বনলতার উদ্বোধন: বসতে না পেরে ফিরে গেলেন ২ আ’লীগ নেতা

  রাজশাহী ব্যুরো ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:১২ | অনলাইন সংস্করণ

বনলতার উদ্বোধন: বসতে না পেরে ফিরে গেলেন ২ আ’লীগ নেতা
রাজশাহী স্টেশন চত্বরে বিরতিহীন বনলতা আন্তঃনগর এক্সপ্রেস ট্রেনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। ছবি: যুগান্তর

বছরখানেক ধরেই রাজশাহীর দুই শীর্ষ আওয়ামী লীগ নেতার সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণের অভিযোগ উঠেছে। সরকারি কোনো অনুষ্ঠানে গেলে তাদের বসার ব্যবস্থাও থাকে না বলে অভিযোগে জানা যায়।

তাদের একজন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ ও অন্যজন হলেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজশাহী স্টেশন চত্বরে বিরতিহীন বনলতা আন্তঃনগর এক্সপ্রেস ট্রেনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন ওই দুই আওয়ামী লীগ নেতা। কিন্তু যথাসময়ে অনুষ্ঠানস্থলে গিয়েও বসার জায়গা না পেয়ে শেষাবধি তারা ফিরে যেতে বাধ্য হন। সঙ্গে তাদের অনুসারীরাও একে একে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন।

রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ ক্ষোভের সঙ্গে যুগান্তরকে বলেন, দলীয় সভা-সমাবেশে নেতাকর্মী আনতে আমাদেরই দরকার হয়, কিন্তু সরকারি কোনো অনুষ্ঠানে গিয়ে আমরা আর বসার জায়গা পাই না।

আজও আমরা বনলতা ট্রেনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গিয়ে দেখি কতিপয় সংসদ সদস্য হাইব্রিডদের নিয়ে সামনের দিকের সব আসন দখল করে বসে আছেন।

এ ছাড়া অনুষ্ঠানস্থলের অধিকাংশ আসন আগেই একশ্রেণির ভুঁইফোড় সংগঠনের নেতাদের দখলে চলে যায়। ফলে আমাদের বসার কোনো জায়গাও ছিল না। তাই মহানগর সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার আর আমি কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকে বসার জায়গা না পেয়ে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করতে বাধ্য হই। এ ছাড়া আমাদের অন্য কিছু করারও ছিল না।

এদিকে দুই আওয়ামী লীগ নেতা বসার জায়গা না পেয়ে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগের বিষয়টি জানতে চাইলে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) খন্দকার শহিদুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আমাদের জানা ছিল না। তারাও আমাদের আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন।

তবে দুই আওয়ামী লীগ নেতার অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগের পর এ বিষয়ে রাজশাহীর জেলা প্রশাসক এসএম আবদুল কাদেরের নজরে এলে তিনি ফোন করে দুই নেতাকে অনুষ্ঠানস্থলে আসার অনুরোধ করেন। তবে আসাদ ও ডাবলু আর ফিরেননি।

এদিকে আসাদ আরও বলেন, এর আগেও বিভিন্ন সরকারি অনুষ্ঠানে আমাদের ডাকা হলেও কতিপয় এমপি ও তাদের হাইব্রিড অনুগামীদের ভিড়ে বসতে না পেয়ে ফিরে যেতে বাধ্য হয়েছেন।

তাদের সঙ্গে পরিকল্পিতভাবে এ ধরনের অসৌজন্যতা দেখানো হচ্ছে বলে তিনি মনে করেন। প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্সের মতো গুরুত্বপূর্ণ একটি অনুষ্ঠানে থাকতে না পারায় দুঃখ পেয়েছেন বলে জানান তিনি।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×