন আহম্মেদ ছজু রোববার গোলাম ছরোয়ার ফোরকানকে প্রধান আসামি করে ১০ জনের নামে বরগুনা যুগ্ম জজ আদালত ও নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার বাদী সামসুদ্দিন আহম্মেদ ছজু আদালতের রায়ের প্রতি সন্তুষ্ট হয়ে বলেন, আমি ন্যায়বিচার পেয়েছি।

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম ছরোয়ার ফোরকানের সঙ্গে তার যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন ধরেনি।

মামলার বাদী সামসুদ্দিন আহম্মেদ ছজুর আইনজীবী জগদীশ চন্দ্র শীল বলেন, গোলাম ছরোয়ার ফোরকান হলফনামায় ঋণখেলাপির তথ্য গোপনের অভিযোগের মামলায় আদালতে দীর্ঘ শুনানি শেষে তার (ফোরকান) উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে শপথগ্রহণ কার্যক্রম স্থগিত করেছেন।

আমতলী উপজেলা চেয়ারম্যানের শপথ স্থগিত

 আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি 
২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১০:১৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
উপজেলা পরিষদ নির্বাচন
উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

বরগুনার আমতলী উপজেলার নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম ছরোয়ার ফোরকানের ঋণখেলাপির তথ্য গোপনের অভিযোগের মামলায় শপথ কার্যক্রম স্থগিত করেছেন আদালত।

বরগুনা যুগ্ম জজ আদালত ও নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালের বিচারক এ ই এম ইসমাইল হোসেন বুধবার শুনানি শেষে এ আদেশ দিয়েছেন।

জানা গেছে, আমতলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন গত ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত হয়। এতে চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীক নিয়ে গোলাম ছরোয়ার ফোরকান বিজয়ী হন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সামসুদ্দিন আহম্মেদ ছজু ২৬ হাজার ৩৩৬ ভোট পেয়ে হেরে যান। বিজয়ী প্রার্থী গোলাম ছরোয়ার ফোরকান হলফনামায় ঋণখেলাপির তথ্য গোপন করে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

এমন অভিযোগ এনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সামসুদ্দিন আহম্মেদ ছজু বরগুনা যুগ্ম জজ আদালত ও নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে রোববার মামলা দায়ের করেন। আদালতের বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে বিজয়ী প্রার্থী গোলাম ছরোয়ার ফোরকানকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কেন তার চেয়ারম্যান হিসেবে শপথ কার্যক্রম স্থগিত হবে না তার কারণ জানতে চেয়ে নোটিশ দেয়।

মঙ্গলবার গোলাম ছরোয়ার ফোরকান আদালতে ১৫ দিনের সময় আবেদন করেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালতের বিচারক তাকে এক দিনের সময় দেয়। বুধবার ছিল ওই মামলার শুনানি শেষে আদালতের বিচারক এ ই এম ইসমাইল হোসেন উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে গোলাম ছরোয়ার ফোরকানের শপথগ্রহণ কার্যক্রম স্থগিতাদেশ দিয়েছেন।

মামলার বিবরণ সূত্রে জানা গেছে, গোলাম ছরোয়ার ফোরকান পটুয়াখালী পৌরসভাধীন বনানী সড়কে মেসার্স বনানী ট্রেডার্স ও মেসার্স রূপালী ট্রেডার্স নামে দুই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক। ওই ব্যবসা সম্প্রসারণের জন্য পটুয়াখালীর সম্পত্তি ও উপরের স্থাপনা মর্টগেজ রেখে পটুয়াখালী রূপালী ব্যাংক লিমিটেড নিউ টাউন শাখায় গোলাম ছরোয়ার, বনানী ট্রেডার্স এবং রূপালী ট্রেডার্সের নামে ঋণগ্রহণ করেছেন। তার নামে এবং প্রতিষ্ঠানের নামের ঋণ পরিশোধ করেনি। এতে তিনি ঋণখেলাপির তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হন।

গত ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে গোলাম ছরোয়ার ফোরকান মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। ওই মনোনয়নপত্রে তার হলফনামায় তিনি ঋণখেলাপির তথ্য গোপন করে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। তার হলফনামার তিনি খেলাপি ঋণের পরিমাণ উল্লেখ করেনি।

গোলাম ছরোয়ার ফোরকান অর্থঋণ আদালতে মামলা ও আরও দুটি ঋণের তথ্য গোপন রেখে হলফনামায় নিজেকে ঋণখেলাপি নন মর্মে উল্লেখ করেছেন। তিনি তথ্য গোপন করে হলফনামা দাখিল করায় নির্বাচনী আইন লংঘন করেছেন এবং রিটার্নিং অফিসারের সঙ্গে যোগসাজশে তিনি তার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেছেন। এমন অভিযোগ এনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সামসুদ্দিন আহম্মেদ ছজু রোববার গোলাম ছরোয়ার ফোরকানকে প্রধান আসামি করে ১০ জনের নামে বরগুনা যুগ্ম জজ আদালত ও নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার বাদী সামসুদ্দিন আহম্মেদ ছজু আদালতের রায়ের প্রতি সন্তুষ্ট হয়ে বলেন, আমি ন্যায়বিচার পেয়েছি।

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম ছরোয়ার ফোরকানের সঙ্গে তার যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন ধরেনি।

মামলার বাদী সামসুদ্দিন আহম্মেদ ছজুর আইনজীবী জগদীশ চন্দ্র শীল বলেন, গোলাম ছরোয়ার ফোরকান হলফনামায় ঋণখেলাপির তথ্য গোপনের অভিযোগের মামলায় আদালতে দীর্ঘ শুনানি শেষে তার (ফোরকান) উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে শপথগ্রহণ কার্যক্রম স্থগিত করেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন